Alexa

বাংলা একাডেমির প্রাঙ্গণে বৈশাখী মেলা

বাংলা একাডেমির প্রাঙ্গণে বৈশাখী মেলা

বাংলা একাডেমির প্রাঙ্গণে বৈশাখী মেলা, ছবি: বার্তা২৪

বৈশাখ আর মেলা একসূত্রে গাঁথা। এরই ধারাবাহিকতায় রাজধানীর বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে চলছে দশ দিনব্যাপী বৈশাখী মেলা। বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন (বিসিক) ও বাংলা একাডেমির উদ্যোগে চলছে এই মেলা।

সোমবার (১৫ এপ্রিল) মেলার দ্বিতীয় দিন। এদিন মেলা প্রাঙ্গণ ঘুরে দেখা যায়, প্রতিটি স্টলেই দেশি পণ্যের পসরা সাজিয়ে বসেছে দোকানিরা।

বাংলা একাডেমির প্রাঙ্গণে বৈশাখী এই মেলায় পাওয়া যাচ্ছে, একতারা, দোতারা, খঞ্জনি, ডুগডুগি, নকশি কাঁথা, মুখোশ, চাদর, কুশন, শতরঞ্জি, মাটির গহনা, তাঁত ও জামদানি শাড়ি, থ্রি-পিস, কাঁসা পিতলের বাসন, বাঁশের তৈরি ডালা, চালুন, হাতে তৈরি বিভিন্ন গহনা ছাড়াও আরও বিভিন্ন হরেক রকমের জিনিসপত্র।

মিষ্টি পণ্য বিক্রেতা পলাশ বিশ্বাস বার্তা২৪.কম-কে বলেন, 'প্রতিবছরই বাংলা একাডেমির এই বৈশাখী মেলায় আসি। বিক্রিও বেশ ভালো।'

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Apr/15/1555344016852.jpg

মেলায় রয়েছে নানা রকম খাদ্যপণ্যও- লাড্ডু, বাতাসা, বালুসাই, মুরালি, মোয়া, মিঠাই, নানা ধরনের ও মিষ্টান্ন-সামগ্রী। এর মধ্যে বেশি বিক্রি হচ্ছে বালুসাই মিষ্টি।

হারিয়ে যাওয়া বায়োস্কোপেরও দেখা মিলবে এই মেলায়। বায়োস্কোপ নিয়ে আসা আব্দুল জলিল বার্তা২৪.কম-কে বলেন, 'লাল সবুজ রঙের এই বাক্সের চারিদিকে ছোট ছোট খোপ আছে, যা দিয়ে দেখা যাবে দেশ বিদেশ, জাদুর খেলা ইত্যাদি। বায়োস্কোপ একবার দেখতে ২০ টাকা লাগবে।'

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Apr/15/1555342004398.jpg

জুবাইদা লাবনী হাতে তৈরি গহনা বিক্রি করছেন, জানতে চাইলে বার্তা২৪.কম-কে বলেন, 'আমরা সম্পূর্ণ দেশীয় উপাদান দিয়ে বিভিন্ন ধরনের গয়না বানিয়ে থাকি। ফেলে দেওয়া কাগজ, গোলাকার বীজ ব্যবহার করে বানিয়ে থাকি এসব গয়না। সম্পূর্ণ দেশি হাওয়ায় মানুষের কাছে এর চাহিদা বেশ ভালো।'

মেলায় ঘুরতে আসা দর্শনার্থী জান্নাতুল ফেরদৌস বার্তা২৪.কম-কে বলেন, 'আমাদের গ্রামের ঐতিহ্য বহন করে, এমন অনেক কিছুই মেলায় এসে দেখেছি। মেলায় এসে আমার খুব ভালো লাগছে।' মেলায় পণ্যের দাম নিয়েও তিনি সন্তুষ্টি প্রকাশ করছেন।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Apr/15/1555344059248.jpg

আরেক দর্শনার্থী ফাতিহা বার্তা২৪.কম-কে বলেন, 'মেলায় ঘুরতে এসে দেখলাম মেহেদি দেওয়ার ব্যবস্থা আছে। তাই হাতে মেহেদি দিলাম। আর মেয়েদের মেহেদির প্রতি আগ্রহ বেশি থাকে। বৈশাখী মেলায় মেহেদির বিষয়টি একেবারেই নতুন, আমার কাছে ভালো লেগেছে। পঞ্চাশ টাকার বিনিময়ে হাতে দেওয়া যাচ্ছে এই মেহেদি।'

বৈশাখী মেলায় বাহারি এমন সব গ্রামীণ পণ্য পেয়ে বেশ খুশি বলে বার্তা২৪.কম-কে জানিয়েছেন লিমন নামের এক দর্শনার্থীরা।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Apr/15/1555344076384.jpg

বিসিকের সহকারী প্রধান নকশাবিদ এনামুল বার্তা২৪.কম-কে বলেন, 'মেলায় সর্বমোট স্টল আছে ২১৩ টি। যার মধ্যে ২০৪টি সাধারণ এবং খাবারের স্টল রয়েছে এবং বাকি নয়টা কুটির শিল্পীদের।'

তিনি আরও বলেন, 'আমরা প্রতিবছরই বাংলা একাডেমিতে এই বৈশাখী মেলা আয়োজন করে থাকি। এই ইট-পাথরের নগরীতে গ্রামীণ সংস্কৃতির সাথে পরিচয় করে দিতে আমাদের এই মেলা। প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে শুরু হয়ে এই মেলা চলবে রাত ৯ টা পর্যন্ত।'

আপনার মতামত লিখুন :