নাতি হারানোর শোকে বিমানবন্দরেই হাসিনা-সেলিমের কান্না

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, ঢাকা, বার্তা২৪.কম
বিমানবন্দরে শেখ হাসিনাকে দেখেই কেঁদে ফেলেন শেখ সেলিম, ছবি: সংগৃহীত

বিমানবন্দরে শেখ হাসিনাকে দেখেই কেঁদে ফেলেন শেখ সেলিম, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ব্রুনাই সফরে গিয়েই পেয়েছিলেন নাতি নিখোঁজের খবর। একদিকে ছিল রাষ্ট্রীয় সফরে ব্যস্ততা অন্যদিকে ছিল নাতির খোঁজ নেওয়া। অবশেষে জানতে পারেন আদরের নাতি চলে গেছে চিরতরে ওপারে। মনে চাপা কষ্ট নিয়েই তাই সফর শেষ করে দেশে ফিরেছেন।

বলছিলাম দেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কথা। তাঁর ফুপাতো ভাই শেখ সেলিমের আট বছর বয়সী নাতি জায়ান চৌধুরী শ্রীলঙ্কায় ভয়াবহ বোমা হামলায় নিহত হয়েছেন। জানা যায়, জায়ান শেখ হাসিনার খুব আদরের ছিল।

নাতি হারানোর শোকে বিমানবন্দরেই হাসিনা-সেলিমের কান্না

 

পরিবারের সঙ্গে শ্রীলঙ্কায় বেড়াতে যান জায়ান। সঙ্গে ছিলেন বাবা মশিউল হক চৌধুরী, মা শেখ আমেনা সুলতানা সোনিয়া ছোট ভাই জোহান। রোববার ওই দিন শ্রীলঙ্কায় ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটে। হামলায় মশিউল হক চৌধুরী গুরুতর আহত হন। এ সময় তার সঙ্গে থাকা জায়ান নিখোঁজ ছিলেন।

হামলায় পরিবারের দুই সদস্যের হতাহতের খবর ব্রুনাইতেই এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী সবাইকে জানিয়ে দিয়ে দোয়া চান। কিন্তু সময় যত গড়াতে থাকে ততই জায়ানের মৃত্যুর খবর ছড়াতে থাকে। জায়ানকে হারানোর শোক সব মহলে ছড়িয়ে পড়ে।

নাতি হারানোর শোকে বিমানবন্দরেই হাসিনা-সেলিমের কান্না

শেখ সেলিমের বনানীর বাড়িতে দলীয় নেতা-কর্মী ও আত্মীয় স্বজনের ভিড় বাড়তে থাকে। গত দুই দিন ধরে শেখ সেলিম নিজেই তাদের সান্ত্বনা দেন। কিন্তু নিজের আবেগ প্রকাশের জন্য হয়ত প্রিয় বোনের অপেক্ষাতেই ছিলেন তিনি। তাই বিমানবন্দরেই বোন হাসিনা আসামাত্রই তার সঙ্গে দেখা করেন। বোনকে কাছে পেয়ে নিজের আবেগ আর ধরে রাখতে পারেন নি। বিমানবন্দরের ভিভিআইপি টার্মিনালে বোনের সামনে অশ্রুসিক্ত হয়ে উঠেন। এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভাইকে সান্ত্বনা দিতে গিয়ে নিজেও আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন।

নাতি হারানোর শোকে বিমানবন্দরেই হাসিনা-সেলিমের কান্না

এ সময় বিমানবন্দরে আরো উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব নজিবুর রহমানসহ আরও অনেকে।

জায়ানের মরদেহ আনতে শ্রীলঙ্কায় গিয়েছেন দুই মামা শেখ ফাহিম ও শেখ নাঈম। জানা গেছে, আগামীকাল দুপুরে জায়ানের মরদেহ ঢাকায় আসবে। তবে তার বাবা গুরুতর আহত হওয়ায় তিনি সেখানে আরও কিছুদিন চিকিৎসা নেবেন।

আপনার মতামত লিখুন :