Barta24

বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯, ২ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

রংপুরে ওভার টাইমের মূল্যায়ন চান শ্রমিকরা

রংপুরে ওভার টাইমের মূল্যায়ন চান শ্রমিকরা
শোভাযাত্রায় অংশ নেন রংপুরের বিভিন্ন শ্রেণী পেশার শ্রমিকরা, ছবি: বার্তা২৪
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
রংপুর
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

আন্তর্জাতিক নিয়মানুযায়ী ৮ ঘণ্টার বেশি সময় কাজ করেও কর্মক্ষেত্রে মালিকদের কাছ থেকে নির্যাতন ও শ্রম মজুরি বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন রংপুরের শ্রমিকরা। সেই বৈষম্য দূরীকরণসহ ওভার টাইম ডিউটির মূল্যায়ন, নিয়মিত বেতন, উৎসব ভাতা ও চিকিৎসা সেবা প্রদানসহ নানা দাবির আওয়াজ তুলে আন্তর্জাতিক শ্রমিক দিবস (মহান মে দিবস) উপযাপন করেছেন রংপুরের শ্রমিক সংগঠনগুলো।

বুধবার (১ মে) সকাল থেকেই রংপুর মহানগরী বিভিন্ন শ্রেণী পেশার শ্রমজীবী মানুষের মিছিল স্লোগানে মুখরিত হয়ে উঠে।

বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শ্রমিক অধ্যুষিত এলাকা শাপলা চত্ত্বরে বিভিন্ন সংগঠন নিজ নিজ ব্যানারে মিছিল নিয়ে আসতে থাকে। দুপুর বারোটার পর কানায় কানায় পূর্ণ হয় শাপলা চত্ত্বরের শ্রমিক সমাবেশ স্থল।

আন্তর্জাতিক মে দিবস

আলোচনা শেষে একটি বিশাল শোভাযাত্রা বের হয়ে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে। মিছিলের শ্রমিকরা কপালে, কব্জিতে লালসালু আর হাতে লাল নিশান উড়িয়ে কলকারখানা, হোটেল-রেস্তোরাঁ, দোকানপাট, ইমারত ও পরিবহন শ্রমিক ও কর্মচারীসহ বিভিন্ন পেশার শ্রমিকরা শোভাযাত্রায় অংশ নেন।

মহান মে দিবসের আলোচনা অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, আট ঘণ্টা শ্রম সময় কিন্তু আমরা শ্রমিকরা প্রায়ই ওভার টাইম করছি। এতেও মালিকদের কাছ থেকে মূল্যায়ন পাওয়া যায় না। শ্রম বৈষম্য দূরীকরণে সকল শ্রমিকদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। ১৮৮৬ সালের শ্রমিক বিপ্লবের ১৩৩ বছর পেরিয়ে গেলেও শ্রমিক শোষণ বেড়েই চলেছে।

যাদের শ্রমে-ঘামে দেশ এগিয়ে চলেছে সেই শ্রমিকদের মূল্যায়ন না করলে কপালে দুগর্তি আছে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে শ্রমিক নেতারা বলেন, ‘মানবিক জীবন-যাপনের উপযোগী মজুরিও পায় না শ্রমিকরা। অথচ মজুরি বৃদ্ধির আন্দোলন করলেই আমাদের কপালে জোটে পুলিশের লাঠিচার্জ। মজুরি বৃদ্ধি এবং কর্মক্ষেত্রে উন্নত পরিবেশের দাবির পূর্ণ বাস্তবায়ন আজও হয়নি। ন্যায্য মজুরি থেকে শ্রমিকদেরকে বিরত করা, আগুনে পুড়ে ও ভবন ধসে শ্রমিকদের মৃত্যবরণ, আর হামলা মামলা করে শ্রমিকদের আন্দোলন দমন ও পুঁজিবাদী শোষণমূলক ব্যবস্থার এই হচ্ছে চিরাচরিত নিয়ম।

আরও পড়ুন: চিকিৎসা, শিক্ষা ও ভূমির অধিকার চান চা শ্রমিকরা

এসময় শ্রমিকদের অধিকার প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে সরকারের পাশাপাশি মালিক পক্ষের লোকজনকে সহযোগিতা কামনা করেন।

এরআগে সকাল দশটায় রংপুর জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্ত্বর থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী কাচারী বাজার এলাকা থেকে বের হয়। রংপুর জেলা প্রশাসন আয়োজিত ওই র‌্যালীটি নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে মে দিবসের আলোচনা অনুষ্ঠানে মিলিত হয়।

শোভাযাত্রা ও আলোচনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- রংপুর বিভাগীয় কমিশনার জয়নুল বারী, জেলা প্রশাসক এনামুল হাবীব, পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান, রংপুর জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক তৌহিদুর রহমান টুটুল, রংপুর জেলা মটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক এম এ মজিদ, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান সিদ্দিকী রনিসহ বিভাগীয় ও জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা। শোভাযাত্রা শেষে টাউন হলে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে গান পরিবেশন করেন স্থানীয় শিল্পীরা।

আরও পড়ুন: মে দিবস মেহনতি মানুষের অধিকার আদায়ের প্রতীক

এদিকে সকাল থেকে জাতীয় শ্রমিক লীগ, মটর শ্রমিক ইউনিয়ন, অটোবাইক, রিক্সা ও ভ্যান চালক শ্রমিক লীগ, জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দল, জাতীয় শ্রমিক পার্টি, জাতীয় অটোচালক শ্রমিক পার্টি, অটো মালিক-শ্রমিক সমবায় সমিতি, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট, বাংলাদেশ শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশন, বাংলার চোখ, হোটেল-রেস্তোরা শ্রমিক ইউনিয়ন, দোকান কর্মচারী ইউনিয়ন, ইমারত শ্রমিক ইউনিয়নসহ প্রায় অর্ধশতাধিক সামাজিক, পেশাজীবী ও সাংস্কৃতিক সংগঠন মে দিবস উপলক্ষ্যে নগরীর বিভিন্ন স্থানে র‌্যালী, আলোচনা সভা, মিলাদ ও দোয়া মাহফিল এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে আয়োজন করে।

মে দিবস নিয়ে বার্তা২৪.কমের আরও নিউজ পড়তে চাইলে ক্লিক করুন 'আন্তর্জাতিক শ্রমিক দিবস'। 

আপনার মতামত লিখুন :

প্রত্যাহারের আদেশ না মানায় দুর্গাপুর থানার ওসি স্ট্যান্ড রিলিজ

প্রত্যাহারের আদেশ না মানায় দুর্গাপুর থানার ওসি স্ট্যান্ড রিলিজ
দুর্গাপুর থানার ওসি আব্দুল মোতালেব, ছবি: সংগৃহীত

রাজশাহীর দুর্গাপুর থানার অফিসার ইনচার্জকে (ওসি) আব্দুল মোতালেব প্রত্যাহারের আদেশ না মানায় তাকে স্ট্যান্ড রিলিজের আদেশ দেওয়া হয়েছে।

বুধবার (১৭ জুলাই) সকালে রাজশাহী জেলা পুলিশ সুপার এই আদেশ দেন। জেলা পুলিশের মুখপাত্র ইফতে খায়ের আলম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে জানান, গত ২ জুলাই একজন নারী তার স্বামীর বিরুদ্ধে নির্যাতনের মামলা করতে আসলেও তা নিতে গড়িমসি করার অভিযোগ ওঠে ওসি আব্দুল মোতালেবের বিরুদ্ধে। তিনি অভিযোগ খতিয়ে দেখতে একজন এএসআইকে দায়িত্ব দেন। ওই এএসআই আইনগত ব্যবস্থা না নিয়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে মীমাংসার জন্য বৈঠক ডাকেন। তবে ঘটনা মীমাংসা করার আগেই ভুক্তভোগী নারীর স্বামী (অভিযুক্ত) দুবাই চলে যান।

জেলা পুলিশের মুখপাত্র আরও জানান, বিষয়টি জানাজানি হলে এবং ভুক্তভোগীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে জনস্বার্থে ওসি আব্দুল মোতালেবকে বদলি করা হয়। তাকে ১৬ জুলাইয়ে পুলিশ লাইনে হাজির হওয়ার আদেশ জারি করা হয়। নির্ধারিত দিনে পুলিশ লাইনে হাজির না হওয়ায় তাকে দুর্গাপুর থানা থেকে স্ট্যান্ড রিলিজের আদেশ দেওয়া হয়।

থানা সূত্র জানায়, রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলার মহিপাড়া গ্রামের শিমু ইয়াসমিন লিপি নামের এক অন্তঃসত্ত্বা নারীকে শারীরিক নির্যাতন করে তার দুবাই প্রবাসী স্বামী সোহেল রানা। পরে ওই নারী রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি হন। সেখানে অপারেশনের মাধ্যমে তার গর্ভের মৃত সন্তানকে বের করা হয়। চিকিৎসকরা জানান, স্বামীর মারধর ও আঘাতে ওই নারীর গর্ভের সন্তান মারা যায়।

এ ঘটনায় গত ২ জুলাই স্বামীর বিরুদ্ধে নির্যাতনের মামলা করতে গেলে ওসি আব্দুল মোতালেব তা নিতে গড়িমসি করে নারীকে ফিরিয়ে দেন। দ্বিতীয় দফায় অভিযোগ করতে গেলে, অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা জানার পর অভিযোগ নেওয়া হবে মর্মে একজন এএসআইকে দায়িত্ব দেন। তবে সেই এএসআই অভিযুক্তকে দেশ ছেড়ে যাওয়ার সুযোগ করে দেন বলে অভিযোগ ওঠে।

'শিশুদের মোবাইল ব্যবহার বন্ধ করা সমাধান নয়'

'শিশুদের মোবাইল ব্যবহার বন্ধ করা সমাধান নয়'
সাংবাদিকদের মুখোমুখি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

শিশুদের মোবাইল ব্যবহার বন্ধ করে দিলে কোনো সমাধান হবে না বলে জানিয়েছেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান।

বুধবার (১৭ জুলাই) বিকালে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সম্মেলন কক্ষে ডিসি সম্মেলনের চতুর্থ দিনের ষষ্ঠ অধিবেশন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

ডিসিদের কি ধরনের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, 'আমি যেটা তাদের বলেছি, তৃণমূলে তারাই কিন্তু নেতা। ডিজিটাল বাংলাদেশ নির্মাণে তারাই কিন্তু মানুষকে টেনে আনবেন।'

মন্ত্রী বলেন, 'সেখানে তারা (ডিসি) আমাকে প্রশ্ন করেছিল, বাচ্চাদের মোবাইল ব্যবহারের কারণে নানা রকম সমস্যা হচ্ছে। এটা কিন্তু পার্ট। এটা আমাদের কাটিয়ে উঠতে হবে। আমরা এর থেকে দূরে সরে গেলে, বন্ধ করে দিলে এর থেকে কিছু হবে না। সেই কথাগুলো বললাম, আমাদের একচুয়ালি এগুলো ফাইন্ড করে এগোতে হবে। আমাদের মানসিকতা ওইভাবে তৈরি করতে হবে যে, আমি এই রকম পর্যায়ে যেতে চাই।'

তিনি আরও বলেন, 'বাংলাদেশ কোথায় উঠবে এটা বাঙালিও হয়তো অনেক সময় জানে না। কিন্তু আমাদের চাওয়াটা আকাশচুম্বী। কবিতা দিয়ে বলেছিলাম, বাঙালির চাওয়া আকাশ ছোঁয়া কথাটা চমৎকার। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর প্রমাণ।'

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র