Barta24

শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ২০১৯, ৮ ভাদ্র ১৪২৬

English

খুলনায় ছেল‌েধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে বৃদ্ধ নিহত

খুলনায় ছেল‌েধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে বৃদ্ধ নিহত
নিহত বৃদ্ধের মরদেহ / ছবি: বার্তা২৪
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
খুলনা


  • Font increase
  • Font Decrease

খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলায় রোহিঙ্গা ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে অজ্ঞাত (৫৫) এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় পুলিশ দুইজনকে আটক করেছে।

শনিবার (১১ মে) ভোরে খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলার স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। নিহত বৃদ্ধের পরিচয় পাওয়া যায়নি। তবে এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে মাগুরখালীর অজ্ঞাত ২৫০ জনের নামে মামলা করছে।

আটককৃতরা হলেন, ঘোষগাতি গ্রামের মিলন মোড়লের ছেলে মেহেদী মোড়ল (২৭) ও কাঠালিয়া এলাকার খগেন্দ্রনাথ মন্ডলের ছেলে মধু মন্ডল।

পুলিশ ও স্থানীয়দের তথ্য মতে, শুক্রবার (১০ মে) রাতে ডুমুরিয়ার মাগুরখালীতে ওই বৃদ্ধকে ছেলেধরা সন্দেহে আটক করে এলাকাবাসী। এ সময় রোহিঙ্গা ভেবে তাকে জিজ্ঞাসাবাদের পর বৃদ্ধ কোনো উত্তর দিতে পারেনি। একপর্যায়ে এলাকার নারী-পুরুষরা মিলে গণপিটুনি দিয়ে জখম করে তাকে। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে গুরুতর আহতাবস্থায় বৃদ্ধকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে গেলে ভোরের দিকে তার মৃত্যু হয়।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/11/1557565366673.JPG

ডুমুরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম বিপ্লব বার্তা২৪.কমকে বলেন, ‘রাতে একজন পাগল বৃদ্ধ মাগুরখালীর রাস্তায় ঘুরছিল। তখন তাকে রোহিঙ্গা ছেলেধরা সন্দেহ করে এলাকাবাসী। স্থানীয়রা পাগল বৃদ্ধকে অনেক প্রশ্ন করলে বৃদ্ধ কোনো উত্তর দিতে পারেনি। পাগল উত্তর দেবে কি করে? তারপর এলাকাবাসী তাকে গণপিটুনি দেয়। ঘটনার পর বৃদ্ধকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে ভোরে তার মৃত্যু হয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘ঘটনাস্থল থেকে দু’জনকে আটক করা হয়। এছাড়া অজ্ঞাত ২৫০ জনকে আসামি করে পুলিশ বাদী হয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে। নিহত বৃদ্ধের পরিচয় পাওয়া যায়নি।’

আপনার মতামত লিখুন :

যোগ্যতা নিয়েই রাজনৈতিক দলে অংশ নিতে চান খুলনার নারী নেত্রীরা

যোগ্যতা নিয়েই রাজনৈতিক দলে অংশ নিতে চান খুলনার নারী নেত্রীরা
খুলনায় নারী নেত্রীদের মতবিনিময় সভা, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

যোগ্যতা নিয়েই রাজনৈতিক দলের কার্যক্রমে অংশ নিতে চান খুলনার নারী নেত্রীরা। খুলনার নারী নেত্রীরা বলেছেন, স্বামী, সন্তান, সংসার, চাকরি সামলে নারীদের কাজ করতে হয়। তারপরও তারা এগিয়ে চলছে। তাই কোটা নয়, যোগ্যতার ভিত্তিতেই নারীরা এগিয়ে যাবে। রাজনৈতিক দলের কমিটিতে যোগ্যতার ভিত্তিতে ৩৩ শতাংশ নারীর অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে।

বৃহস্পতিবার (২২ আগস্ট) দুপুরে নগরীর উমেশচন্দ্র পাবলিক লাইব্রেরি মিলনায়তনে নারীর রাজনৈতিক ক্ষমতায়ন বিষয়ক মতবিনিময় সভায় এক মঞ্চে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির তৃনমূলের নারী নেত্রীরা এসব কথা বলেন। ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন।

খুলনা জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বিএমএ সালামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের বক্তব্য দেন, জেলা বিএনপির সভাপতি অ্যাড. এস এম শফিকুল আলম মনা, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাড. ফরিদ আহমেদ, নিমাই মন্ডল, জুবায়ের আহমেদ জবা, বিএনপি নেতা বিএম কামরুজ্জামান টুক, মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী অধ্যক্ষ দেলোয়ারা বেগম, হোসনে আরা চম্পা, মহিলা দলের জেলা সভাপতি অ্যাডভোকেট তসলিমা খাতুন ছন্দা, নারী নেত্রী শোভা রাণী হালদার প্রমুখ।

এতে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির নারী সংগঠনের অর্ধ শতাধিক প্রতিনিধি অংশ নেন।

খুলনায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় আসামির মৃত্যু

খুলনায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় আসামির মৃত্যু
খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, ছবি: সংগৃহীত

খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালের প্রিজন সেলে চিকিৎসাধীন শামসু মল্লিক (৭৫) নামের এক আসামি মারা গেছেন।

বৃহস্পতিবার (২২ আগস্ট) দুপুরের দিকে তিনি মারা যান। শামসু মল্লিক নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের একটি মামলার আসামি ছিলেন। সে রূপসার কাশেম মল্লিকের ছেলে।

ওই আসামি গত কয়েকদিন ধরেই জ্বরে আক্রান্ত ছিলেন বলে জানান খুলনার জেলার মো. জান্নাত উল ফরহাদ।

তিনি বলেন, 'জ্বরে আক্রান্ত হয়ে গত ১৯ আগস্ট থেকে তিনি জেলা কারাগারের হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। সেখানেই তিনি মারা যান।'

খুলনা জেলার রূপসা থানায় দায়ের হওয়া নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের একটি মামলায় তিনি আসামি ছিলেন। রূপসা থানার মামলা নং-১০ (৬) ১৯ জিআর -১৮৮/১৯।

উক্ত ব্যক্তির মরদেহ ময়না তদন্ত শেষে জেলা কারাগার কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানা যায়।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র