Barta24

বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০১৯, ৩ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

এক বছরের মধ্যে স্মার্টকার্ডে পাসপোর্টের সুবিধা

এক বছরের মধ্যে স্মার্টকার্ডে পাসপোর্টের সুবিধা
স্মার্টকার্ড দিয়েই পাসপোর্টের কাজ করতে পারবেন নাগরিকরা/ ছবি: সংগৃহীত
ইসমাঈল হোসাইন রাসেল
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
ঢাকা


  • Font increase
  • Font Decrease

পাসপোর্ট ছাড়া শুধু স্মার্টকার্ড দিয়ে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে যেতে পারবেন বাংলাদেশের নাগরিকরা। এক বছরের মধ্যেই এই প্রক্রিয়া শুরু করার পরিকল্পনা রয়েছে নির্বাচন কমিশনের (ইসি)। জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের (এনআইডি উইং) মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম বার্তা২৪.কম-কে এ তথ্য জানিয়েছেন।

জানা গেছে, শুরুতেই ফোরাম অব দি ইলেকশন ম্যানেজমেন্ট বডিজ অব সাউথ এশিয়ার (ফেমবোসা) সাত দেশে পরীক্ষামূলকভাবে এটি চালু করা হবে। পরবর্তীতে ধাপে ধাপে বাকি দেশগুলোতে ভ্রমণের ক্ষেত্রে এ সুবিধা পাবেন নাগরিকরা। বাংলাদেশ ছাড়া ফেমবোসাভুক্ত বাকি দেশগুলো হলো- ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলংকা, আফগানিস্তান, নেপাল, ভুটান ও মালদ্বীপ।

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম বার্তা২৪.কম-কে বলেন, ‘স্মার্টকার্ড দিয়ে অন্য দেশে ভ্রমণের সুবিধাটি আমরা অবশ্যই বাস্তবায়ন করব। শুরুতে শুধু দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোতে চালু করার বিষয়টি পরিকল্পনায় রেখেছিলাম। কিন্তু এখন আমাদের সিদ্ধান্ত হচ্ছে দক্ষিণ এশিয়ার বাইরেও সারা বিশ্বের অন্যান্য দেশেগুলোতে এ সুবিধা চালু করার।’

‘আমরা দেখছি বিশ্বের বিভিন্ন দেশে কিভাবে স্মার্ট কার্ডের মধ্যে সংরক্ষিত সার্ভারের তথ্য ব্যবহার করে মানুষকে চিহ্নিত করা যায়, সেই চেষ্টা অব্যাহত আছে। আমরা কাজ শুরু করেছি। পূর্ণ গতিতে এগিয়ে যাচ্ছি।’

তিনি বলেন, ‘যেহেতু বিভিন্ন দেশের সাথে লিংক করার বিষয় রয়েছে, সেই বিষয়টি নিয়ে তাদের সঙ্গে আলোচনা চলছে, তারা কিভাবে এটি ব্যবহার করবে। একটি নতুন বিষয় শুরু করতে অনেক চ্যালেঞ্জ আসে। আমরা খুব দ্রুত এটি শুরু করব। প্রবাসীদের ভোটার নিবন্ধনের কাজ শুরু হওয়ার পর এই বিষয়টি নিয়ে কাজ শুরু করব।’

জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক বলেন, ‘এক বছরের মধ্যেই এই সুবিধাটি চালু করব। শুরুতে পরীক্ষামূলকভাবে কয়েকটি দেশে শুরু করব। প্রথামিকভাবে আমরা ফেমবোসাভুক্ত দেশগুলোতে কাজ শুরু করব। এনআইডি উইং থেকে এটি পরিকল্পনা করছি। এক বছরের মধ্যেই এটি শুরু করা সম্ভব।’

এনআইডি উইং সূত্রে জানা গেছে, এই সুবিধা চালু হলে স্মার্টকার্ড দিয়ে পাসপোর্টের কাজও করা যাবে। এতে করে পাসপোর্টের ঝামেলা কমে যাবে। স্মার্টকার্ডের মধ্য পাঁচটি স্তরে ২৫টি সিকিউরিটি ফিচার আছে। কার্ডে পাঁচটি লেয়ারে সিকিউরিটি ফিচার দেওয়া আছে। এছাড়াও নাগরিকের সম্পূর্ণ বায়োডাটা এর মধ্যে সংরক্ষিত আছে।

কার্ডের ভেতরে একটি পাতা আছে, যেখানে বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ, জাতীয় সংগীত, বাংলাদেশের মানচিত্র, শাপলা ফুল, আলট্রাভায়োলেট রে, চোখের আইরিশ, বায়োমেট্রিক, ফিঙ্গার প্রিন্টসহ আরও কয়েকটি ফিচার আছে। এ ছাড়া একজন মানুষের ৩১টি ডাটা আছে। এই ডাটাগুলো তার কি না আইডি পাঞ্চ করলেই সব দেখা যাবে।

আরও জানা গেছে, দীর্ঘমেয়াদি টেকসই কার্যক্রম ও রাষ্ট্রের নিরাপত্তা ও সম্মান বিবেচনায় বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন গত বছরের ২৭ আগস্ট থেকে দেশিয় প্রযুক্তি, নিজস্ব জনবলের মাধ্যমে স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্র উৎপাদন করছে। নিজস্ব ব্যবস্থাপনা ও জনবল ব্যবহারের কারণে অর্থ সাশ্রয়ের পাশাপাশি টেকসই সাপ্লাই চেইন ম্যানেজমেন্ট ও নিজস্ব সক্ষমতাও অর্জিত হয়েছে বলে দাবি এনআইডি উইংয়ের।

আপনার মতামত লিখুন :

ময়মনসিংহ থেকে সিলেট ও রংপুরে ট্রেন চালুর দাবি

ময়মনসিংহ থেকে সিলেট ও রংপুরে ট্রেন চালুর দাবি
ছবি: রংপুর ও সিলেট রুটে ট্রেন চালুর দাবিতে আমরা ময়মনসিংহবাসীর মানববন্ধন/ ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

ময়মনসিংহ থেকে সিলেট ও রংপুর রুটে আন্তঃনগর ট্রেন চালু করাসহ সাত দফা দাবিতে মানববন্ধন করেছেন ময়মনসিংহ নগরবাসী।

বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) বিকালে ময়মনসিংহ রেলওয়ে স্টেশনের সামনে কৃষ্ণচূড়া চত্বরে ‘আমরা ময়মনসিংহবাসী’ ব্যানারে ঘণ্টাব্যাপী এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক নেতাকর্মী ছাড়াও রেলওয়ে ফ্যান গ্রুপের সদস্য ও সিলেটস্থ সিলেট-ময়মনসিংহ আন্তঃনগর ট্রেন চালুকরণ বাস্তবায়ন পরিষদের সদস্যরা অংশ নেন।

তাদের অন্য দাবিসমূহ হচ্ছে- ঢাকা থেকে ময়মনসিংহ হয়ে বঙ্গবন্ধু সেতু পর্যন্ত ডুয়েল গেজ ডাবল রেললাইন স্থাপন প্রকল্প দ্রুত বাস্তবায়ন, ময়মনসিংহ-ঢাকা রুটে চারটি আন্তঃনগর ট্রেন চালু, বর্তমানে ময়মনসিংহ হয়ে যেসব অন্তঃনগর ট্রেন চলাচল করছে সেসব ট্রেনের অর্ধেক আসন ময়মনসিংহ থেকে বরাদ্দ, ট্রেনের টিকিট কালো বাজারিমুক্ত করে টিকিট প্রাপ্তির নিশ্চয়তা ও ময়মনসিংহ রেল স্টেশনকে আর্ন্তজাতিক মানের আধুনিক রেলস্টেশনে রূপান্তরিত করা।

আমরা ময়মনসিংহবাসীর আহ্বায়ক জগলুল পাশা রুশোর সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন- সিপিবির জেলা সভাপতি অ্যাড. এমদাদুল হক মিল্লাত, স্বেচ্ছাসেবক লীগের জেলা সভাপতি অ্যাড. এ বি এম নুরুজ্জামান খোকন, জনউদ্যোগের যুগ্ম-আহ্বায়ক অ্যাড. শিব্বির আহমদ লিটন, ময়মনসিংহ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সহ-সভাপতি শংকর সাহা, ময়মনসিংহ রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, ময়মনসিংহ টেলিভিশন জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি অমিত রায়, সুজন মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক আলী ইউসুফ, নারী নেত্রী সৈয়দা সেলিমা আজাদ, দীপ শিখা খান প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ‘যাতায়াতের সহজ মাধ্যম রেলপথ। জীবন-জীবিকা, অর্থনীতি-সংস্কৃতি-শিক্ষা তথা সভ্যতার বিকাশ রেলকে ঘিরেই আবর্তিত। কিন্তু বৃটিশ-পাকিস্তান আমল পার হয়ে বাংলাদেশের অগ্রগতির সাথে রেলওয়ের কাঙ্ক্ষিত উন্নয়ন ময়মনসিংহ অঞ্চলে একেবারেই হয়নি।’

তারা বলেন, ‘ময়মনসিংহের অনেক শিক্ষার্থী সিলেট ও রংপুরের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পড়াশোনা করেন। ঐ দুই অঞ্চলের অনেক শিক্ষার্থীও ময়মনসিংহে পড়াশোনা করেন। এছাড়াও ব্যবসায়ীদের নিয়মিত যাতায়াত রয়েছে সিলেট ও রংপুরে। ময়মনসিংহ থেকে ট্রেন না থাকায় দীর্ঘদিন যাবত দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে শিক্ষার্থীসহ সাধারণ মানুষের।’

এর আগে সাত দফা দাবিতে জেলা প্রশাসক ও স্টেশন সুপারের মাধ্যমে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। জেলা প্রশাসকের পক্ষে স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক কে এম গালিভ খাঁন ও স্টেশন সুপার জহুরুল ইসলাম স্মারকলিপি গ্রহণ করেন।

রোহিঙ্গাদের জাল পাসপোর্ট তৈরি করা চক্রের সদস্যরা আটক

রোহিঙ্গাদের জাল পাসপোর্ট তৈরি করা চক্রের সদস্যরা আটক
রোহিঙ্গাদের পুরনো ছবি

বাংলাদেশি একটি চক্রের সাহায্যে মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গারা কৌশলে পাসপোর্ট তৈরি করে বিদেশে পাড়ি দেওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছেন। আর এ জালিয়াতি পাসপোর্ট তৈরি চক্রের বেশ কয়েকজন সদস্যকে আটক করেছে র‍্যাব-১০।

বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ এলাকায় র‍্যাব-১০ এর একটি বিশেষ অভিযানে তাদের আটক করা হয়। ঘটনাস্থলে র‍্যাবের অভিযান এখনো চলমান রয়েছে বলে জানা যায়।

এই বিষয়ে র‍্যাব-১০ এর এএসপি মো. শাহিন বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে বলেন, 'ভুয়া কাগজপত্র, ভিসা ও পাসপোর্ট তৈরি করে বাংলাদেশি নাগরিক পরিচয়ে বাস্তুচ্যুত মিয়ানমারের রোহিঙ্গাদের বিভিন্ন বিদেশে পাঠানোর চেষ্টাকারী একটি চক্রের বেশ কয়েকজন সদস্যকে আটক করা হয়েছে। দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের হাজী নূর হোসেন বেপারি ঘাট এলাকায় আমাদের অভিযান এখনো চলমান রয়েছে। অভিযানে আমরা প্রাথমিকভাবে জানতে পেরেছি, এই চক্রটি রোহিঙ্গাদের কাছ থেকে টাকা নিয়ে তাদের জাল কাগজপত্র, ভিসা ও পাসপোর্ট তৈরি করে বাংলাদেশি নাগরিক পরিচয় দিয়ে মালয়েশিয়া ও মধ্যপ্রাচ্যের বেশ কয়েকটি দেশে পাঠাত।'

তিনি বলেন, 'প্রাথমিকভাবে তাদের নাম পরিচয় জানানো যাচ্ছে না। কারণ আমাদের অভিযানটি এখনো শেষ হয়নি। তবে অভিযান শেষে এ বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হবে।'

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র