Alexa

সীমানা জটিলতার নিষ্পত্তি, পবা উপজেলায় ভোট ১৮ জুন

সীমানা জটিলতার নিষ্পত্তি, পবা উপজেলায় ভোট ১৮ জুন

ছবি: সংগৃহীত

রাজশাহীর পবা উপজেলার সীমানা জটিলতার অভিযোগ এনে করা রিট খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট। ফলে নির্বাচন স্থগিত রাখার যে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল, তা প্রত্যাহার করা হয়েছে। একই সঙ্গে সুনির্দিষ্ট তথ্য ছাড়াই রিট করে নির্বাচন বিলম্ব করায় রিটকারীকে ১ লাখ টাকা জরিমানা করেছেন বিচারক।

রাজশাহী আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ফরিদুল ইসলাম সোমবার (১৩ মে) দুপুরে বার্তা২৪.কমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘আদালতের স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার হওয়ায় পবা উপজেলা নির্বাচনে তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে। তফসিল অনুযায়ী- পঞ্চম ধাপে আগামী ১৮ জুন দেশের অন্য ১৬টি উপজেলার মতো পবা উপজেলাতেও ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে মনোনয়পত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন ২১ মে। মনোনয়ন পত্র যাচাই-বাছাই হবে ২৩ মে এবং প্রত্যাহারের শেষ দিন ৩০ মে।

জানা যায়, পবায় সবশেষ ২০১৪ সালের উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন জামায়াত নেতা মকবুল হোসাইন। ভাইস-চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন ওয়ার্কার্স পার্টির নেতা আশরাফুল হক তোতা ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হন জামায়াতের নারী নেত্রী খায়রুন নেছা।

২০১৫ সালের মাঝামাঝি সময়ে চেয়ারম্যান জামায়াত নেতা মকবুল হোসাইন মারা যান। এর তিন মাস পর উপজেলায় উপ-নির্বাচনের তফলিস ঘোষণা করা হয়। তবে সীমানা জটিলতার অভিযোগ এনে ২০১৫ সালের ডিসেম্বরে হাইকোর্টে রিট করেন পারিলা ইউনিয়নের ডাংগীরপাড়া গ্রামের মৃত ইব্রাহীম হোসেনের ছেলে ফজলুল বারী।

ফলে ভোটের দু’দিন আগে তা স্থগিতের আদেশ দেন আদালত। পরে ওই রিট খারিজ হয়ে যায়। ২০১৯ সালে পঞ্চম উপজেলা নির্বাচনে প্রথম ধাপে গত ১০ মার্চ উপজেলায় ভোটগ্রহণের কথা ছিল। তবে ফের ওই ফজলুল বারী সীমানা জটিলতার অভিযোগ এনে রিট করেন। ফলে এক বছরের জন্য নির্বাচন স্থগিত করা হয়।

পরে নৌকা প্রতীকে মনোনীত প্রার্থী মনসুর রহমান স্থগিতাদেশ তুলে নিতে আদালতে আবেদন করেন। ওই আবেদনের শুনানি শেষে সাম্প্রতি নির্বাচনের স্থগিতাদেশ তুলে নেন আদালত।

আপনার মতামত লিখুন :