সড়কেই ইফতার করলেন রাজশাহীতে আন্দোলনরত পাটকল শ্রমিকরা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রাজশাহী
সড়কেই ইফতার করলেন রাজশাহীতে আন্দোলনরত পাটকল শ্রমিকরা / ছবি: বার্তা২৪

সড়কেই ইফতার করলেন রাজশাহীতে আন্দোলনরত পাটকল শ্রমিকরা / ছবি: বার্তা২৪

  • Font increase
  • Font Decrease

বকেয়া বেতন ভাতাসহ নয় দফা দাবিতে আন্দোলনরত রাজশাহী জুট মিলসের শ্রমিক-কর্মচারীরা সোমবার (১৩ মে) ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কে বসেই ইফতার সেরেছেন। কেউ কেউ সড়কের ওপরেই মাগরিবের নামাজও পড়েছেন।

জুট মিল শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের পক্ষ থেকে আন্দোলনরত শ্রমিকদের পলিথিনের প্যাকেটে খিচুড়ি ও পানি সরবরাহ করা হয়। পরে মঙ্গলবার (১৪ মে) কর্মবিরতি, বিক্ষোভ মিছিল ও অবস্থান কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দিয়ে তারা ফিরে যান।

এর আগে সকাল থেকে কর্মবিরতি পালন করছেন শ্রমিকরা। বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে জুট মিলসের প্রধান ফটক থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে আন্দোলনকারীরা। মিছিলটি প্রধান ফটকের সামনে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়ক হয়ে কাটাখালি বাজার প্রদক্ষিণ করে পুনরায় ফটকের সামনে গিয়ে শেষ হয়।

পরে তারা সেখানে অবস্থান কর্মসূচি শুরু করে। সেখানে দাবি আদায়ের লক্ষ্যে বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকে। সেখানেই তারা সমাবেশও করেন। ফলে সড়কে যান চলচাল বন্ধ হয়ে যায়। এ সময় সড়কের দু’পাশে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। পরে সন্ধ্যার দিকে বিকল্প পথে যানবাহন পারাপারের ব্যবস্থা করে দেয় পুলিশ।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/13/1557757255744.jpg

আন্দোলনরত শ্রমিকরা জানান, গত জানুয়ারি মাস থেকে তাদের বেতনভাতা পুরোপুরি বন্ধ রাখা হয়েছে। বকেয়া বেতন, মজুরি কমিশন বাস্তবায়ন ও উৎসবভাতাসহ নয় দফা দাবিতে শ্রমিক-কর্মচারীরা এ আন্দোলন কর্মসূচি শুরু করেছেন। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তারা আন্দোলন চালিয়ে যাবেন।

রাজশাহী জুট মিলস শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি জিল্লুর রহমান জানান, আগে তাদের বেতনভাতা ও মজুরি ছিল ৪ হাজার ১৫০ টাকা। বর্তমানে সর্বনিম্ন ৮ হাজার ৩০০ টাকা ঘোষণা হলেও তা এখনও বাস্তবায়ন হয়নি। ফলে তারা নতুন বেতন স্কেলে কোনো বেতন মজুরি পান না। এতে পরিবার-পরিজন নিয়ে তারা সংকটে পড়েছেন। আন্দোলন চালিয়ে যাওয়া ছাড়া তাদের সামনে কোনো পথ নেই।

কাটাখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নিবারণ চন্দ্র বর্মণ বলেন, ‘সন্ধ্যার আগে বিকল্প রাস্তা দিয়ে যান চলাচল স্বাভাবিক রাখার চেষ্টা করেছে পুলিশ। শ্রমিকরা ইফতার করার পর সড়ক ছেড়ে দিয়েছে। এখন মূল রাস্তা দিয়ে যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।’

আপনার মতামত লিখুন :