Alexa

বেধে দেওয়া সময়ের আগেই রাজশাহীতে পাড়া হচ্ছে আম

বেধে দেওয়া সময়ের আগেই রাজশাহীতে পাড়া হচ্ছে আম

সময়ের আগে পাড়া আম জব্দ করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত, ছবি: বার্তা২৪.কম

অপরিপক্ক আম গাছ থেকে পেড়ে রাসায়নিকের মাধ্যমে পাকিয়ে কেউ যাতে বাজারজাত করতে না পারে, সেজন্য আম পাড়ার সময়সীমা বেধে দিয়েছে রাজশাহী জেলা প্রশাসন।

প্রশাসনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, বুধবার (১৫ মে) থেকে দেশি জাতের ‘গুটি’ আম গাছ থেকে পাড়তে পারবেন চাষিরা।

অথচ দুইদিন আগে সোমবার (১৩ মে) রাজশাহীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, গাছ থেকে আম পেড়ে প্লাস্টিকের ক্যারেটে ভরে তা বিভিন্ন স্থানে পাঠানো হচ্ছে। বাস বা কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে পাঠানোর জন্য ক্যারেটে ভর্তি এসব আমের অধিকাংশই পাকেনি, পাকানো হয়েছে।

তবে যারা আম পাড়ছেন, তাদের দাবি, আমগুলো পাকিয়ে বিক্রির জন্য নয়, আচার বানাতে গাছ থেকে পাড়া হয়েছে।

সোমবার দুপুরে রাজশাহীর নওহাটায় বিমানবন্দর এলাকায় ভ্যানে করে ১২-১৫টি ক্যারেট বোঝাই আম ঢাকাগামী একটি বাসে (রজনীগন্ধা) তুলতে দেখা যায়। এগিয়ে গিয়ে আগে আম পাড়ার বিষয়ে জানতে চাইলে, ভ্যানে আম বহনকারী যুবক বিব্রত হয়ে পড়েন। একপর্যায়ে তিনি দাবি করেন, এগুলো গুটি আম। আচার বানাতে এসব আম পাড়া হয়েছে। পাকানোর জন্য নয়।

এসময় নিজের নাম-পরিচয় প্রকাশ করতে রাজি হননি তিনি।

তবে ক্যারেটগুলোতে যেভাবে আম রাখা হয়েছে, তা আচার বানানোর জন্য নয় বলে ধারণা স্থানীয়দের। সেখানে থাকা শফিকুল ইসলাম (৫৫) বলেন, যেভাবে ক্যারেটে খবরের কাগজ ও খড় দিয়ে আম সাজানো হয়েছে, তাতে বোঝা যাচ্ছে, এটা পাকা খাওয়ার জন্যই কোথাও পাঠানো হচ্ছে। আর আমগুলোও বিশেষভাবে (রাসায়নিক ব্যবহারে) পাকানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে।

এদিকে, জেলার মোহনপুর ও পুঠিয়াতেও বেঁধে দেওয়ার সময়ের আগেই গাছ থেকে আম পাড়ছেন অনেকে। প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে বেশি লাভের আশায় কিছু অসাধু ব্যবসায়ী বাজারে আগেভাগে আম সরবরাহ করার জন্য এমনটা করছেন।

Rajshahi
অপরিপক্ক আম পেড়ে কোথাও পাঠানো হচ্ছে, ছবি: বার্তা২৪.কম

 

তবে প্রশাসনও কঠোর নজরদারি রাখছে রাজশাহীর বাগানগুলোতে। সোমবার (১৩ মে) বিকেলে পুঠিয়া উপজেলায় অপরিপক্ক আম গাছ থেকে পেড়ে বাজারজাত করার প্রস্তুতিকালে ছয়জনকে গ্রেফতার করা হয়। পরে তাদের ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে পাঁচ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

পুঠিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ওলিউজ্জামান তাদের এ শাস্তি দেন।

ইউএনও বার্তা২৪.কমকে জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার জিউপাড়া ইউনিয়নের সরিষাবাড়ি এলাকায় আব্দুল খালেকের আমবাগান থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। নির্দেশ অমান্য করে অপরিকপক্ক আম বাজারজাত করার প্রস্তুতির সময় তাদের হাতেনাতে ধরা হয়। ওই বাগান থেকে অপরিপক্ক ৭০ ক্যারেট (প্রায় ৩০ মণ) আম জব্দ করা হয়।

এ ব্যাপারে রাজশাহী জেলা প্রশাসক এসএম আব্দুল কাদের বার্তা২৪.কমকে বলেন, সব উপজেলায় আম পাড়ার বিষয়টি পর্যবক্ষেণ করতে টিম কাজ করছে। তারা অপরিপক্ক আম যাতে বাজারে কেউ বিক্রি করতে না পারে সে ব্যাপারে তৎপর রয়েছে। আশা করি, কেউ এ ধরনের অসাধু উপায় বেছে নেবেন না।

গত ১২ মে চলতি মৌসুমে রাজশাহীতে আম পাড়ার সময়সূচি ঘোষণা করে জেলা প্রশাসন। নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী, ১৫ মে থেকে দেশি জাতের গুটি আম, ২০ মে থেকে গোপালভোগ, হিমসাগর বা ক্ষীরসাপাত ২৮ মে, লক্ষ্মণভোগ ২৫ মে, ল্যাংড়া আগামী ৬ জুন, আম্রপালি ১৬ জুন, ফজলি ও সুরমা ফজলি ১৬ জুন এবং আশ্বিনা আম ১ জুলাই থেকে গাছ থেকে পেড়ে বাজারজাত করতে পারবেন চাষিরা।

 

আপনার মতামত লিখুন :