Alexa

মধুমাসের রসাল ফল খুলনার বাজারে

মধুমাসের রসাল ফল খুলনার বাজারে

খুলনার বাজারে এসেছে রসে ভরা নানা প্রজাতির ফল। ছবি: বার্তা২৪.কম

মধুমাস জ্যৈষ্ঠের শুরুতেই খুলনার বাজারে এসেছে রসে ভরা নানা প্রজাতির ফল। আম, লিচু, তরমুজ, বাঙ্গি, সফেদা, কাঁঠাল, জামরুল, নাশপাতি, আনারসসহ রসাল নানা ফলের পসরা নিয়ে বসেছে ফল বিক্রেতারা। তবে চাহিদা অনুযায়ী ফল সরবরাহ না হওয়ায় এসব দেশি ফলের দাম বেশ চড়া।

বুধবার (১৫ মে) সরেজমিনে খুলনা নগরী ঘুরে দেখা যায়, জ্যৈষ্ঠের শুরুতে দেশীয় ফলের আগমনে ফলের ব্যবসাকে কেন্দ্র করে ব্যস্ততা বেড়েছে আড়ত ও বাজারগুলোতে। আম, লিচু, কাঁঠাল, বাঙ্গি, আনারস, জামরুল, সফেদাসহ মৌসুমী ফলের বিপুল সমারোহ দেখা দিয়েছে বাজারে। আশপাশের অঞ্চল থেকে মধুমাসের বিভিন্ন রসাল ফল আসতে শুরু করেছে আড়তে।

আবার আড়ত থেকে খুচরা বিক্রেতারা ফল কিনে নিয়ে বিভিন্ন বাজারের দিকে ছুটছে। তবে ফলের দাম সাধারণের নাগালের বাইরে থাকায় ক্রেতারা অনেকে শূন্য হাতে ফিরছে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/15/1557927578639.jpg

ফল বিক্রেতারা জানায়, রমজানে ফলের চাহিদা থাকে প্রচুর। এছাড়া তীব্র গরমেও নগরবাসী ফলের দিকে ঝুঁকে। কিন্তু ফলের চাহিদা অনুযায়ী সরবরাহ অনেক কম। তাই দাম একটু বেশি।

নগরীর হেলাতলার ফল বিক্রেতা আব্দুল মুন্সি বার্তা২৪.কমকে বলেন, ‘আমি দিনাজপুরের আম আর লিচু বিক্রি করছি। আমের কেজি ১০০ থেকে ১৫০ টাকা, আর ১০০ লিচু ৩২০ থেকে ৩৫০ টাকা। বাজারে কাস্টমার অনেক, কিন্তু বিক্রি কম। দাম একটু বেশি হওয়ায় না কিনেই চলে যাচ্ছে ক্রেতারা। তবে রাজশাহীর ফল আসলে দাম কমতে পারে।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/15/1557927604854.jpg

ফল কিনতে আসা চাকরিজীবী সোহেলুর রহমান বার্তা২৪.কমকে বলেন, ‘ফলের বাজারে এসে দাম শুনে ভয় পেলাম। গত বছরের তুলনায় এবার প্রতিটা ফলের দাম বেড়েছে। তাছাড়া রমজান এলেই লাগামহীন হয়ে যায় সবকিছুর দাম।’

খুলনা ফল আমদানিকারক মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আলমগীর কবির জানান, প্রতি বছরের মতো এবারো খুলনায় দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে দেশি ফল আসতে শুরু করেছে। তবে এখনো রাজশাহী বা চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ফল আসেনি। রাজশাহীর ফল আসতে আরও কিছুদিন সময় লাগবে। এখন মূলত সাতক্ষীরা, মেহেরপুর, চুয়াডাঙ্গা, দিনাজপুরসহ আশপাশের বিভিন্ন জেলা থেকে ফল আসছে।

তিনি আরও জানান, খুলনায় আড়তের সংখ্যা ৬০ এর মতো। এখন আড়তে গোবিন্দ ভোগ, হিমসাগর, গোপাল ভোগ, গ্রেট বোম্বাই আম আসছে। প্রতিবছরের মতো এবারো খুলনার ফলের বাজার ফরমালিনমুক্ত থাকবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

আপনার মতামত লিখুন :