Alexa

বগুড়ায় শাহীন হত্যায় ২৫০০ টাকা পায় বিপুল

বগুড়ায় শাহীন হত্যায় ২৫০০ টাকা পায় বিপুল

গ্রেফতার বিপুল, ছবি: সংগৃহীত

বগুড়ায় বিএনপি নেতা ও পরিবহন ব্যবসায়ী অ্যাডভোকেট মাহবুব আলম শাহীন হত্যাকাণ্ডে অংশ নিয়ে মাত্র আড়াই হাজার টাকা পায় বেলাল হোসেন বিপুল(৩০)। সেই টাকায় ওই রাতেই তিন বন্ধু ফে নসিডিল সেবন করে যে যার মতো আত্মগোপনে চলে যায়। পুলিশের ভাষ্য, গ্রেফতারের পর বিপুল পুলিশের কাছে এ তথ্য জানিয়েছে।

বুধবার (১৫ মে) রাতে আদমদীঘি থানার কুশম্বী গ্রামে শ্বশুর বাড়ি থেকে পুলিশ গ্রেফতার করে বিপুলকে। বিপুল বগুড়া শহরের নিশিন্দারা মন্ডলপাড়ার মামুনুর রশিদ নান্নুর ছেলে।

গ্রেফতারের পর বৃহস্পতিবার (১৬ মে) দুপুরে তাকে আদালতে হাজির করা হলে শাহীন হত্যাকাণ্ডের জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দী দিয়েছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক আমবার হোসেন বার্তা ২৪.কমকে বলেন, বিপুলের নাম এজাহারে ছিলনা। এর আগে গ্রেফতার দুইজনের ১৬৪ ধারায় দেয়া জবানবন্দীতে বিপুলের নাম পাওয়া যায়।

গ্রেফতার বিপুলের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, শাহীন হত্যাকাণ্ডের সময় বিপুলের হাতে ধারালো অস্ত্র ছিল। শাহীনের ওপর হামলা করা হলে তিনি রাস্তায় পড়ে যান। এসময় বিপুল তার বাম পায়ে কোপ দেয়। সেখান থেকে পালিয়ে চারমাথা এলাকায় গেলে তাকে আড়াই হাজার টাকা দেয়া হয়। ওই টাকায় তিন বোতল ফেনসিডিল কিনে তিন বন্ধু সেবন করেন। এর মধ্যে জানতে পারে শাহীন মারা গেছেন। শাহীন মারা যাওয়ার খবর শুনে যে যার মতন আত্মগোপন করে।

উল্লেখ্য, গত ১৪ এপ্রিল রাত সাড়ে ১০টার দিকে নিশিন্দারা উপশহর বাজার এলাকায় খুন হন বগুড়া সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও পরিবহন ব্যবসায়ী অ্যাডভোকেট মাহবুব আলম শাহীন। এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী আকতার জাহান বাদী হয়ে আরেক পরিবহন ব্যবসায়ী ও পৌরসভার কাউন্সিলর আমিনুল ইসলামকে প্রধান আসামি করে ১১জনের নামে মামলা দায়ের করে। এর আগে পুলিশ প্রধান আসামিসহ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে। 

আপনার মতামত লিখুন :