Barta24

মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯, ৫ ভাদ্র ১৪২৬

English

এগিয়ে যাবার, এগিয়ে রাখার বার্তা২৪.কম

এগিয়ে যাবার, এগিয়ে রাখার বার্তা২৪.কম
ছবি: বার্তা২৪.কম
ফরহাদুজ্জামান ফারুক
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
রংপুর


  • Font increase
  • Font Decrease

কিছু মানুষ আছেন, যাদের জন্মই হয়েছে এগিয়ে যাবার জন্য, এগিয়ে রাখার জন্য। বলছি, কোটি কোটি মানুষের ভিড়ে একজন অসাধারণ মানুষের গল্প। যে কিনা বিস্ময় বালক। হ্যাঁ, সে এখনো মনে-প্রাণে, সাহসে, বয়সে এক সুদীপ্ত বালক। তার মাঝে তারুণ্যময় কর্মস্পৃহা এখনো বলীয়ান। শুধু নিজের জন্য নয়, তিনি যেন সবার জন্য এক অতুলনীয় মানুষ।

তার মেধা, সৃষ্টি, দক্ষতা, অর্জন, চিন্তাধারা, পরিকল্পনা, মননশীলতা সবই রঙিন। আলোময়, ঝলমলে, হাস্যোজ্জ্বল। কখনো পিছিয়ে পড়ার গল্প নেই তার জীবনালেখ্যে। তিনি শুধুই এগিয়ে গেছেন, যাচ্ছেন, আরও যাবেন। তবে তিনি একা নয়, তার সৃষ্টি কর্মে যুক্ত মানুষদেরও এগিয়ে রেখেছেন তিনি।

আমি যার কথা বলতে চাচ্ছি তিনি মেঠো পথ ধরে হাঁটতে হাঁটতে ক্লান্ত হননি। দম ফুরিয়ে যায়নি তার। গাঁও জয় করে শহর বন্দর নগর জয় করেছেন তিনি। জয় করেছেন অগণিত মানুষের মন। সৃজনশীল সৃষ্টিতে পটু এ অসাধারণ মানুষটির ভক্ত, শ্রোতা, পাঠক, গুণগ্রাহী, গুণমুগ্ধ অসংখ্য।

এই অসাধারণ মানুষটির নাম আলমগীর হোসেন। যার নামের মধ্যে আলো লুকায়িত। আলোকিত এ মানুষটির স্বপ্নগুলোই সবার স্বপ্ন।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/19/1558254416801.jpg

তার বিস্ময়ময় সৃষ্টির মধ্যে সবচেয়ে আলোচিত নাম ‘বার্তা২৪.কম’। মাত্র ৩৬৫ দিনে এ দেশের প্রথম মাল্টিমিডিয়া অনলাইন নিউজ পোর্টাল হিসেবে জনপ্রিয়তার তুঙ্গে বার্তা২৪.কম। রহস্য প্রথম শব্দটিতে। বার্তা২৪.কমের আগে আরও অনেক পোর্টালের জন্ম হয়েছে বটে, তবে এতো আলোচনা হয়নি।

পাঠক ও শ্রোতার প্রত্যাশাকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেয় বার্তা২৪.কম। এ কারণে গতানুগতিক ধারা থেকে বেরিয়ে এসে নতুনত্বের ছোঁয়ায় মাল্টিমিডিয়া অনলাইন মোবাইল জার্নালিজমকে জাগ্রত করেছেন বার্তা২৪.কমের এডিটর ইন চিফ আলমগীর হোসেন। সবকিছুতে প্রথম হওয়া মানুষটির হাতেই দেশের প্রথম অনলাইন নিউজ পোর্টাল বিডিনিউজের সূচনা। এ কারণে তিনি অনলাইন নিউজ পোর্টাল ও অনলাইন সাংবাদিকতার জনকও।

এখন তার হাতে গড়া বার্তা২৪.কম দেশের প্রথম এবং সেরা মাল্টিমিডিয়া অনলাইন নিউজ পোর্টাল। হাঁটি হাঁটি পা পা করে আজ বার্তা২৪.কম দ্বিতীয় বর্ষে পদার্পণ করেছে। এই এক বছর বার্তা২৪.কম যেভাবে এগিয়ে গিয়েছে, তা আমার কাছে বিস্ময়ের। একই ভাবে আমিও বার্তা২৪.কমের সহযোদ্ধা হিসেবে বেশ এগিয়েছি। এখন আমাকে অনেকজন চেনেন, জানেন ও নিয়মিত দেখেন। এক বছর আগে এভাবে আমাকে কেউ জানত না, চিনত না।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/19/1558254440260.jpg

আমি এক যুগেরও বেশি সময় ধরে লেখালেখি শিখছি। কিন্তু কখনো ক্যামেরার সামনে দাঁড়িয়ে সমস্যা, সম্ভাবনা, উন্নয়ন, বিড়ম্বনাসহ এগিয়ে যাবার গল্প বলার সুযোগ হয়নি। গত এক বছরে বার্তা২৪.কমে সেই সুযোগ আমাকে বারবার দেয়া হয়েছে। আমার মতো অন্যরাও এ সুযোগ পেয়েছে, কিন্তু পরিতৃপ্তির জায়গাতে আমি তৃপ্ত, ধন্য, গর্বিত।

গত এক বছরে যা পেয়েছি, শিখেছি, দেখেছি, জেনেছি তা আগামীতে আমাকে অনেক দূর এগিয়ে রাখবে। এতে আমি আমরা যেমন এগিয়ে যাব, তেমনি এগিয়ে যাবে বার্তা২৪.কম। আমার কাছে বার্তা২৪.কমের প্রথম বছরটি বিস্ময়ের বছর। এতো অল্প সময়ে এতো বড় অর্জন, সফলতা, আর লাখ লাখ পাঠক-দর্শক ও শ্রোতা সৃষ্টি করতে পারাটা সত্যি বিস্ময়ের। আর এই বিস্ময়ের জন্মটা দিয়েছেন বিস্ময় বালক আলমগীর হোসেন। যার সঙ্গে থাকলে জীবনের সঙ্গে কর্মক্ষেত্রেও এগিয়ে থাকা সম্ভব, এগিয়ে যাওয়া সম্ভব।

আপনার মতামত লিখুন :

কাদাপানিতে একাকার সড়ক, দুর্ভোগে ১৩ গ্রাম

কাদাপানিতে একাকার সড়ক, দুর্ভোগে ১৩ গ্রাম
কাশিগঞ্জ মোড় থেকে চরপাড়া বাজার পর্যন্ত সড়কের চিত্র, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

কোথাও হাঁটু পরিমাণ কাদা। কোথাও ছোট-বড় গর্ত। সড়কের বিস্তৃত অংশে উঠে গেছে মাটি। বৃষ্টি হলেই জল কাদায় একাকার হয়ে যায় সড়ক। সড়কের বিভিন্ন স্থানে পানি জমে তৈরি হয়েছে ছোট ডোবা। ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জের রাজিবপুর ইউনিয়নের কাশিগঞ্জ মোড় থেকে চরপাড়া বাজার পর্যন্ত সড়কের চিত্র এটি। সড়কের বেহাল দশার কারণে ভোগান্তিতে পড়েছেন স্কুল শিক্ষার্থীসহ ১৩ গ্রামের মানুষ।

স্থানীয়রা জানান, বর্ষার শুরুতেই সড়কের যানবাহন চলাচল প্রায় বন্ধ হয়ে গেছে। গ্রামবাসী পায়ে হেঁটে সড়কে চলাচল করতে গিয়ে দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। কিছুদিন আগে ক্ষুব্ধ গ্রামবাসী সড়কে ধানের চারা রোপণ করেও প্রতিবাদ জানিয়েছেন। কিন্তু কর্তৃপক্ষ সড়ক সংস্কার কিংবা মেরামতে কোনো উদ্যোগ গ্রহণ করছে না।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/20/1566295829507.jpg

 

জানা গেছে, উপজেলার উচাখিলা-রাজিবপুর সড়কের কাশিগঞ্জ মোড় থেকে চরপাড়া বাজার পর্যন্ত প্রায় ৩ কিলোমিটার সড়ক কাঁচা। সড়কটি দিয়ে রাজিবপুর, হাটভোলসোমা, বৃঘাগড়া, ঘাগড়া, দেবস্থান, মমরেজপুর, ভট্টপুর, গাতিপাড়া, রামকৃষ্ণপুর, বৃ-দেবস্থান, বিষ্ণুপুর, চরাকোনা ও চন্দ্রনগর ১৩ গ্রামের প্রায় ৬ হাজার মানুষ চলাচল করে। কিন্তু সড়কের বেহাল দশার কারণে গ্রামবাসীর পাশাপাশি অসুস্থ রোগীকেও সদর হাসপাতালে নিতে বেগ পোহাতে হয়।

সরেজমিন দেখা গেছে, গ্রামের বাসিন্দারা ছাড়াও সড়কটি দিয়ে মমরেজপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পাঠ নিতে যায় এলাকার শিক্ষার্থীরা। কিন্তু পায়ে হেঁটে চলাচল ছাড়া আর কোনো উপায় নেই। সড়ক জুড়ে কাঁদা জলে একাকার থাকায় যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। ক্ষুব্ধগ্রামাবাসী শুক্রবার (১৬ আগস্ট) সড়কে ধানের চারা লাগিয়ে নীরব প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

মমরেজপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী রিমা আক্তার বলেন বৃষ্টি হলে এই সড়ক দিয়ে স্কুলে যেতে পারিনা। অনেক সময় সড়কে পা পিছলে বই-খাতাসহ কাদায় পড়ে যেতে হয়।

রাজিবপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান একে.এম মুদাব্বিরুল ইসলাম বলেন, সড়কটি পাকা করণের ব্যবস্থা করার জন্য স্থানীয় সাংসদের সঙ্গে কথা হয়েছে। আশা রাখি দ্রুত সংস্কার হবে।

বার্তার অফিস ঘুরে গেলেন মেয়র আতিক

বার্তার অফিস ঘুরে গেলেন মেয়র আতিক
বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম’র এডিটর ইন চিফ আলমগীর হোসেন, অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ ও ডিএনসিসি মেয়র আতিকুল ইসলাম

দেশের প্রথম মাল্টিমিডিয়া অনলাইন নিউজপোর্টাল বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-এর অফিস ঘুরে গেলেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম এবং শিক্ষাবিদ ও সাহিত্যিক অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ।

মঙ্গলবার (২০ আগস্ট) দুপুরে হঠাৎ বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমে অফিসে এসে চমকে দেন মেয়র। ডান পায়ে ব্যান্ডেজ নিয়ে দুটি ক্রাচে ভর দিয়ে ঢাকা উত্তরের মেয়রকে অফিস ভবনের লিফটে উঠতে দেখে অবাক হয়ে যান সেখানে উপস্থিত সবাই।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/20/1566293945496.jpg
অফিস ভবনের ৫ম তলায় এডিটর ইন চিফ আলমগীর হোসেনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন মেয়র। প্রায় দেড় ঘণ্টা এডিটর ইন চিফের সঙ্গে বসে গল্প-আড্ডায় নানা প্রসঙ্গ নিয়ে আলাপ করেন তিনি।

এ সময় এডিস মশা প্রসঙ্গও চলে আসে। বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমের এডিটর ইন চিফ আলমগীর হোসেন বলেন, শুধু সিটি কর্পোরেশনকে দায় দিলে চলবে না, আমাদের সবাইকে সচেতন হতে হবে। এক সময় দেখতাম বাড়িতে ধূপ দিত, ধূপ মশার তাড়ানোর জন্য কার্যকরী।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/20/1566293968996.jpg
অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ বলেন, হ্যাঁ, ধূপ খুব কাজের, এখনও প্রতিটি দোকানে সন্ধ্যার পর ধূপ দেয়। তবে এডিস মশা তো দিনে কামড়ায় তাই সবসময় ঘরবাড়ি পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে।

গল্পের এক পর্যায়ে ঢাকা উত্তরের মেয়র বলেন, পত্রিকার দিন শেষ, এখন মানুষ অনলাইনে সংবাদ দেখতে চায়, তাৎক্ষণিকভাবে সংবাদ পেতে চায়। পত্রিকা পড়ার সময় এখন আর অতটা নেই।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/20/1566293989055.jpg
বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-এর অফিস দেখে প্রশংসা করেন মেয়র আতিকুল ইসলাম ও অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ। মেয়র বলেন, খুব পরিচ্ছন্ন গোছানো অফিস। এখানে এসে খুব ভালো লাগলো।

এডিটর ইন চিফ আলমগীর হোসেন মেয়র আতিকুল ইসলাম ও অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদকে বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমের পুরো কার্যালয় ঘুরে দেখান। ভবনের ৬ষ্ঠ তলায় রিপোর্টিং ও নিউজরুম ঘুরে উপস্থিত সংবাদকর্মীদের সঙ্গে কথা বলেন অতিথিরা।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র