Barta24

রোববার, ২১ জুলাই ২০১৯, ৬ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

পায়ে মাড়িয়ে তৈরি হচ্ছে সেমাই, মিশছে শ্রমিকের ঘাম

পায়ে মাড়িয়ে তৈরি হচ্ছে সেমাই, মিশছে শ্রমিকের ঘাম
সেমাই ভাজতে ব্যবহার করা হয় এই পোড়া তেল। ছবি: বার্তা২৪.কম
উপজেলা করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
সাভার


  • Font increase
  • Font Decrease

ঈদকে সামনে রেখে সরব হয়ে উঠেছে অসাধু সেমাই ব্যবসায়ীরা। সারা বছরের তুলনায় ঈদে সেমাইয়ের চাহিদা বাড়ে কয়েকগুণ। আর সেই সেমাইয়ের জোগান দিতেই অসৎ উপায় অবলম্বন করছে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী।

সরেজমিনে সাভার পৌর এলাকার নামা বাজারের খালেক মার্কেটের পেছনে বাবলী ফুড লাচ্ছা সেমাই কারখানায় গিয়ে দেখা যায়, সেমাই তৈরির কাজে তারা নিম্নমানের ডালডা ও পোড়া তেল ব্যবহার করছে। এমনকি স্যাঁতসেঁতে মেঝের উপরে সেমাই তৈরির কাজে ব্যবহৃত ময়দা সংরক্ষণ করা হচ্ছে।

সেই ময়দায় পানি দিয়ে খালি পায়ে মাড়িয়ে খামি তৈরি করছে শ্রমিকরা। কাজের ক্লান্তি ও গরমে খামিতে পা মাড়াতে মাড়াতে বেয়ে পড়ছে শ্রমিকদের শরীরের ঘাম।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/20/1558338178285.jpg

এছাড়া খামির সঙ্গে বিভিন্ন কাপড়ের কৃত্রিম রঙ মেশানো হচ্ছে। আর বাজারজাত করার সময় আকর্ষণীয় প্যাকেটে বিএসটিআইর নকল সিল মারা হচ্ছে।

এ বিষয়ে বাবলী ফুড লাচ্ছা সেমাই কারখানার মালিক বাবুল হোসেন দেওয়ান বলেন, ‘আমার কারখানায় নোংরা পরিবেশে সেমাই তৈরি করা হয় না।’

শুধুমাত্র বাবলী ফুড লাচ্ছা সেমাই কারখানাতেই নয়, এ চিত্র সাভারের অধিকাংশ সেমাই তৈরির কারখানায়।

সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প্রধান কর্মকর্তা আমজাদুল হক জানান, এ সকল নোংরা পরিবেশে তৈরিকৃত সেমাই মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর। এর ফলে গ্যাস্ট্রিক, ডায়রিয়া, আমাশয়, জন্ডিসসহ টাইফয়েডে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

তবে এ সকল অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছেন সাভার উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) পারভেজুর রহমান।

আপনার মতামত লিখুন :

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষণা বৃদ্ধির তাগিদ নওফেলের

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষণা বৃদ্ধির তাগিদ নওফেলের
প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় সমাবর্তন অনুষ্ঠানে শিক্ষাউপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।

দেশের বেরসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর গবেষণা ও উচ্চ শিক্ষার মান বৃদ্ধির লক্ষ্যে সরকারের পাশাপাশি স্ব স্ব বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষকে উদ্যোগী হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন শিক্ষাউপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।

তিনি বলেছেন, বর্তমান প্রেক্ষাপটে দেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে জ্ঞান ও গবেষণার বিষয় নিয়ে ভেবে দেখার সময় এসেছে। অনেক বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি ও এম ফিল ডিগ্রী না থাকলেও গবেষণা ও শিক্ষার সুযোগ সৃষ্টিতে সুনাম অর্জন করেছেন। এ বিষয়টিকে সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়ে সরকার বেরসরকারি খাতের বিনিয়োগ বৃদ্ধি করেছে। এ প্রবৃদ্ধি ধরে রাখতে শিক্ষা কার্যক্রমকে আরও গঠনমুখী ও বিজ্ঞানমুখী করতে হবে।

রোববার (২১ জুলাই) দুপুরে নগরের টাইগারপাস সংলগ্ন নেভি কনভেনশন সেন্টারে প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় সমাবর্তন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

নওফেল বলেন, প্রধানমন্ত্রী বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের একগুঁয়েমি বাণিজ্যিক প্রবণতা দূর করার জন্য ২০০৮ সালে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আইন প্রণয়ন করেন। এর মধ্যে দিয়ে এসব বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে জ্ঞান ও গবেষণার বিষয়ে পর্যালোচনা ও জবাবদিহিতার আওতায় আনা হয়। যদি আইনটি পাশ না হতো তাহলে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাণিজ্যিক মনোভাব দূর করার জন্য হস্তক্ষেপ গ্রহণ করা সম্ভব হতো না। যা একইসাথে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাতিষ্ঠানিক ও পরিচালনায় ট্রাস্টি বোর্ডের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব হয়।

প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান নওফেল বলেন, উন্নত বিশ্বে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে অ্যালামনাই থাকে, তারা গ্রাজুয়েটদের কর্মসংস্থান ও কর্মজীবনে সহায়ক ভূমিকা রাখে। আমি আশা করি এ বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অ্যালামনাই এক্ষেত্রে ভূমিকা রাখবে।

শিক্ষাউপমন্ত্রী গ্রাজুয়েটদের উদ্দেশে বলেন, আপনারা আজ দেশে-বিদেশে ছুটে যাবেন। আপনাদের মাঝে আর্দশিক চিন্তা-চেতনা বিভিন্নতা থাকতে পারে, তবে দেশের স্বার্থে সবাইকে একত্রিত হতে হবে। প্রধানমন্ত্রীর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় উন্নয়নের যে সূচনা সৃষ্টি হয়েছে এতে সংশ্লিষ্ট সবাইকে কাজ করে যেতে হবে।

প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় সমাবর্তন অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি ও প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির চ্যান্সেলরের মনোনীত প্রতিনিধি হিসেবে সভাপতিত্ব করবেন ইউজিসির চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. কাজী শহীদুল্লাহ। সমাবর্তন বক্তা হিসেবে ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির প্রতিষ্ঠতা উপাচার্য ও বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর অধ্যাপক ড. ফরাসউদ্দীন বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন শিক্ষায় একুশে প্রদকপ্রাপ্ত ও প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. অনুপম সেন।

বেতন কর্তনের প্রতিবাদে শিক্ষকদের সংবাদ সম্মেলন

বেতন কর্তনের প্রতিবাদে শিক্ষকদের সংবাদ সম্মেলন
সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতির নেতারা/ ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন থেকে অবসর সুবিধা বোর্ড ও কল্যাণ ট্রাস্টের জন্য ১০ শতাংশ কর্তন আদেশের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি (বিটিএ)। 

রোববার (২১ এপ্রিল) বেলা সাড়ে ১২টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের আকরাম খাঁ হলে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বিটিএ’র সভাপতি অধ্যাপক মোঃ বজলুর রহমান মিয়া।।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘শিক্ষক সংগঠনসমূহের প্রতিনিধিদের সাথে কোনোরূপ আলোচলা ছাড়াই অতিরিক্ত ৪ শতাংশসহ মোট ১০ শতাংশ কর্তনের জন্য মহাপরিচালক মাধ্যমিক উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরকে লিখিত আদেশ দেন। এ আদেশের ফলে সারা দেশের শিক্ষক কর্মচারীগণ অত্যন্ত মর্মাহত ও বিক্ষুদ্ধ।’

তিনি বলেন, ‘জাতীয়করণের লক্ষ্যে আগামী ঈদুল আযহার পূর্বেই সহকারি শিক্ষক কর্মচারীদের ন্যায় বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীদের উৎসব ভাতা ও বাড়ি ভাড়া প্রদান এবং অবসর সুবিধা বোর্ড কল্যাণ ও ট্রাস্টের জন্য ১০ শতাংশ কর্তনের আদেশসহ প্রজ্ঞাপনটি বাতিল করতে হবে।’

এরপরও যদি শিক্ষক-কর্মচারীদের ন্যায্য দাবি না মানা হয় এবং শিক্ষক কর্মচারীদের বেতন থেকে ১০ শতাংশ কর্তন করা হয়, তবে সারা দেশে হতাশ ও বিক্ষুব্ধ শিক্ষক কর্মচারীগণ অবিরাম ধর্মঘট, আমরণ অনশনসহ কল্যাণ ট্রাস্ট ও অবসর সুবিধা বোর্ড ঘেরাও কর্মসূচি পালন করতে বাধ্য হবে বলে জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কাওছার আলি শেখ, সংগঠনের প্রধান উপদেষ্টা মোঃ আবু বক্কর সিদ্দিক, উপদেষ্টামণ্ডলীর অন্যতম সদস্য বাবু রঞ্জিত কুমার সাহা, সিনিয়র সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ মোঃ আবুল কাশেম প্রমুখ।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র