রেললাইনের পাশ থেকে সাংবাদিকের মরদেহ উদ্ধার

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ময়মনসিংহ
এহসান ইবনে রেজা ফাগুন, ছবি: সংগৃহীত

এহসান ইবনে রেজা ফাগুন, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

জামালপুরে রেললাইনের পাশ থেকে এহসান ইবনে রেজা ফাগুন (২০) নামে এক সাংবাদিকের মরদেহ উদ্ধার করেছে রেলওয়ে থানা পুলিশ। নিহত ফাগুন অনলাইন নিউজ পোর্টাল প্রিয়.কমে সাব এডিটর হিসেবে কাজ করতেন।

এছাড়াও তিনি এনটিভির শেরপুর প্রতিনিধি কাকন রেজার ছেলে ও তিতুমীর কলেজে টুরিজম এন্ড হোটেল ম্যানেজমেন্টে ১ম বর্ষের ২য় সেমিস্টারের শিক্ষার্থী ছিলেন।

মঙ্গলবার (২১ মে) রাতে জামালপুর-নান্দিনা রেলস্টেশনের মাঝামাঝি কালিবাড়ী মধ্যপাড়া এলাকা থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

বুধবার (২২ মে) বিকেলে নিহতের ছবি দেখে মরদেহ সনাক্ত করেন তার বাবা কাকন রেজা।

জামালপুর রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তাপস চন্দ্র পন্ডিত জানান, মঙ্গলবার রাতে মধ্যপাড়া এলাকায় রেললাইনের পাশে মরদেহটি পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী পুলিশকে খবর দেয়। খবর পেয়ে রেলওয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জামালপুর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

তবে পরিচয় না পাওয়ায় ময়নাতদন্ত শেষে বুধবার দাফনের জন্য আঞ্জুমান মফিদুলের কাছে হস্তান্তর করা হয়। আঞ্জুমান মফিদুল ইসলাম কর্তৃপক্ষ মরদেহের কফিন তৈরি করে জানাজা ও দাফনের প্রস্তুতি নিচ্ছিল। এরই মধ্যে বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে মরদেহটি সম্পর্কে জানতে চাইলে জিআরপি পুলিশের পক্ষ থেকে নিহতের বাবা কাকন রেজার কাছে ছবি পাঠানো হয়। ওই ছবি দেখে কাকন রেজা মরদেহটি তার ছেলের বলে শনাক্ত করেন। পরে অজ্ঞাত পরিচয়ে ফাগুনের মরদেহ দাফন স্থগিত করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

নিহতের বাবা কাকন রেজা বলেন, ‘এহসান ইবনে রেজা ফাগুন মঙ্গলবার ঢাকা থেকে শেরপুর বাড়িতে ফিরছিল। ময়মনসিংহ আসার আগেও তার সাথে আমার কথা হয়েছে। কিন্তু রাতে ফিরে না আসায় বিভিন্ন জায়গায় ছেলের খোঁজ করছিলাম। সকালে তার খোঁজে ময়মনসিংহে যাই। এক পর্যায়ে জামালপুর রেলওয়ে থানার পুলিশ আমার কাছে ছবি পাঠালে তা দেখে নিশ্চিত হই যে এটি আমার ছেলে ফাগুনেরই মরদেহ।’

আপনার মতামত লিখুন :