Barta24

রোববার, ১৮ আগস্ট ২০১৯, ৩ ভাদ্র ১৪২৬

English

ডেঙ্গু-চিকুনগুনিয়ার চেয়ে ভয়ংকর জিকা জ্বর

ডেঙ্গু-চিকুনগুনিয়ার চেয়ে ভয়ংকর জিকা জ্বর
স্বাস্থ্য অধিদফতরের ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া বিষয়ক অবহিতকরণ সভা/ ছবি: বার্তা২৪.কম
সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
ঢাকা


  • Font increase
  • Font Decrease

ডেঙ্গু-চিকুনগুনিয়ার মত এডিশ মশার কামড়ে নতুন জিকা জ্বরের আর্বিভাব নিয়ে চিন্তিত স্বাস্থ্য অধিদফতর। পাশ্ববর্তী দেশে এই জ্বরের প্রকোপ বাড়ায় বাংলাদেশ শঙ্কিত বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের কর্মকর্তা ডা. খাদিজা সুলতানা।

বৃহস্পতিবার (২৩ মে) রাজধানীর পশ্চিম তেজকুনী পাড়ার আব্দুল হালিম কমিউটিনি সেন্টারে ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া বিষয়ক অবহিতকরণ সভায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপনকালে তিনি এসব কথা বলেন।

তবে এ নিয়ে আতঙ্কিত না হয়ে নগরবাসীকে সচেতন থাকার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘জিকা জ্বর ডেঙ্গুর চেয়েও ভয়ংকর। কিন্তু এ নিয়ে ভয় পাওয়ার কিছু নেই। জ্বর হলে আতঙ্কিত না হয়ে পরীক্ষা করে নিন। আমাদের সবগুলো সরকারি হাসপাতালে ডেঙ্গু শনাক্তের কীট সরবরাহ করা হয়েছে, পরীক্ষা করে চিকিৎসা নিলে ঝুঁকি কম হবে। তবে সবার আগে প্রয়োজন অফিস, বাসাসহ সর্বস্থলে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা। এডিশ মশার উৎপত্তিস্থল ধ্বংস করতে পারলেই এই রোগ থেকে মুক্তি মিলবে।’

এডিস মশার কামড়ে ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া রোগ বিস্তার লাভ করছে। সর্বশেষ ২০১৮ সালে ডেঙ্গু জ্বরে ২৬ জনের মৃত্যু হয়। চলতি বছর এখনো পর্যন্ত এক জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/23/1558614889716.jpg

সর্বশেষ জরিপ অনুযায়ী গত ১৩ মে পর্যন্ত দেশে ১২৮ জন ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়েছে। তার মধ্যে একজনের মৃত্যু হয়েছে। সাধারণত মে-জুন ও সেপ্টম্বর-অক্টোবর সময়কে ডেঙ্গুর মৌসুম হিসেবে ধরলেও এ বছর আগে থেকেই প্রকোপটা বাড়ছে।

চলতি বছরের জানুয়ারিতে ৩৬ জন, ফেব্রুয়ারিতে ১৮ জন, মার্চে ১৩ জন, এপ্রিলে ৩৬ জন ও মে’র ১৩ তারিখ পর্যন্ত ২৫ জন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়েছে। গত বছর সারাদেশে ১০ হাজার ১৪৮ জন মানুষ ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছিল।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের এক জরিপে দেখো গেছে, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন এলাকায় এডিশ মশার লার্ভার ঘনত্ব সর্বোচ্চ ৪০ শতাংশ। অন্য দিকে দক্ষিণ সিটি করপোরেশন এলাকায় এই লার্ভার ঘনত্ব ৮০ শতাংশ। অর্থাৎ ডিএনসিসি’র চাইতে ডিএসসিসি’র বাসিন্দারা বেশি ঝুঁকিতে।

ডিএনসিসি’র অঞ্চল-৫ এর আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা মীর নাহিদ আহসানের সভাপতিত্বে অবহিতকরণ সভায় উপস্থিত ছিলেন, ডিএনসিসি’র সহকারী স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. ইমদাদুল হক, ডিএনসিসি’র জোন-৫ এর সহকারী স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. ফিরোজ আলম প্রমুখ।

আপনার মতামত লিখুন :

ময়মনসিংহে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২

ময়মনসিংহে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২
ময়মনসিংহে সড়ক দুর্ঘটনা, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

ময়মনসিংহের ফুলপুর উপজেলায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় এক নারীসহ দুইজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ছয়জন। নিহতরা হলেন সায়েম (১৫) ও রেজিয়া (৫০)

রোববার (১৮ আগস্ট) বিকেলে ফুলপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইমারত হোসেন গাজী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, বিকেল ৪টায় ময়মনসিংহ-শেরপুর মহাসড়কে ফুলপুর উপজেলার হোসেনপুর মোড়ল বাড়ি এলাকায় ঢাকা-শেরপুরগামী সোনার বাংলা পরিবহণের একটি বাসের সঙ্গে নালিতাবাড়ি-ফুলপুরগামী একটি সিএনজি চালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

এতে ঘটনাস্থলেই সায়েম নামে ওই কিশোর নিহত হয়। এসময় আহত হন সায়েমের বাবা-মা ও বোনসহ ৫ জন। পরে আহতদের উদ্ধার করে ফুলপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

এদিকে, সকালে ১১টায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে ফুলপুর থেকে ঢাকাগামী একটি মাইক্রোবাসের চাকা পাংচার হয়ে গেলে গাড়িটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে এক রিকশাকে চাপা দেয়। এতে রিকশার চালক ও যাত্রী গুরতর আহত হন।  তাদেরকে উদ্ধার করে প্রথমে ফুলপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুপুর ১২ টার দিকে রিকশার যাত্রী রেজিয়ার মৃত্যু হয়।

আগস্টের শোককে শক্তিতে রূপান্তর করতে হবে: ভূমিমন্ত্রী

আগস্টের শোককে শক্তিতে রূপান্তর করতে হবে: ভূমিমন্ত্রী
সভা ও দোয়া মাহফিলে বক্তব্য দেন ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

আগস্টের শোককে শক্তিতে রূপান্তর করতে হবে বলে জানিয়েছেন ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী।

তিনি বলেছেন, ‘জাতির পিতার আদর্শকে আমাদের বুকে ধারণ করতে হবে। তার যে স্বপ্ন- ক্ষুদামুক্ত, দারিদ্রমুক্ত, দুর্নীতিমুক্ত অসাম্প্রদায়িক সোনার বাংলা গড়ে তুলতে আমাদের সবার একসাথে কাজ করতে হবে।’

রোববার (১৮ আগস্ট) দুপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ভূমি মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশ একটি দীর্ঘ আন্দোলনের ফসল, যার নেতৃত্বে ছিলেন বঙ্গবন্ধু। তিনি তাঁর সারা জীবন আমাদের অধিকার আদায়ের লড়াইয়ে উৎসর্গ করেছেন। স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধু স্বাধীন বাংলাদেশের দায়িত্ব নেওয়ার সময় এ দেশ সম্পূর্ণরূপে বিধ্বস্ত ছিল। এমনকি ওই সময় বিদেশি অনেকেই বাংলাদেশকে তুচ্ছতাচ্ছিল্য করত, বলত- এ দেশ টিকবে না। সেই দেশ এখন আজ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ।’

তিনি আরও বলেন, ‘২০০৯ সাল হতে প্রধানমন্ত্রীর বলিষ্ঠ নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের মহাসড়কে চলছে। এ তিন মেয়াদে বাংলাদেশের যে আমূল পরিবর্তন হয়েছে তা অবিশ্বাস্য। সকল পর্যায়ে মৌলিক চাহিদা পূরণ করে সফলতা অর্জন করার সাথে সাথে, সামগ্রিক অর্থনীতিতে উন্নয়নের ধারা বজায় রাখার জন্য বিশ্বে বাংলাদেশ আজ একটি রোল মডেলে পরিণত হয়েছে। বাংলাদেশ ইতোমধ্যে ৭ দশমিক ৯ শতাংশ অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে।’

ভূমী মন্ত্রণালয়ের গণমুখী কাজের কথা উল্লেখ করতে গিয়ে মন্ত্রী গুচ্ছগ্রাম ও ভূমিহীনদের জমি প্রদানের বিষয়গুলো উল্লেখ করেন।

ভূমি মন্ত্রণালয়ে কর্মরতদের প্রতি মন্ত্রী দুর্নীতিমুক্ত জনসেবা প্রদানের আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ‘দুর্নীতির কারণে আমাদের প্রবৃদ্ধি আমাদের প্রাপ্য থেকে অনেক কম হচ্ছে। দুর্নীতিমুক্ত জনসেবা প্রদান দেশকে ভালোবাসার নামান্তর।’

আলোচনা অনুষ্ঠানের সভাপতি ভূমি সচিব মো. মাকছুদুর রহমান পাটওয়ারী বলেন, ‘সরকারি কর্মচারী হিসেবে সেবা করাই আমাদের ধর্ম। স্বাধীনতার চেতনা ও জাতির পিতার চেতনা কেবল আনুষ্ঠানিকতার মধ্যে থাকলে হবে না। সারা বছর আমাদের কাজের মধ্যে তা প্রমাণ করতে হবে।’

আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন ভূমি আপিল বোর্ডের চেয়ারম্যান মো. আবদুল হান্নান, ভূমি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব আনিস মাহমুদ, আতাউর রহমান ও সিরাজ উদ্দিন এবং প্রশাসনিক কর্মকর্তা মো. হযরত আলী।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র