Barta24

বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯, ৭ ভাদ্র ১৪২৬

English

খুলনায় ৩৮ লাখ টাকাসহ ৩ প্রতারক গ্রেফতার

খুলনায় ৩৮ লাখ টাকাসহ ৩ প্রতারক গ্রেফতার
গ্রেফতারকৃত তিন প্রতারক / ছবি: বার্তা২৪
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
খুলনা


  • Font increase
  • Font Decrease

খুলনায় ব্যবসায় বিনিয়োগকৃত ৪৩ লাখ টাকা প্রতারণার মাধ্যমে আত্মসাতের অভিযোগে তিন প্রতারককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এ সময় আত্মসাৎকৃত ৩৭ লাখ ৭৫ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়েছে।

রোববার (২ মে) খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ (কেএমপি) বার্তা২৪.কমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

পুলিশ জানায়, কয়েকজন প্রতারক পরস্পর যোগসাজসে নগরীর লবণচরার মোহাম্মদনগর বাইতুল মেরাজ জামে মসজিদের ডান পাশের (নওয়াব আলীর বাড়ির ভাড়াটিয়া) হাফেজ মো. সাহাবউদ্দীনের ব্যবসায় বিনিয়োগকৃত ৪৩ লাখ টাকা আত্মসাৎ করে। এ ঘটনায় সাহাবউদ্দীন গত ২৩ মে বাদী হয়ে লবণচরা থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলায় মোহাম্মদনগর এলাকার মোহাম্মদ আয়রন স্টোর (শাহিনের বাড়ীর ভাড়াটিয়া) মৃত আনোয়ার হোসেন মোড়লের ছেলে মো. রুবেল হোসেন (৩৮), জাহিদুর রহমান সড়ক ক্রস রোড এলাকার আব্দুল খালেক শেখের ছেলে মো. আতিকুর রহমান টনি (২৯) ও রুবেল হোসেনের স্ত্রী অনন্যা ইসলামকে (২৬) আসামি করা হয়।

এদিকে, লবণচরা থানা পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার (১ জুন) অভিযান চালিয়ে নীলফামারী জেলার সৈয়দপুর শহরের একটি হোটেল থেকে আসামি মো. রুবেল হোসেনকে গ্রেফতার করে। তার কাছ থেকে ৬ লাখ ৭৫ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়। পরে তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী তার ভাইয়ের ছেলে সাইফুল ইসলাম অভিকে মুন্সিগঞ্জ জেলার লৌহজং থানার দক্ষিণ হলুদিয়া গ্রাম থেকে গ্রেফতার করা হয়। তার কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় আরও ৩১ লাখ টাকা। পরবর্তীতে লবণচরা থানা এলাকা থেকে মামলার অপর আসামি মো. আতিকুর রহমান টনিকেও গ্রেফতার করা হয়।

কেএমপির অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (মিডিয়া অ্যান্ড পিআর) শেখ মনিরুজ্জামান মিঠু বার্তা২৪.কমকে বলেন, ‘লবণচরা থানা পুলিশ আত্মসাৎকৃত ৪৩ লাখ টাকার মধ্যে ৩৭ লাখ ৭৫ হাজার টাকা উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে। বাকি টাকাও উদ্ধারের অভিযান অব্যাহত আছে।’

আপনার মতামত লিখুন :

খুলনায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় আসামির মৃত্যু

খুলনায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় আসামির মৃত্যু
খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, ছবি: সংগৃহীত

খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালের প্রিজন সেলে চিকিৎসাধীন শামসু মল্লিক (৭৫) নামের এক আসামি মারা গেছেন।

বৃহস্পতিবার (২২ আগস্ট) দুপুরের দিকে তিনি মারা যান। শামসু মল্লিক নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের একটি মামলার আসামি ছিলেন। সে রূপসার কাশেম মল্লিকের ছেলে।

ওই আসামি গত কয়েকদিন ধরেই জ্বরে আক্রান্ত ছিলেন বলে জানান খুলনার জেলার মো. জান্নাত উল ফরহাদ।

তিনি বলেন, 'জ্বরে আক্রান্ত হয়ে গত ১৯ আগস্ট থেকে তিনি জেলা কারাগারের হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। সেখানেই তিনি মারা যান।'

খুলনা জেলার রূপসা থানায় দায়ের হওয়া নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের একটি মামলায় তিনি আসামি ছিলেন। রূপসা থানার মামলা নং-১০ (৬) ১৯ জিআর -১৮৮/১৯।

উক্ত ব্যক্তির মরদেহ ময়না তদন্ত শেষে জেলা কারাগার কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানা যায়।

ইউনিমার্ট ও বেঙ্গল ব্লুবেরি হোটেলকে জরিমানা

ইউনিমার্ট ও বেঙ্গল ব্লুবেরি হোটেলকে জরিমানা
ইউনিমার্টে মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ, উত্তর সিটি করপোরেশনের অভিযান/ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ রাখার দায়ে ইউনিমার্টকে জরিমানা করেছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন। অন্যদিকে নিরাপদ খাদ্য আইন ভঙ্গ করায় বেঙ্গল ব্লুবেরি হোটেলকেও জরিমানা করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২২ আগস্ট) রাতে ডিএনসিসি’র নগর ভবনের নিচের ইউনিমার্ট ও বেঙ্গল ব্লুবেরিকে জরিমানা করা হয়। ডিএনসিসি’র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাজিদ আনোয়ার ও আব্দুল হামিদ মিয়া পৃথক দু’টি অভিযানে এই জরিমানা আদায় করে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/22/1566487047787.jpg

ইউনিমার্টের অপরাধ তাদের ফার্মেসিতে মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ ৪ ডিগ্রির নিচে তাপমাত্রায় তরল দুধ না রাখায় নিরাপদ খাদ্য আইন ২০১৩ এর ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনের ৩৫, ৫১ ও ৫২ ধারা ভঙ্গ করেছে। এই অপরাধে প্রতিষ্ঠানটিকে ৫ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/22/1566486844667.jpg

এ বিষয়ে ইউনিমার্টের এক্সিকিউটিভ কোয়ালিটি কন্ট্রোল ওয়াকিল আহমেদ বলেন, আমরা যে ফ্রিজ ব্যবহার করছি সেটা নির্দিষ্ট সময় যাওয়ার পর ডিফ্রস্ট হয়।  ডিফ্রস্ট হলে তাপমাত্রা ছেড়ে দেয়, তখন দেখা যায় তাপমাত্রা কিছুটা হেরফের হয়। আর মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ একটা উপায়ে সংগ্রহ করে ফেরত দিতে হয় সেটা করতে গিয়ে ভুলবশত এটা হয়েছে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/22/1566487065559.jpg

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবদুল হামিদ মিয়া বলেন, তরল দুধ ৪ ডিগ্রি তাপমাত্রা নিচে রাখার কথা সেটি রাখা হয়নি। যা একটি অপরাধ। নিরাপদ খাদ্য আইন ২০১৩ এবং ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনের ৩৫, ৫১ এবং ৫২ ধারায় তাদের ৫ লাখ টাকা জরিমানা এবং অনাদায়ে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড। আর মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ ধ্বংস করা হবে। এছাড়া পরবর্তিতে আবারও মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ পেলে তাদের লাইসেন্স বাতিল করা হবে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/22/1566486900316.jpg

বেঙ্গল ব্লুবেরি হোটেলের জরিমানার বিষয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাজিদ আনোয়ার বলেন, তাদের ফ্রিজে কন্টামিনেশন হয়েছে, তার মানে হচ্ছে একই ফ্রিজে এক সঙ্গে মাছ, মাংস, সবজিসহ বিভিন্ন জিনিস রয়েছে। তাছাড়া ফ্রিজে কোনও খাদ্য পণ্য রাখলে তার গায়ে মেয়াদ উত্তীর্ণের তারিখ লিখে রাখতে হয় যেটা তারা করেনি। এজন্য গুলশান ৯০ নম্বর রোডে বেঙ্গল ব্লুবেরি হোটেলকে ৭ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র