আড়ং বন্ধ করা উপপরিচালক মনজুরকে বদলি



সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

উত্তরা আড়ংয়ের আউটলেট সাময়িকভাবে বন্ধ করা  জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের সাহসী উপ-পরিচালক মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ারকে বদলি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

সোমবার (৩ জুন) তাকে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর থেকে সরিয়ে খুলনা জোনের সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের এস্টেট ও আইন কর্মকর্তা হিসেবে বদলি করা হয়েছে।

জনপ্রশাসন শাখার উপসচিব মোহাম্মদ আব্দুল লতিফ স্বাক্ষরিত এক নির্দেশনায় এ নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এতে বলা হয়, আগামী ১৩ জুনের মধ্যে বদলিকৃত কর্মস্থলে যোগদানের জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। অন্যথায় বর্তমান কর্মস্থল থেকে তাৎক্ষণিকভাবে অবমুক্ত মর্মে গণ্য করা হইবে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/04/1559596444303.jpg

সোমবার (৩ জুন) দুপুরে এক গ্রাহকের অভিযোগের ভিত্তিতে উত্তরা জসীমউদ্দিন রোডস্থ আড়ংয়ের আউটলেটটি সাময়িকভাবে বন্ধের ঘোষণা এবং প্রতিষ্ঠানটিকে সাড়ে ৪ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

ভোক্তা অধিদফতরের ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ারের সার্বিক তত্ত্বাবধানে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করেন সহকারী পরিচালক মো. আব্দুল জব্বার মণ্ডল।

গ্রাহকের অভিযোগ ছিল- ২৫ মে আড়ংয়ের উক্ত আউটলেট থেকে একটি পাঞ্জাবি ৭০০ টাকায় ক্রয় করা হয়। কিন্তু ৩১ মে সেই পাঞ্জাবি ওই আউটলেটে ১৩০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এই অভিযোগের ভিত্তিতে এ জরিমানা করা হয়েছে।

মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার বার্তা২৪.কমকে জানান, গত ২৫ মে এক ক্রেতা উত্তরা আড়ং আউটলেট থেকে একটি পাঞ্জাবি কেনেন ৭১৩ টাকায়। একই পাঞ্জাবি ৩১ মে কিনতে গেলে দাম রাখা হয় এক হাজার ৩১৫ টাকা। ভোক্তা অধিদফতরে এমন অভিযোগ করেন এক ভোক্তা।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/04/1559596486949.jpg

তিনি জানান, এর পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার উত্তরা আড়ংয়ে অভিযান চালিয়ে এর সত্যতা পায় অধিদফতর। আড়ং অভিনব কায়দায় বেশি দাম লিখে ভোক্তাদের ঠকাচ্ছে। কী অবাক করা বিষয়, ছয়দিনে একটি পাঞ্জাবির দাম বেড়েছে ৬০০ টাকা। যার কোনো কারণ জানাতে পারেনি আড়ংয়ের শোরুমের কর্মকর্তারা।'

তিনি আরও জানান, আড়ং একটি ব্র্যান্ড। দেশি ভালো পণ্য বিক্রি করে বলে তাদের প্রতি ক্রেতাদের রয়েছে আস্থা ও সরল বিশ্বাস। এটি পুঁজি করে কৌশলে ক্রেতাদের ঠকাচ্ছে, যা ভোক্তা আইন পরিপন্থী। এ অপরাধে তাদের সাড়ে চার লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। একই সঙ্গে প্রতিষ্ঠানটি সাময়িক বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। দাম বাড়ানোর যৌক্তিক কারণ ব্যাখ্যা করতে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ অধিদফতরে ডাকা হয়েছে। তারা যৌক্তিক কোনো ব্যাখ্যা দিতে না পারলে প্রতিষ্ঠানটি স্থায়ীভাবে বন্ধ করে দেয়া হবে।

কিন্তু সাময়িক বন্ধ ঘোষণার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই অর্থাৎ রাত ৮টায় ম্যাজিস্ট্রেট মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ারের উপস্থিতিতে আবারো খুলে দেয়া হয় উত্তরার আড়ংয়ের আউটলেট।

আরও পড়ুন:উত্তরা আড়ংকে ৪ লাখ টাকা জরিমানা, সাময়িক বন্ধ ঘোষণা