Barta24

বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯, ৭ ভাদ্র ১৪২৬

English

রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডে সচিবসহ ৫ পদে নিয়োগে নিষেধাজ্ঞা

রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডে সচিবসহ ৫ পদে নিয়োগে নিষেধাজ্ঞা
রাজশাহী শিক্ষাবোর্ড / ছবি: বার্তা২৪
স্টাফ করেসপন্ডেট
বার্তা২৪.কম
রাজশাহী


  • Font increase
  • Font Decrease

রাজশাহী মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের সচিবসহ পাঁচটি পদে প্রেষণে নিয়োগ বা পদায়নের ওপর অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন আদালত।

রোববার (৯ জুন) এ সংক্রান্ত একটি আদেশ বোর্ডের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদের কাছে পৌঁছেছে। যা গত ২৬ মে শুনানি শেষে ইস্যু আদেশ দেন আদালত।

নিয়োগ বা পদায়নের নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা অন্য চারটি পদ হলো- পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক, কলেজ পরিদর্শক, উপ-পরিচালক (হিসাব ও নিরীক্ষা) এবং বিদ্যালয় পরিদর্শক। মামলার চূড়ান্ত নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত এসব পদে প্রেষণে পদায়ন করা যাবে না।

জানা গেছে, শিক্ষা বোর্ডের এই পাঁচ কর্মকর্তার পদের নিয়োগ ও পদায়নের বৈধ্যতা চ্যালেঞ্জ করে গত বছরের ২৯ নভেম্বর রাজশাহীর সদর সিনিয়র সহকারি জজ আদালতে আইনজীবী আবু আসলাম একটি মামলা করেন। গত ২৬ মে মামলার শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। শুনানি শেষে আদালত অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞার আদেশ দেন।

বাদীপক্ষের আইনজীবী লোকমান আলী জানান, আদালতের আদেশে মূল মোকদ্দমা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত এই পাঁচ কর্মকর্তার পদে প্রেষণে নিয়োগ বা পদায়ন না করার জন্য মামলার বিবাদী শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব ও রাজশাহী বোর্ডের চেয়ারম্যানের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।

মামলার বাদীর আরজিতে বলা হয়েছিল, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধ্যাদেশে-১৯৬১ মোতাবেক মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড একটি স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান। অধ্যাদেশ মতে, রাজশাহী বোর্ডের সচিব, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক, কলেজ পরিদর্শক, উপ-পরিচালক ও বিদ্যালয় পরিদর্শক পদে শিক্ষাবোর্ডের নিজস্ব পদ।

যা নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক নিয়োগ হবে। কিন্তু অজ্ঞাত কারণে দীর্ঘ দিন ধরেই বিভিন্ন কলেজের শিক্ষকদেরকে প্রেষণে বদলির মাধ্যমে ওই পাঁচ পদে পদায়ন করা হয়েছে। যা অধ্যাদেশের লঙ্ঘন এবং আইন পরিপন্থী।

জানতে চাইলে রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘আদালতের আদেশের কপি পেয়েছি। আইনি প্রক্রিয়ায় বিষয়টির সমাধান করা হবে।’

আপনার মতামত লিখুন :

খুলনায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় আসামির মৃত্যু

খুলনায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় আসামির মৃত্যু
খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, ছবি: সংগৃহীত

খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালের প্রিজন সেলে চিকিৎসাধীন শামসু মল্লিক (৭৫) নামের এক আসামি মারা গেছেন।

বৃহস্পতিবার (২২ আগস্ট) দুপুরের দিকে তিনি মারা যান। শামসু মল্লিক নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের একটি মামলার আসামি ছিলেন। সে রূপসার কাশেম মল্লিকের ছেলে।

ওই আসামি গত কয়েকদিন ধরেই জ্বরে আক্রান্ত ছিলেন বলে জানান খুলনার জেলার মো. জান্নাত উল ফরহাদ।

তিনি বলেন, 'জ্বরে আক্রান্ত হয়ে গত ১৯ আগস্ট থেকে তিনি জেলা কারাগারের হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। সেখানেই তিনি মারা যান।'

খুলনা জেলার রূপসা থানায় দায়ের হওয়া নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের একটি মামলায় তিনি আসামি ছিলেন। রূপসা থানার মামলা নং-১০ (৬) ১৯ জিআর -১৮৮/১৯।

উক্ত ব্যক্তির মরদেহ ময়না তদন্ত শেষে জেলা কারাগার কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানা যায়।

ইউনিমার্ট ও বেঙ্গল ব্লুবেরি হোটেলকে জরিমানা

ইউনিমার্ট ও বেঙ্গল ব্লুবেরি হোটেলকে জরিমানা
ইউনিমার্টে মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ, উত্তর সিটি করপোরেশনের অভিযান/ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ রাখার দায়ে ইউনিমার্টকে জরিমানা করেছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন। অন্যদিকে নিরাপদ খাদ্য আইন ভঙ্গ করায় বেঙ্গল ব্লুবেরি হোটেলকেও জরিমানা করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২২ আগস্ট) রাতে ডিএনসিসি’র নগর ভবনের নিচের ইউনিমার্ট ও বেঙ্গল ব্লুবেরিকে জরিমানা করা হয়। ডিএনসিসি’র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাজিদ আনোয়ার ও আব্দুল হামিদ মিয়া পৃথক দু’টি অভিযানে এই জরিমানা আদায় করে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/22/1566487047787.jpg

ইউনিমার্টের অপরাধ তাদের ফার্মেসিতে মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ ৪ ডিগ্রির নিচে তাপমাত্রায় তরল দুধ না রাখায় নিরাপদ খাদ্য আইন ২০১৩ এর ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনের ৩৫, ৫১ ও ৫২ ধারা ভঙ্গ করেছে। এই অপরাধে প্রতিষ্ঠানটিকে ৫ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/22/1566486844667.jpg

এ বিষয়ে ইউনিমার্টের এক্সিকিউটিভ কোয়ালিটি কন্ট্রোল ওয়াকিল আহমেদ বলেন, আমরা যে ফ্রিজ ব্যবহার করছি সেটা নির্দিষ্ট সময় যাওয়ার পর ডিফ্রস্ট হয়।  ডিফ্রস্ট হলে তাপমাত্রা ছেড়ে দেয়, তখন দেখা যায় তাপমাত্রা কিছুটা হেরফের হয়। আর মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ একটা উপায়ে সংগ্রহ করে ফেরত দিতে হয় সেটা করতে গিয়ে ভুলবশত এটা হয়েছে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/22/1566487065559.jpg

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবদুল হামিদ মিয়া বলেন, তরল দুধ ৪ ডিগ্রি তাপমাত্রা নিচে রাখার কথা সেটি রাখা হয়নি। যা একটি অপরাধ। নিরাপদ খাদ্য আইন ২০১৩ এবং ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনের ৩৫, ৫১ এবং ৫২ ধারায় তাদের ৫ লাখ টাকা জরিমানা এবং অনাদায়ে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড। আর মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ ধ্বংস করা হবে। এছাড়া পরবর্তিতে আবারও মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ পেলে তাদের লাইসেন্স বাতিল করা হবে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/22/1566486900316.jpg

বেঙ্গল ব্লুবেরি হোটেলের জরিমানার বিষয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাজিদ আনোয়ার বলেন, তাদের ফ্রিজে কন্টামিনেশন হয়েছে, তার মানে হচ্ছে একই ফ্রিজে এক সঙ্গে মাছ, মাংস, সবজিসহ বিভিন্ন জিনিস রয়েছে। তাছাড়া ফ্রিজে কোনও খাদ্য পণ্য রাখলে তার গায়ে মেয়াদ উত্তীর্ণের তারিখ লিখে রাখতে হয় যেটা তারা করেনি। এজন্য গুলশান ৯০ নম্বর রোডে বেঙ্গল ব্লুবেরি হোটেলকে ৭ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র