Barta24

বুধবার, ২৬ জুন ২০১৯, ১২ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

গোলাপী বেগম জীবিত, দাফন করা লাশটি কার?

গোলাপী বেগম জীবিত, দাফন করা লাশটি কার?
গোলাপী বেগম। ছবি: বার্তা২৪.কম
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
রাজশাহী


  • Font increase
  • Font Decrease

রাজশাহীর বাঘা উপজেলার চকবাউসা গ্রামের ভুট্টা ক্ষেত থেকে সোমবার (১০ জুন) এক নারীর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ওই নারীর মুখে পোড়া মবিল মাখিয়ে দেওয়ায় তার পরিচয় শনাক্ত করতে ঝামেলা হয়। তবে পরদিন মঙ্গলবার (১১ জুন) পরিচয় মেলে মৃত নারীর। উপজেলার আড়ানী পৌরসভার পাঁচপাড়া গ্রামের বাকপ্রতিবন্ধী মনির হোসেন দাবি করেন- উদ্ধারকৃত লাশটি তার স্ত্রীর।

পরিবারের অন্য সদস্য এবং স্থানীয়রাও একই দাবি করার পর পুলিশ লাশটি মনির হোসেনের স্ত্রী হিসেবে ময়নাতদন্ত শেষে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করে। পরে মঙ্গলবার (১১ জুন) সন্ধ্যার দিকে পারিবারিক কবরস্থানে লাশটি দাফনও করা হয়।

তবে বুধবার (১২ জুন) সকাল ১০টার দিকে আড়ানী স্টেশনে বসে থাকতে দেখা যায় মৃত ভেবে দাফন করা গোলাপী বেগমকে। স্থানীয় কয়েকজন তাকে সেখান থেকে ইউনিয়ন পরিষদে নিয়ে যায়। সেখানে ডাকা হয় গোলাপী বেগমের মামা শাকিব হোসেন, শাশুড়ি মরিয়ম বেগম, ভাশুর মাজদার রহমান, জা সাজেদা বেগমকে। তারা সকলেই গোলাপীকে ‘আসল গোলাপী’ হিসেবে চিহ্নিত করেন।

এদিকে, বিষয়টি জানাজানি হলে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। স্থানীয় মানুষ ইউনিয়ন পরিষদে ভিড় করতে শুরু করেন। পরে পুলিশ গোলাপী বেগমকে থানায় নিয়ে যায়। সেখানে জাতীয় পরিচয়পত্রসহ অন্যান্য বিষয়ও যাচাই-বাছাই শেষে তাকে আসল গোলাপী বেগম হিসেবে বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়া হয়।

গোলাপী বেগম বলেন, ‘ঈদের আগে বুধবার (২৯ মে) আমি হাটে গরু বিক্রি করে ৪২ হাজার টাকা পেয়েছিলাম। সেই টাকা শ্বশুরবাড়ির লোকজন জোর করে নেওয়ার জন্য চাপ সৃষ্টি করেছিল। আমার স্বামী প্রতিবন্ধী হওয়ায় সব টাকা-পয়সা তার মা-বাবা নিয়ে নেয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘তাই আমি বিদ্যুৎ বিল দেয়ার নাম করে বাড়ি থেকে পালিয়ে রাজশাহী শহরে চলে যাই। সেখানে এক আত্মীয়ের বাড়িতে লুকিয়ে ছিলাম। আমার ছয় বছরের ছেলে রয়েছে। আমি পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। আজ বুধবার (১২ জুন) যখন ফিরে আসি। সঙ্গে সঙ্গে এলাকার মানুষ আমাকে ঘিরে ধরে, বলে তুমি তো মরে গেছ? বেঁচে আসলে কীভাবে? তুমি গোলাপীই তো!’

গোলাপী বেগম বলেন, ‘তাদের প্রশ্ন করা শুনে আমি অবাক হয়ে যাই। পরে ইউনিয়ন পরিষদে গিয়ে বিস্তারিত ঘটনা শুনেছি।’

গোলাপী বেগমের শ্বশুর বিচ্ছাদ আলী বলেন, ‘আমার ছেলে বাকপ্রতিবন্ধী হওয়ায় তার বউ খেয়াল-খুশি মতো চলাফেরা করে। ঈদের আগে হঠাৎ উধাও হয়ে গিয়েছিল। খুঁজে পাচ্ছিলাম না। তাই ওই লাশ দেখে আমরা ভেবেছিলাম- এটা হয়তো গোলাপী হবে। কিন্তু তা সঠিক হয়নি।’

বাঘা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহসিন আলী বলেন, ‘উদ্ধারকৃত লাশটি ভুলভাবে শনাক্ত করেছিল তার আত্মীয়-স্বজনরা। যাকে মৃত ভেবে দাফন করা হয়েছে, সে আসলে জীবিত রয়েছে। এখন প্রশ্ন হলো তাহলে মৃত নারী কে? লাশ দাফন করা হলেও আমাদের কাছে আলামত ও ছবি রয়েছে। তা নিয়ে তদন্ত শুরু করব।’

আপনার মতামত লিখুন :

দুদক পরিচালক বা‌ছি‌রের বি‌দেশ যাত্রা ঠেকা‌তে পু‌লিশ‌কে চি‌ঠি

দুদক পরিচালক বা‌ছি‌রের বি‌দেশ যাত্রা ঠেকা‌তে পু‌লিশ‌কে চি‌ঠি
ঘুষ লেনদেনের অভিযোগে অভিযুক্ত দুদক পরিচালক এনামুল বাছির/ছবি: সংগৃহীত

পুলিশের ডিআই‌জি মিজানুর রহমান ও দুর্নী‌তি দমন ক‌মিশ‌নের প‌রিচালক খন্দকার এনামুল বা‌ছি‌রের বিরু‌দ্ধে ঘুষ লেন‌দে‌নের অ‌ভি‌যোগ প্রাথ‌মিকভা‌বে প্রমাণিত  হ‌য়ে‌ছে ব‌লে জা‌নি‌য়ে‌ছে দুদক। ফ‌লে  এমন অবস্থায়  খন্দকার বা‌ছির‌কে বি‌দেশ যাত্রা থে‌কে বিরত রাখতে পু‌লি‌শের বিশেষ শাখায় চিঠি পাঠিয়েছে দুদক।

বুধবার (২৬জুন) পু‌লিশ ও দুদক কর্মকর্তার ঘুষ লেন‌দে‌নের অ‌ভি‌যোগ তদ‌ন্তের দায়ি‌ত্বে থাকা দল‌নেতা দুদক প‌রিচালক শেখ ফানা‌ফিল্যা পু‌লি‌শের বিশেষ শাখার অতিরিক্ত পুলিশ মহাপরিদর্শককে একটি চিঠি পাঠিয়েছেন।

চি‌ঠি‌তে জানা‌নো হয়, ‘এনামুল বাছির দেশত্যাগ করতে পারেন’ এমন তথ্য র‌য়ে‌ছে দুদ‌কের কা‌ছে।

সেখানে বলা হয়, খন্দাকার এনামুল বাছিরের বিরুদ্ধে ঘুষ লেনদেন ও মানিলন্ডারিং সংক্রান্ত একটি গুরুত্বপূর্ণ অভিযোগের সত্যতা দুর্নীতি দমন কমিশনের অনুসন্ধানে প্রাথমিকভাবে প্রতীয়মান হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে বক্তব্য গ্রহণ করা একান্ত প্রয়োজন। ইতোমধ্যে অভিযোগ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে বক্তব্য প্রদানের জন্য তার বরাবর নোটিশ প্রেরণ করা হয়েছে। বিশ্বস্ত সূত্রে জানা যায় যে, তিনি সপরিবারে দেশত্যাগ করে অন্য দেশে যাওয়ার চেষ্টা করছেন।

পু‌লি‌শের কা‌ছে পাঠা‌নো চি‌ঠি‌তে আরও বলা হয়, দুদ‌কের  অনুসন্ধান কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য বাছিরের বিদেশ যাওয়া ঠেকানো জরুরি ।

এ বিষয়ে পরিচালক ফানা‌ফিল্যা বার্তা২৪.কম-কে বলেন, আমরা পুলিশের বিশেষ শাখায় একটা চিঠি দিয়েছি। আমরা যখন কারো বিরুদ্ধে তদন্ত করি, তখন তাকে সব দিক থেকে ব্লক করে রাখি। 

খুলনায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ভ্যানচালকের মৃত্যু

খুলনায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ভ্যানচালকের মৃত্যু
ছবি: সংগৃহীত

খুলনায় বৈদ্যুতিক তারে পা জড়িয়ে আজগর আলী শেখ (৪৫) নামের এক ভ্যানচালকের মৃত্যু হয়েছে।

বুধবার (২৬ জুন) দুপুরে রূপসা উপজেলা সদরের কাজদিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত আজগর আলী কাজদিয়া গ্রামের মৃত আব্দুল গফুর শেখের ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, প্রতিদিনের মতো দুপুরে নদীতে গোসল করতে যাচ্ছিলেন আজগর। এ সময় তিনি সড়কের ওপর পড়ে থাকা বৈদ্যুতিক তার দেখে পা দিয়ে সরাতে যান। এতে তিনি বৈদ্যুতিক তারে জড়িয়ে পড়েন।

ঘটনাটি তার মা বুঝতে পেরে চিৎকার দিলে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

রূপসা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোল্লা জাকির হোসেন বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে আজগরের মৃত্যুর বিষয়টি বার্তা২৪.কম-কে নিশ্চিত করেছেন।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র