Barta24

বুধবার, ২৬ জুন ২০১৯, ১২ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

বাজেটে বিশেষ বরাদ্দ চায় রংপুরবাসী

বাজেটে বিশেষ বরাদ্দ চায় রংপুরবাসী
বাজেটে বিশেষ বরাদ্দের দাবিতে রংপুরে মানববন্ধন ও সমাবেশ/ ছবি: বার্তা২৪.কম
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট বার্তা২৪.কম রংপুর


  • Font increase
  • Font Decrease

উন্নয়ন বৈষম্য দূরীকরণে আসন্ন বাজেটে অবহেলিত রংপুর বিভাগের জন্য বিশেষ বরাদ্দের দাবি জানিয়েছে রংপুরবাসী। দাবি বাস্তবায়নে আট দফা তুলে ধরে মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার (১২ জুন) দুপুরে নগরীর কাচারি বাজারে রংপুর উন্নয়ন ফোরাম আয়োজিত সমাবেশ থেকে এ দাবি জানানো হয়।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, 'সারাদেশ যখন এগিয়ে যাচ্ছে, রংপুর তখন বাজেট বৈষম্যের কারণে পিছিয়ে যাচ্ছে। এ কারণে দরিদ্রতার অভিশাপ থেকে মুক্তি মিলছে বিভাগীয় এই অঞ্চলের। সারাদেশে দারিদ্রতার হার শতকরা ২৪ ভাগ হলেও রংপুরে এটি ৪৮ ভাগ।'

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/12/1560342209454.jpg

বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, 'গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে থেকে দেশের নেতৃত্ব দিচ্ছেন রংপুরের মানুষরা। এখানকার পুত্রবধূ প্রধানমন্ত্রী, জাতীয় সংসদের স্পিকার, ডেপুটি স্পিকার, বিরোধীদলীয় নেতা, তিনজন মন্ত্রী, দুইজন প্রতিমন্ত্রী, হুইপ ও বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ রংপুর বিভাগের মানুষ হলেও উন্নয়ন বৈষম্যের শিকার এ বিভাগ। রংপুরের খাদ্য শস্য গোটা দেশের চাহিদা মেটালেও বার বার অবহেলিতই থাকছে রংপুরের মানুষ।'

ফোরামের আহ্বায়ক সুলতান মাহমুদ টিটনের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব রাকিবুল ইসলাম রাকিবের সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ড. তুহিন ওয়াদুদ, কৃষক নেতা অধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম হক্কানী, সনাক রংপুর জেলা সভাপতি মোশফেকা রাজ্জাক, যুবলীগ নেতা আতাউজ্জামান বাবু, ফোরামের যুগ্ম আহ্বায়খ রুম্মান ইসলাম, অনিন্দ্য রায়, বেলাল হোসেন প্রমুখ।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/12/1560342293658.jpg
বিভাগীয় কমিশনারের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দেয় রংপুরবাসী/ ছবি: বার্তা২৪.কম

 

পিছিয়ে পড়া রংপুরকে সারাদেশের উন্নয়নের সাথে এগিয়ে না রাখলে দেশের কাঙ্ক্ষিত উন্নয়ন সম্ভব হবে না বলে জানান বক্তারা। এ সময় সকল বিভাগে সুষম উন্নয়ন নিশ্চিত করা, রংপুরে দুইটি সরকারি স্কুল প্রতিষ্ঠা, রংপুর থেকে ঢাকাগামী বিরতিহীন ও বুলেট ট্রেন চালু, বাজেটে রংপুরকে অগ্রাধিকার দিয়ে পর্যাপ্ত পরিমান বাজেট বরাদ্দ দেয়া, বিদেশে শ্রম রফতানিতে বৈষম্য দূর করা ও প্রণোদনা স্বাপেক্ষে রংপুরে শিল্পায়ন নিশ্চিত করারও দাবি জানানো হয়।

সমাবেশ শেষে রংপুরের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার আবু তাহের মোঃ মাসুদ রানা ও জেলা প্রশাসক এনামুল হাবীবের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দেওয়া হয়।

আপনার মতামত লিখুন :

নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ট্রাক খাদে, চালক-হেলপারের মৃত্যু

নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ট্রাক খাদে, চালক-হেলপারের মৃত্যু
ছবি: সংগৃহীত

ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি ট্রাক গাছের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে খাদে পড়ে চালক-হেলপারের মৃত্যু হয়েছে।

বুধবার (২৬ জুন) সকালে উপজেলার লেংরা বাজার এলাকায় এ দুর্ঘটনাটি ঘটে।

মুক্তাগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আলী মাহমুদ বার্তা২৪.কমকে জানান, ট্রাকটি সম্ভবত উত্তরাঞ্চল থেকে আসছিলো। লেংরা বাজার এলাকায় আসার পর ময়মনসিংহ শহরগামী ট্রাকটি নিয়ন্ত্রণ হারায়। এ সময় একটি গাছের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে খাদে পড়ে যায়। এতে চালক ও হেলপার ঘটনাস্থলেই নিহত হন।

ওসি আরও জানান, নিহতদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তবে এখনও তাদের পরিচয় শনাক্ত করা যায়নি।

ভারতে গ্রেফতার গোদাগাড়ীর জঙ্গি শাহীন

ভারতে গ্রেফতার গোদাগাড়ীর জঙ্গি শাহীন
জঙ্গি শাহীন। ছবি: সংগৃহীত

নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জামায়াতুল মুজাহিদ বাংলাদেশের (জেএমবি) চার সদস্যকে গ্রেফতার করেছে কলকাতা পুলিশের বিশেষ একটি দল। মঙ্গলবার (২৫ জুন) তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারের পর জিজ্ঞাসাবাদে তারা পুলিশকে জানিয়েছে- তারা স্লিপার সেলের সদস্য হিসেবে কাজ করত। কলকাতায় তারা বড় ধরনের হামলার প্রস্তুতি নিচ্ছিল। বিষয়টি নিয়ে দুই বাংলার প্রশাসন এখন তৎপর।

কলকাতায় গ্রেফতার চার জঙ্গির মধ্যে তিনজনই বাংলাদেশি। এর মধ্যে আল-আমিন ওরফে শাহীন (২৩) রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার ছেলে। শাহীনের বাবা পৌর এলাকার বুজরুক রাজারামপুর গ্রামের রিকশাচালক রফিকুল ইসলাম।

শাহীন ২০১৮ সালের জুন মাস থেকে নিখোঁজ ছিলেন। পরিবারের কারও সঙ্গে তার কোনো যোগাযোগও নেই বলে জানিয়েছেন তার মা।

শাহীনের মা সাহের বানু বার্তা২৪.কমকে বলেন, ‘গতবছরের (২০১৮ সাল) জুন মাসের দিকে শাহীনকে ধরতে বাড়িতে পুলিশ আসে। কিন্তু আমার ছেলে ওই সময় বাড়িতে ছিল না। পরে তারা শাহীনের মোবাইল নম্বর ও ছবি নিয়ে যায়।’

সাহের বানু বলেন, ‘পুলিশ বাড়ি থেকে চলে যাওয়ার পর আমরা তাকে মোবাইলে যোগাযোগ করেও কোনো খোঁজ পাইনি। পরে আত্মীয়-স্বজনের বাড়িতে খোঁজ নিয়েও তার কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি। তার বন্ধু-বান্ধব বা যাদের সঙ্গে সে মিশত, তারাও কেউ শাহীনের খোঁজ দিতে পারেনি।’

শাহীনের মা জানান, তার ছেলে গোদাগাড়ী স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে এসএসসি ও গোদাগাড়ী কলেজ থেকে এইচএসসি পাশ করে। পরে সে নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজে ব্যবস্থাপনা বিভাগে ভর্তি হয়। নিখোঁজের সময় শাহীন তৃতীয় বর্ষের ছাত্র ছিল।

শাহীনের বাবা রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘২০১৭ সালে রাজারামপুর গ্রামের আমিজুল ইসলাম রনিকে ক্রসফায়ারে দেয় পুলিশ। রনির সঙ্গে আমার ছেলে মিশত। তবে রনি এবং আমার ছেলে কোনো খারাপ কাজে জড়িত ছিল কিনা তা জানি না। রনি মারা যাওয়ার পর শাহীনও এলাকা ছেড়ে চলে গেছে। এক বছর হল শাহীনের সঙ্গে আমাদের কোনো যোগাযোগ নেই।’

গোদাগাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহাঙ্গীর আলম বার্তা২৪.কমকে বলেন, ‘শাহীনকে গ্রেফতার করতে আমরা তার বাড়ি এবং ওই এলাকায় কয়েক দফা সাঁড়াশি অভিযান চালিয়েছি। তবে সে খুব চতুর। বড় কোনো পর্যায়ে তার যোগাযোগ ছিল। আগে থেকে সে সরে পড়ত।’

ওসি আরও বলেন, ‘গত এক বছর ধরে তার আর কোনো সন্ধান মিলছিল না। মূলত সে সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে পালিয়ে যায়। গতকাল মঙ্গলবার (২৫ জুন) সে কলকাতায় গ্রেফতার হয় বলে শুনেছি।’

প্রসঙ্গত, ভারতের শিয়ালদহ স্টেশনের পার্কিং এলাকা থেকে মঙ্গলবার জিয়াউর রহমান ওরফে মহসিন এবং মামুনুর রশিদকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তাদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী অভিযান চালিয়ে হাওড়া স্টেশন চত্বর থেকে আল-আমিন ওরফে শাহীন এবং রবিউল আলমকে গ্রেফতার করা হয়। অন্য দুই বাংলাদেশি জঙ্গি জিয়াউর রহমানের বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জ এবং মামুনুর রশিদের বাড়ি রংপুরে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র