রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমারকে জবাবদিহিতা করতে হবে

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
জেনেভা কনভেনশনের ৭০ বছর পূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত সেমিনারে পররাষ্ট্রমন্ত্রী, ছবি: বার্তা২৪.কম

জেনেভা কনভেনশনের ৭০ বছর পূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত সেমিনারে পররাষ্ট্রমন্ত্রী, ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমারকে জবাবদিহিতা করতে হবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আবদুল মোমেন। তিনি বলেছেন, 'সন্ত্রাস দমনের নামে তারা শুধু মুসলিম নয়, অন্য ধর্মের রোহিঙ্গাদেরও নিজ দেশ থেকে বিতাড়িত করেছে।'

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) সকালে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট ফর স্ট্র্যাটেজিক স্টাডির (বিস) সম্মেলন কক্ষে জেনেভা কনভেনশনের ৭০ বছর পূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত সেমিনারে এসব কথা বলেন তিনি।

রোহিঙ্গা ইস্যুটি জটিল হওয়ার জন্য জাতিসংঘকে দায়ী করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, 'তারা অবশ্যই দায়ী। এ ঘটনা একদিনে হয়নি। তারা এ বিষয়ে আগে অনেক কিছু চেপে গেছে। অনেক আগে থেকে মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের প্রতি ঘৃণা ছড়ানো হচ্ছিল। এখন জাতিসংঘ এই বিষয়ে বক্তৃতা দিচ্ছে। তবে এ বক্তৃতা শুধু বাংলাদেশের দিকে ঘোরাঘুরি করে।'

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, 'আজ আমরা জেনেভা কনভেনশনের জন্মতিথি পালন করছি। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় যখন সারাবিশ্বে হত্যাযজ্ঞ মেতেছিল তা থেকে প্রতিহত করতেই বিশ্ব নেতৃবৃন্দ এ কনভেনশন আয়োজিত করে। ৭০ বছর আগে মানবতা রক্ষায় জেনেভা কনভেনশন নিয়ে বিশ্ব একমত হয়েছে, সেটিকে বাস্তবায়ন করতে হবে। এটি খুব ভাল কনভেনশন, ভাল ভাল আইন আছে। তবে এটি বৈষম্যমূলকভাবে এখন ব্যবহার হচ্ছে। বর্তমানে বিশ্বে যখন মানবতা বিঘ্নিত হয় তখন যারা এ আইনটি তৈরি করেছিল তারাই মুখ ফিরিয়ে রাখে।'

তিনি আরও বলেন, 'সেজন্য এখন এ কনভেনশন নিয়ে মানুষ প্রশ্ন তুলছে। কনভেনশনের আইনগুলো দুর্বল হয়ে গেছে। যুদ্ধে যারা সাধারণ মানুষ তাদের আমাদের রক্ষা করতে হবে। জেনেভা কনভেনশনের আইনগুলো যদি মানা হত তাহলে এ ধরনের ঘটনা রোধ করা যেত। আজ মিয়ানমার, ফিলিস্তিন যেখানেই মানবতা লঙ্ঘিত হচ্ছে তারই প্রতিবাদে সোচ্চার আন্দোলন গড়ে তুলে দায়ীদের জবাবদিহিতার আওতায় আনতে হবে।'

ডিক্যাব সভাপতি রাহীদ এজাজ ও সাধারণ সম্পাদক নূরুল ইসলাম হাসিব বক্তব্য রাখেন।

আপনার মতামত লিখুন :