রূপপুরের বালিশকাণ্ডের তদন্ত প্রতিবেদন ৩০ জুন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
শুদ্ধাচার পুরস্কার ২০১৭-১৮ সনদপত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ. ম রেজাউল করিম/ ছবি: বার্তা২৪.কম

শুদ্ধাচার পুরস্কার ২০১৭-১৮ সনদপত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ. ম রেজাউল করিম/ ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

পাবনার রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় নির্মাণাধীন ভবনে আসবাবপত্রসহ অন্যান্য আনুষঙ্গিক কাজে অনিয়মের অভিযোগে গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন ৩০ জুনের মধ্যে  প্রকাশ করা হবে বলে জানিয়েছেন গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ. ম. রেজাউল করিম।

রোববার (২৩ জুন) মন্ত্রণালয়ে দুপুরে শুদ্ধাচার পুরস্কার ২০১৭-১৮ সনদপত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা জানান।

তিনি বলেন, ‘বিষয়টি একটু গভীরে গিয়ে তদন্ত করতে চাচ্ছি, দায়সারাভাবে নয়। আমরা ৩০ দিন সময় বাড়িয়েছি। এ সময়ের মধ্যে রিপোর্ট পাওয়ার পরে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা রিপোর্ট প্রকাশের প্র্যাকটিস করেছি। এই রিপোর্টটিও প্রকাশ করব। আশা করি ৩০ জুন রিপোর্ট পেয়ে যাবে। এরপর এফআর টাওয়ারের মতো রিপোর্টটা সবার সামনে প্রকাশ করব। কিছুই আর গোপনীয় থাকবে না।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/23/1561276227514.jpg

তিনি বলেন, ‘এফআর টাওয়েরের ঘটনায় ৬২ জনকে দোষী করে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছি। এটা প্রক্রিয়াধীন বিষয়। রূপপুরের ঘটনায় যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যাবে, অবশ্যই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

রিপোর্ট প্রকাশের মধ্যেই তদন্ত প্রতিবেদন সীমাবদ্ধ থাকবে না বলেও জানান মন্ত্রী।

এর আগে রূপপুরের ঘটনায় অভিযোগ তদন্তে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে একটি ও গণপূর্ত অধিদফতরের পক্ষ থেকে পৃথক কমিটিসহ মোট দুইটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। একই সাথে অভিযোগ যাচাইকল্পে দুই তদন্ত কমিটির কোনো প্রতিবেদন না দেওয়ার আগ পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারকে সকল প্রকার অর্থ প্রদান বন্ধ রাখতে নির্দেশ দিয়েছে মন্ত্রণালয়।

আপনার মতামত লিখুন :