Barta24

বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯, ২ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

নেতাকর্মীদের খেলা দেখার কথা স্মরণ করে দিলেন শেখ হাসিনা

নেতাকর্মীদের খেলা দেখার কথা স্মরণ করে দিলেন শেখ হাসিনা
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা/ছবি: সংগৃহীত
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
ঢাকা


  • Font increase
  • Font Decrease

ইংল্যান্ডের রৌজবোল মাঠে বিশ্বকাপের খেলায় আজ মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ ও আফগানিস্তান। সেমিফাইনাল ওঠার যাত্রায় ম্যাচটি বাংলাদেশের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ। ম্যাচের উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে সাত সাগর তের নদী এপারের বঙ্গদেশে।

এমনকি প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও দলীয় নেতা-কর্মীদের খেলা দেখার কথা স্মরণ করিয়ে দিলেন। সোমবার (২৪ জুন) বিকেলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আওয়ামী লীগের ৭০ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তব্যের আগে খেলার কথা স্মরণ করে দেন।

বেলা তিনটায় প্রধানমন্ত্রী অনুষ্ঠান স্থলে উপস্থিত হয়ে মঞ্চে সভাপতির আসন গ্রহণ করলে সে সময় উপস্থিত নেতা-কর্মীরা দলীয় সভাপতিকে স্বাগত জানিয়ে স্লোগানে স্লোগানে গোটা মিলনায়তন প্রকম্পিত করে তোলে। দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের মাইকে স্লোগান বন্ধের নির্দেশ দিয়েও নেতা-কর্মীদের স্লোগান থামাতে পারেন নি। তখন মঞ্চ থেকে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেন, আমি সবাইকে একটু চুপ থাকার জন্য অনুরোধ করছি। আমরা ৫ টার মধ্যে শেষ করতে চাই। আজকে ক্রিকেট খেলা আছে। মনে আছে? খেলা দেখতে হবে। তাহলে একদম চুপ।

তিনি আরো বলেন, বক্তাদের বলব একটু শর্ট করে বক্তৃতা দিতে। যদিও আমাদের পার্লামেন্টে যেতে হবে। সেখানেই খেলা দেখব।

খেলার কথা প্রধানমন্ত্রী বলতেই গোটা মিলনায়নতন হর্ষধ্বনিতে ফেটে ওঠে। হাত, মাথা নেড়ে প্রধানমন্ত্রীর কথাকে স্বাগত জানিয়ে স্লোগান থামিয়ে চুপ হয়ে যান।

উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ক্রিকেট অনুরাগের কথা সর্বজনবিদিত। সময় পেলেই তিনি জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের সঙ্গে সময় কাটান, উৎসাহ দেন। প্রধানমন্ত্রী যে বিশ্বকাপও নিয়মিত অনুসরণ করছেন সেটিও আজকে আবারও জানা গেল।

আপনার মতামত লিখুন :

প্রত্যাহারের আদেশ না মানায় দুর্গাপুর থানার ওসি স্ট্যান্ড রিলিজ

প্রত্যাহারের আদেশ না মানায় দুর্গাপুর থানার ওসি স্ট্যান্ড রিলিজ
দুর্গাপুর থানার ওসি আব্দুল মোতালেব, ছবি: সংগৃহীত

রাজশাহীর দুর্গাপুর থানার অফিসার ইনচার্জকে (ওসি) আব্দুল মোতালেব প্রত্যাহারের আদেশ না মানায় তাকে স্ট্যান্ড রিলিজের আদেশ দেওয়া হয়েছে।

বুধবার (১৭ জুলাই) সকালে রাজশাহী জেলা পুলিশ সুপার এই আদেশ দেন। জেলা পুলিশের মুখপাত্র ইফতে খায়ের আলম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে জানান, গত ২ জুলাই একজন নারী তার স্বামীর বিরুদ্ধে নির্যাতনের মামলা করতে আসলেও তা নিতে গড়িমসি করার অভিযোগ ওঠে ওসি আব্দুল মোতালেবের বিরুদ্ধে। তিনি অভিযোগ খতিয়ে দেখতে একজন এএসআইকে দায়িত্ব দেন। ওই এএসআই আইনগত ব্যবস্থা না নিয়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে মীমাংসার জন্য বৈঠক ডাকেন। তবে ঘটনা মীমাংসা করার আগেই ভুক্তভোগী নারীর স্বামী (অভিযুক্ত) দুবাই চলে যান।

জেলা পুলিশের মুখপাত্র আরও জানান, বিষয়টি জানাজানি হলে এবং ভুক্তভোগীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে জনস্বার্থে ওসি আব্দুল মোতালেবকে বদলি করা হয়। তাকে ১৬ জুলাইয়ে পুলিশ লাইনে হাজির হওয়ার আদেশ জারি করা হয়। নির্ধারিত দিনে পুলিশ লাইনে হাজির না হওয়ায় তাকে দুর্গাপুর থানা থেকে স্ট্যান্ড রিলিজের আদেশ দেওয়া হয়।

থানা সূত্র জানায়, রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলার মহিপাড়া গ্রামের শিমু ইয়াসমিন লিপি নামের এক অন্তঃসত্ত্বা নারীকে শারীরিক নির্যাতন করে তার দুবাই প্রবাসী স্বামী সোহেল রানা। পরে ওই নারী রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি হন। সেখানে অপারেশনের মাধ্যমে তার গর্ভের মৃত সন্তানকে বের করা হয়। চিকিৎসকরা জানান, স্বামীর মারধর ও আঘাতে ওই নারীর গর্ভের সন্তান মারা যায়।

এ ঘটনায় গত ২ জুলাই স্বামীর বিরুদ্ধে নির্যাতনের মামলা করতে গেলে ওসি আব্দুল মোতালেব তা নিতে গড়িমসি করে নারীকে ফিরিয়ে দেন। দ্বিতীয় দফায় অভিযোগ করতে গেলে, অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা জানার পর অভিযোগ নেওয়া হবে মর্মে একজন এএসআইকে দায়িত্ব দেন। তবে সেই এএসআই অভিযুক্তকে দেশ ছেড়ে যাওয়ার সুযোগ করে দেন বলে অভিযোগ ওঠে।

'শিশুদের মোবাইল ব্যবহার বন্ধ করা সমাধান নয়'

'শিশুদের মোবাইল ব্যবহার বন্ধ করা সমাধান নয়'
সাংবাদিকদের মুখোমুখি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

শিশুদের মোবাইল ব্যবহার বন্ধ করে দিলে কোনো সমাধান হবে না বলে জানিয়েছেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান।

বুধবার (১৭ জুলাই) বিকালে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সম্মেলন কক্ষে ডিসি সম্মেলনের চতুর্থ দিনের ষষ্ঠ অধিবেশন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

ডিসিদের কি ধরনের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, 'আমি যেটা তাদের বলেছি, তৃণমূলে তারাই কিন্তু নেতা। ডিজিটাল বাংলাদেশ নির্মাণে তারাই কিন্তু মানুষকে টেনে আনবেন।'

মন্ত্রী বলেন, 'সেখানে তারা (ডিসি) আমাকে প্রশ্ন করেছিল, বাচ্চাদের মোবাইল ব্যবহারের কারণে নানা রকম সমস্যা হচ্ছে। এটা কিন্তু পার্ট। এটা আমাদের কাটিয়ে উঠতে হবে। আমরা এর থেকে দূরে সরে গেলে, বন্ধ করে দিলে এর থেকে কিছু হবে না। সেই কথাগুলো বললাম, আমাদের একচুয়ালি এগুলো ফাইন্ড করে এগোতে হবে। আমাদের মানসিকতা ওইভাবে তৈরি করতে হবে যে, আমি এই রকম পর্যায়ে যেতে চাই।'

তিনি আরও বলেন, 'বাংলাদেশ কোথায় উঠবে এটা বাঙালিও হয়তো অনেক সময় জানে না। কিন্তু আমাদের চাওয়াটা আকাশচুম্বী। কবিতা দিয়ে বলেছিলাম, বাঙালির চাওয়া আকাশ ছোঁয়া কথাটা চমৎকার। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর প্রমাণ।'

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র