মক্তবে শিশুর শ্লীলতাহানি, শিক্ষক আটক

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, ময়মনসিংহ
প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

  • Font increase
  • Font Decrease

ময়মনসিংহের ভালুকায় চতুর্থ শ্রেণীর এক মাদরাসাছাত্রী (৯) মক্তবে আরবি পড়তে গিয়ে শ্লীলতাহানির শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত শরিফুল ইসলাম (২৫) নামে এক শিক্ষককে আটক করেছে পুলিশ।

রোববার (৭ জুলাই) সকালে উপজেলার পাড়াগাঁও বড়চালা এলাকার একটি মসজিদের বারান্দায় এ ঘটনা ঘটে। আটক শরীফুল স্থানীয় নূরানী মাদরাসার শিক্ষক।

এলাকাবাসী জানায়, পাড়াগাঁও বড়চালা এলাকায় মসজিদের বারান্দায় প্রতিদিন সকালে এলাকার শিশুদের আরবি পড়ান শরীফুল ইসলাম।

শিশুটির পরিবারের অভিযোগ, রোববার সকালে বৃষ্টি হওয়ায় মক্তবে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি কম ছিল। বাড়ির কাছে মসজিদ হওয়ায় মক্তবে পড়তে যায় স্থানীয় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণীর এক ছাত্রী (৭) ও হুসানিয়া দাখিল মাদ্রাসার চতুর্থ শ্রেণীর ঐ ছাত্রী (৯)। শিক্ষার্থী কম থাকার সুযোগে শিক্ষক শরিফুল ঐ মাদ্রাসাছাত্রীকে (৯) নানাভাবে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করেন।

পরে অপর স্কুলছাত্রী (৭) বাড়িতে গিয়ে বিষয়টি অভিভাবকদের জানালে অভিভাবক ও স্থানীয়রা রোববার দুপুরে অভিযুক্ত শিক্ষককে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন।
তবে অভিযুক্ত শরিফুল ইসলাম এ অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে আনা এই অভিযোগটি সম্পূর্ণ মিথ্যা ও এটা একটি ষড়যন্ত্র।’

রোববার বিকালে ভালুকা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাঈন উদ্দিন বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে বলেন, ‘এ ঘটনায় শিক্ষককে আটক করে থানায় আনা হয়েছে। লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব।’

আপনার মতামত লিখুন :