ওদের কান্না থামছিল না

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, রংপুর
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

মঞ্জুআরা বেগম। বয়স ষাটের কাছাকাছি। অকালে স্বামীকে হারিয়েছেন। তিন মেয়ে আর এক ছেলেকে নিয়ে বাপ-দাদার ভিটে-মাটিতে বসবাস করছিলেন। সরকারি জমি হওয়ায় হঠাৎ তাদের উচ্ছেদ করেছে প্রশাসন। দীর্ঘদিন ধরে থাকা মাথা গোঁজার জায়গা হারিয়ে এখন দিশেহারা এই বৃদ্ধা।

রংপুর প্রেসক্লাব চত্বরে জমি ফিরে পেতে বুকফাটা আহাজারিতে ভেঙে পড়েন তিনি। এতে সেখানে এক হৃদয়বিদারক পরিবেশের সৃষ্টি হয়।

বৃদ্ধা মঞ্জুআরা বেগমের মতোই কাঁদছিলেন নুরবান। দীর্ঘ দেড় ঘণ্টার মানববন্ধনে তাদের প্রতিবাদের ভাষাই ছিল শুধু কান্না। ওদের কান্না যেন থামছিল না। এমন আর্তনাদে নিজ ভিটে-মাটি ফিরে পাবার আশা ছিল সবার চোখে-মুখে।

জেলার কাউনিয়া উপজেলার হারাগাছের সারাই আমবাগান এলাকা থেকে গত ২৯ জুন ৭০টি পরিবারকে অবৈধভাবে উচ্ছেদ করা হয় এমন অভিযোগে সোমবার (৮ জুলাই) দুপুরে রংপুর প্রেসক্লাবের সামনে এক মানববন্ধন করা হয়।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/08/1562594081934.jpg

পৈত্রিক সম্পত্তি থেকে উচ্ছেদের প্রতিবাদে ও নিজ ভিটে-মাটি ফিরে পেতে মানববন্ধন সমাবেশ করে ভুক্তভোগী অসহায় পরিবারগুলো।

মানববন্ধনে অংশ নেয়া সাদিকুল ইসলাম, বাবুল মিয়া, শরিফুল, নুর ইসলাম, আব্দুর রহমান, আমেনা খাতুন, সালমা বেগম, নুরবানু বলেন, ‘হারাগাছের সারাই আমবাগান মৌজায় এক একর ৫১ শতক পৈত্রিক সম্পত্তি থেকে ৭০টি পরিবারকে জোর পূর্বক উচ্ছেদ করেছে প্রশাসন। অথচ ওই জমি নিয়ে উচ্চ আদালতে মামলা বিচারাধীন রয়েছে। তারপরও আমাদেরকে অবৈধভাবে উচ্ছেদ করে ভূমিহীন করা হয়েছে। আমরা প্রধানমন্ত্রীর মাধ্যমে জেলা প্রশাসনের কাছ থেকে আমাদের সম্পত্তি ফিরে পেতে চাই।’

মানববন্ধনে ভুক্তভোগী ৭০টি পরিবারের প্রায় দুই শতাধিক সদস্য অংশ নেন।

এই অভিযোগের ব্যাপারে জানতে রংপুরের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আসিব আহসানের মোবাইলে ফোন করা হলেও তা রিসিভ করেননি তিনি।

আপনার মতামত লিখুন :