Barta24

সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯, ৪ ভাদ্র ১৪২৬

English

‘মুজিব বর্ষ’ উদযাপনের খসড়া পরিকল্পনা প্রধানমন্ত্রীর টেবিলে

‘মুজিব বর্ষ’ উদযাপনের খসড়া পরিকল্পনা প্রধানমন্ত্রীর টেবিলে
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান/ ছবি: সংগৃহীত
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
ঢাকা


  • Font increase
  • Font Decrease

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শততম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ‘মুজিব বর্ষ’ উদযপানের খসড়া কর্মপরিকল্পনা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সামনে তুলে ধরা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) গণভবনে এক বৈঠকে কর্মপরিকল্পনা তুলে ধরেন ‘মুজিব বর্ষ’ বাস্তবায়ন কমিটির মুখ্য সমন্বয়ক ড. কামাল আব্দুল নাসের চৌধুরী।

জানা গেছে, জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটি ‘মুজিব বর্ষ’ উদযাপনের খসড়া কর্মপরিকল্পনা বিবেচনা ও অনুমোদনের জন্য প্রধানমন্ত্রীর সামনে তুলে ধরেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত, সাবেক সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ.ম রেজাউল করিম, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব নজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব সাজ্জাদুল হাসান, প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ব্যারিস্টার শাহ আলী ফারহাদ প্রমুখ।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/16/1563291047358.gif
গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে মুজিব বর্ষ বাস্তবায়ন কমিটির বৈঠক/ ছবি: সংগৃহীত

 

বৈঠক শেষে ব্যারিস্টার শাহ আলী ফারহাদ বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে বলেন, ‘২০২০ সালের ১৭ মার্চ থেকে বছরব্যাপী মুজিব বর্ষ উদযাপন শুরু হবে। প্রথম দিনের সেই উদযাপনের খসড়া পরিকল্পনা নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির খসড়া পরিকল্পনা মনোযোগ দিয়ে শুনেছেন। কিছু পর্যবেক্ষণও তুলে ধরেছেন। এখন প্রধানমন্ত্রীর বিবেচনা ও অনুমোদনের অপেক্ষায় আছি।’

তিনি বলেন, ‘জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটি ছাড়াও বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে কেন্দ্র থেকে তৃণমূল পর্যন্ত পৃথক পৃথকভাবে মুজিব বর্ষ উপদযাপন করা হবে।’

উল্লেখ্য, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শততম জন্মবার্ষিকী উদযাপনের অংশ হিসেবে ২০২০-২১ সালকে ‘মুজিব বর্ষ’ হিসেবে ঘোষণা করেছে সরকার। এ লক্ষ্যে জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটিও গঠন করা হয়েছে। মুজিব বর্ষ উদযাপনে ব্যাপক পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে বাস্তবায়ন কমিটি। তারা বিভিন্ন অংশীজনদের সঙ্গে বৈঠকও করেছেন।

আপনার মতামত লিখুন :

খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কে বাস-ট্রাক সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ২৫

খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কে বাস-ট্রাক সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ২৫
খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কে দুর্ঘটনা কবলিত বাস

খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কের চুকনগরে বাস ও ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে পন্টু (৪০) নামে এক বাসচালক নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও প্রায় ২৫ জন। আহতদের মধ্যে দুর্ঘটনা কবলিত ট্রাকের চালকের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

সোমবার (১৯ আগস্ট) সন্ধ্যার দিকে খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কের চুকনগর সংলগ্ন বেতাগ্রাম চারা বটতলা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/19/1566231787324.jpg

পুলিশ ও এলাকাবাসীর তথ্যমতে, সাতক্ষীরা-যশোর রুটের একটি যাত্রীবাহী বাস চুকনগর অতিক্রম করার সময় বিপরীত দিক থেকে আসা একটি রড বোঝাই ট্রাকের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

ডুমুরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম বার্তাটোয়েন্টিফোর. কম কে বলেন, চুকনগরের পাশে যাত্রীবাহী বাসের সাথে ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে বাসচালক নিহত হয়েছেন। দুর্ঘটনায় বাস ও ট্রাকের আরো ২৫ জন আহত হয়েছেন। গুরুতর আহতদের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়েছে।

 

রুয়েট ছাত্রীকে উত্যক্ত করে অটো থেকে ফেলে দিল ৪ যুবক!

রুয়েট ছাত্রীকে উত্যক্ত করে অটো থেকে ফেলে দিল ৪ যুবক!
রাজশাহীর মানচিত্র ছবি: সংগৃহীত

রাজশাহীতে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকের স্ত্রীকে যৌন হয়রানির ঘটনার রেশ না কাটতেই এবার বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীকে উত্যক্ত করে অটোরিকশা থেকে ফেলে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

সোমবার (১৯ আগস্ট) রাজশাহী নগর ভবনের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনার পর সন্ধ্যায় ওই শিক্ষার্থী নিজের ফেসবুকে দেওয়া স্ট্যাটাসে এ তথ্য জানান। সেখানে তিনি উল্লেখ করেন, অটোতে তুলে চার যুবক তার শরীরের বিভিন্নস্থানে হাত দিয়ে যৌন হয়রানি করে। ভুক্তভোগী সানজানা তাহসীন রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থী। রাত সাড়ে ৯টা পর্যন্ত তিন ঘণ্টায় ওই স্ট্যাটাসে সাড়ে তিন হাজারের বেশি লাইক ও রিয়্যাক্ট পড়ে। বিভিন্ন মন্তব্য করেছেন দেড় শতাধিক ফেসবুক ব্যবহারকারী। এছাড়া শেয়ার হয়েছে প্রায় এক হাজার।

বিষয়টি নিয়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থীরাসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ তীব্র নিন্দা জানিয়ে প্রশাসনের গাফিলতিকে দায়ী করেছেন।

ওই ছাত্রীর ফেসবুক পোস্টটি হুবহু পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো:

‘আমার বাসা উপশহর। বাসা দূর বলে আমি সাধারণত রুয়েট থেকে রেইলগেট পর্যন্ত অটোতে করে আসি। আজকেও প্রতিদিনের মতো অটো নিলাম, সাথে ছিল দুইজন অপরিচিত রুয়েটিয়ান ভাইয়া আর একজন ভদ্রলোক। রুয়েটিয়ান ভাই দুইজন চিশতিয়ার সামনে নেমে গেলেন। ভদ্রা পার হয়ে কিছুদূর যাওয়ার পর হঠাৎ অটোওয়ালা অটো থামায় দিল, সামনে থাকা ভদ্রলোককে বললো, ‘আপনি নেমে যান, আমি নিজস্ব লোক তুলবো!’ আমি কিছু বুঝে ওঠার আগেই ওই ভদ্রলোককে জোরপূর্বক নামিয়ে চারজন গুণ্ডা উঠে অটো চালানো শুরু হয়ে গেলো! ভদ্রা থেকে রেলস্টেশন পর্যন্ত রাস্তা মোটামুটি নির্জন, ইচ্ছামত সেই চারজন আমাকে স্পর্শ করা শুরু করলো। হাজারবার অটো থামানোর জন্য চিৎকার করার পরও অটোওয়ালা পশুর মত হাসতে থাকলো....! পরে নগরভবনের সামনে পুলিশ দাঁড়িয়ে থাকতে দেখে ভয় পেয়ে তারা অটো থেকে ধাক্কা মেরে আমাকে ফেলে দিয়ে দ্রুত চলে গেলো!!! যতক্ষণে নিজের পায়ে দাঁড় হতে পেরেছি, ততক্ষণে অটো বহুদূর....” কাহিনীটা শুধু শেয়ার করলাম। এইটা বাংলাদেশ, কোনো বিচারের আশা আমি করছিনা। বি.দ্র: অনেকের মনে প্রশ্ন থাকতে পারে আমার পোশাক কি ছিল? সাধারণ বাঙালি নারীর মতো সালোয়ার কামিজ!”

ওই পোস্টের নীচে নন্দিতা স্বপন মন্তব্য করেছেন, ‘বছর খানেক আগে এই রাজশাহীতে অটোতে আমিও একই রকম বিশ্রী অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হই। আমার বান্ধবী সাথে ছিল। সেও দেখেছিল। অথচ আমি যখন বিষয়টি জানিয়ে ফেসবুকে পোস্ট করি। তখন রুয়েটের দুই-একজন সেই পোস্ট শেয়ার করে আমার ত্রুটি খোঁজা শুরু করেছিল।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/19/1566230796556.jpg

 

জাহিদুল ইসলাম মামুন নামে একজন লিখেছেন, ‘যতটুকু মনে পড়ে, নগরভবনের চারপাশে সিসি ক্যামেরা আছে। পুলিশের সাহায্য চাইলে- সাহায্য পেতে পারো। তবে সেটা কেবল আশা করার মধ্যেই সীমাবদ্ধ। বাংলাদেশে সব সিস্টেমই খুব ভাল তো! হাজার ঘাটে চক্কর মেরে একসময় মনে হবে, ঘটনাটা জানাজানি না হলে ভালো হতো। তবুও চেষ্টা করা যায়। আমরা শিক্ষার্থীরা তোমার সাথে আছি।

জানতে চাইলে নগরীর মতিহার থানার ওসি (তদন্ত) ওলিউর রহমান বলেন, ‘এ বিষয়ে এখনও আমাদেরকে কেউ কোনো অভিযোগ করেনি। তারপরও আমরা বিষয়টি জানার পর খোঁজ-খবর নিচ্ছি।’

এর আগে গত ১০ আগস্ট রাজশাহী নগরীর মনিচত্ত্বর এলাকায় স্ত্রীকে যৌন হয়রানির প্রতিবাদ করায় রুয়েটের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষক মো. রাশিদুল ইসলামকে প্রকাশ্যে মারধর করে বখাটেরা। পরে ঘটনায় তিনি ফেসবুকে নিজের অসহায়ত্বের কথা প্রকাশ করে স্ট্যাটাস দিলে তা ভাইরাল হয়ে যায়। পরে ১৬ আগস্ট ওই ঘটনায় শিক্ষকের স্ত্রী তাবাসসুম ফারজানা মামলা দায়ের করেন।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র