Barta24

রোববার, ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬

English

বন্যার্তদের পাশে দাঁড়ান

বন্যার্তদের পাশে দাঁড়ান
ডিসি সম্মেলনে বক্তব্য রাখছেন ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া
সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪টোয়েন্টিফোর.কম
ঢাকা


  • Font increase
  • Font Decrease

 

জনগণের দোরগোড়ায় সরকারি সেবা পৌঁছে দেওয়ার আহ্বান জানালেন ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বী মিয়া। একইসঙ্গে সম্মেলন শেষ করে বন্যাকবলিত এলাকার মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য জেলা প্রশাসকদের নির্দেশনা দেন তিনি। ডিসিদের উদ্দেশে বলেন, আপনারা সম্মেলন শেষ করে স্ব স্ব এলাকায় গিয়ে বর্ন্যাতদের পাশে দাঁড়ান, তাদের উদ্ধার কাজে সহয়তা করেন।

বৃহস্পিতবার (১৮ জুলাই) জাতীয় সংসদের শপথ কক্ষে জেলা প্রশাসক সম্মেলন-২০১৯" এর অংশ হিসেবে ডেপুটি স্পিকারের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎকালে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন চিফ হুইপ নূর ই আলম চৌধুরী। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব এম শফিউল আলম।

ডেপুটি স্পিকার দেশের স্বার্থকে অগ্রাধিকার দিয়ে বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসকদের (ডিসি) কাজ করার আহবান জানান।

সাক্ষাৎ শেষে ডেপুটি স্পিকার তার সংসদ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের বলেন, আমি তাদের একটা কথাই বলেছি কে কোন দল করেন সেটা কোনো ব্যাপার না। মনে রাখতে হবে বাংলাদেশ না হলে আপনারা যে চেয়ারে বসে আছেন আমরা যে জায়গায় আছি এটা সম্ভব হত না। জাতির পিতার কন্যাই প্রথম আপনাদের বেতন ভাতা দ্বিগুণ করেছে। বিষয়টি মাথায় রেখে কাজ করতে হবে।

ডেপুটি স্পিকার বলেন, সরকারের নীতিনির্ধারকদের সঙ্গে মাঠপর্যায়ে নীতি বাস্তবায়নে জেলা প্রশাসক ও বিভাগীয় কমিশনারদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। আইন বিভাগের সঙ্গে নির্বাহী বিভাগের সমন্বয় খুবই গুরুত্বপূর্ণ- কারণ আইন প্রণয়নের পর সেটি মাঠ পর্যায়ে বাস্তবায়ন করেন কর্মকর্তারা।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ এগিয়ে যাচ্ছে। জনপ্রতিনিধিদের সহযোগিতায় জেলা প্রশাসকদের দায়িত্বশীল ভূমিকার মাধ্যমে অচিরেই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠিত হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

চিফ হুইপ নূর-ই আলম চৌধুরী বলেন, মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের দায়িত্বশীল ভূমিকা দেশের উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছেন।

সংসদ সচিবালয়ের পক্ষ থেকে "জাতীয় সংসদের স্থাপত্য শৈলী ও সংসদ কার্যক্রম" এর উপর একটি পাওয়ার পয়েন্ট উপস্থাপনা করা হয়।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন হুইপ আতিউর রহমান আতিক, হুইপ ইকবালুর রহিম,  হুইপ সামশুল হক চৌধুরী, জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত সচিব আ ই ম গোলাম কিবরিয়া, ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার জয়নুল বারী এবং বরগুনার জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ,সকল বিভাগীয় কমিশনারগণ, জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ ও জেলা প্রশাসকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মতামত লিখুন :

ময়মনসিংহে ১৫ জুয়াড়িসহ গ্রেফতার ২১

ময়মনসিংহে ১৫ জুয়াড়িসহ গ্রেফতার ২১
আটক হওয়া জুয়াড়িরা, ছবি: সংগৃহীত

ময়মনসিংহে পৃথক অভিযান চালিয়ে ১৫ জুয়াড়ি, ৫ মাদক ব্যবসায়ী ও ওয়ারেন্টভুক্ত এক আসামিকে গ্রেফতার করেছে ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। এসময় তাদের কাছ থেকে একটি প্রাইভেটকার ও ৪ হাজার ২১০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট জব্দ করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- জুয়াড়ি আবুল খায়ের (৩৮), ফজলুল হক (৫০), আল আমিন (৩৫), লিটন (৩৮), আব্দুল জলিল (৪০), হাসমত আলী (৩৮), তাইজুল ইসলাম (৪০), মুনসুর আলী (৩৮), শহিদুল্লাহ (৪৩), বাবুল আহম্মেদ (৪০), হাবিবুল্লাহ (৩২), মাসুদ (২৮), নজরুল ইসলাম (৪২), জাহাঙ্গীর আলম (২৪), রাকিবুল হাসান (২০), মাদক ব্যবসায়ী দেলোয়ার হোসেন (২১), রেজাউল করিম শাওন (৩২), রুহুল আমিন (২৬), রিপন (২০) এবং ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি মোজাম্মেল হক রাসেল (৩৬)।

রোববার (২৫ আগস্ট) বিকেলে ডিবি কার্যালয় থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ কামাল হোসেন আকন্দ জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় ডিবির বিশেষ অভিযানে ওই ২১ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এর মধ্যে ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার দত্তপাড়া থেকে রোববার (২৫ আগস্ট) ভোরে একটি জুয়ার আসর থেকে নগদ টাকা ও তাসসহ ১৫ জুয়াড়িকে গ্রেফতার করা হয়।

এর আগে শনিবার (২৪ আগস্ট) সন্ধ্যায় পৃথক অভিযানে ত্রিশাল উপজেলার কোনাবাখাইল এলাকা থেকে ১০ পিস ইয়াবাসহ একজন এবং রাতে ময়মনসিংহ শহরের পাটগুদাম এলাকা থেকে ৪ হাজার ২০০ পিস ইয়াবা ও একটি প্রাইভেটকারসহ চার মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করে ডিবি পুলিশ।

এছাড়াও একই দিন রাতে তিন মামলার ওয়ারেন্টভুক্ত আসামিকে সদরের বারুয়ামারি এলাকার নিজ বাড়ির পাশের একটি স্কুল থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

স্কুলছাত্রীকে গণধর্ষণের মামলায় ২ যুবক গ্রেফতার

স্কুলছাত্রীকে গণধর্ষণের মামলায় ২ যুবক গ্রেফতার
গণধর্ষণের মামলায় গ্রেফতারকৃত দুই যুবক, ছবি: সংগৃহীত

রংপুরে অষ্টম শ্রেণিতে পড়ুয়া এক স্কুলছাত্রীকে গণধর্ষণের মামলায় আলমগীর ও রুবেল নামে দুই যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

রোববার (২৫ আগস্ট) দুপুরে তাদেরকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পীরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সরেশ চন্দ্র।

তিনি জানান, গত শুক্রবার (২৩ আগস্ট) রাতে ওই স্কুলছাত্রী বাড়ির পেছনে টিউবওয়েলের পানি আনতে যায়। পানি নিয়ে ফিরে আসতে দেরি হলে অনেক খোঁজাখুজির পর নারকেল গাছ থেকে হাত পা বাধা অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করায় তার পরিবার। ঘটনার পর দিন কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে দু’জনের বিরুদ্ধে পীরগঞ্জ থানায় গণধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

তিনি আরও জানান, অভিযান চালিয়ে শনিবার রাত ৩টায় পীরগঞ্জের মিলনপুর গ্রাম থেকে আলমগীর ও রুবেল নামে দুই যুবককে গ্রেফতার করা হয়। তাদেরকে জেলা হাজতে পাঠানো হয়েছে।

তদন্ত করে বাকিদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান ওসি সরেশ চন্দ্র।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র