Barta24

শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ২০১৯, ৮ ভাদ্র ১৪২৬

English

কুকুরে কামড়ানোর দেশে পরিণত হয়েছে মিয়ানমার

কুকুরে কামড়ানোর দেশে পরিণত হয়েছে মিয়ানমার
মিয়ানমারের রাস্তা কুকুর/ছবি: সংগৃহীত
স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট
বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
ঢাকা


  • Font increase
  • Font Decrease

কুকুরে কমড়ানো রোগে আক্রান্তদের মধ্যে বিশ্বে অন্যতম শীর্ষ স্থানে রয়েছে মিয়ানমার। দেশটিতে প্রতিবছর প্রায় দেড় থেকে দুই লাখ মানুষকে কুকুর কামড়ায়।

মিয়ানমারের স্বাস্থ্য ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী ইউ মিন্ট সংবাদ মাধ্যমে এ তথ্য দিয়ে  বলেছেন, ১৫০ টিরও বেশি দেশের জলাতঙ্ক রোগের হিসেব পর্যালোচনা করে দেখা গেছে মিয়ানমারে কুকুরে কামড়ানোর সংখ্যা বেড়েই চলেছে। বিশ্বের মধ্যে মিয়ানমারে এ রোগের আক্রান্তের হার বেশ উপরে।

মিয়ানমারের স্বাস্থ্য ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী ১৮ জুলাই দেশটির সংসদে জানান, কুকুর কামড়ের সংখ্যা ক্রমবর্ধমান। ২০১৭ সালে এক লাখ ৮০ হাজার মানুষকে কুকুর কামড়িয়েছিলো। ২০১৮ সালে তা বেড়ে এক লাখ ৯২ হাজারের কাছাকাছি পৌঁছেছে। চলতি বছরের প্রথম ৫ মাসে ৬০ হাজার মানুষকে কুকুরে কামড়েছে।

তবে, প্রতিবছর মিয়ানমার জলাতঙ্ক রোগের টিকা কিনছে। ফলে এ রোগে আক্রান্তদের মৃত্যুর হার হ্রাস পাচ্ছে।

২০১১ সালে জলাতঙ্ক রোগে ১৪৫ জন মারা গিয়েছিল। সেখানে ২০১৮ সালে ৭১ এবং চলতি বছর ৪০ জন মারা গেছেন। জলাতঙ্ক রোগের জন্য ২০১৮-১৯ সালে ১৫ বিলিয়ন মিয়ানমার মুদ্রার ভ্যাকসিন কিনতে হয়েছে বলে তিনি জানান।

মিয়ানমারের স্বাস্থ্য মন্ত্রী বলেন,  শুধুমাত্র ভ্যাকসিন কিনেই জলাতঙ্ক  নিয়ন্ত্রণ করা যাবে না এবং মৃত্যুও কমাবে না। দেশবাপী  ছড়িয়ে পড়া কুকুরদের সংখ্যা কমিয়ে আনতে হবে।

জানা যায়, দেশটিতে ৬০ লাখ কুকুর রয়েছে। এরমধ্যে বেওয়ারিশ কুকুর ২০ লাখের বেশি। আর পোষা কুকুর রয়েছে ৪০ লাখ। মিয়ানমারে প্রতি ১০ জন ব্যক্তির জন্য একটা করে পোষা কুকুর রয়েছে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রী  আরও বলেন, জরুরিভিত্তিতে কুকুরদের খোজা করা দরকার। কারণ কুকুর না কমলে এ সংকট বাড়তেই থাকবে। এ জন্য সরকারি সংস্থাগুলোর  সহযোগিতা এবং জনসাধারণের সচেতনতা প্রয়োজন।

কুকুর কামড়ালে মানুষকে তাড়াতাড়ি চিকিৎসা নেওয়ার পরামর্শ দেন মিয়ানমারের স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

 

আপনার মতামত লিখুন :

রাজশাহীতে স্কুলছাত্রীকে অপহরণের চেষ্টা, গ্রেফতার ৩

রাজশাহীতে স্কুলছাত্রীকে অপহরণের চেষ্টা, গ্রেফতার ৩
অপহরণের অভিযোগে গ্রেফতারকৃত তিনজন, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

রাজশাহীতে স্কুল থেকে ফেরার পথে সপ্তম শ্রেণিতে পড়ুয়া এক ছাত্রীকে অপহরণের চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার (২২ আগস্ট) দুপুর ২টার দিকে হামিদপুর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ে ক্লাস শেষে স্কুল ছুটির পর নিজ বাড়িতে ফেরার পথে আমচত্বর থেকে ওই ছাত্রীকে তুলে নেওয়া হয়। পরে সন্ধ্যার দিকে নগরীর নওদাপাড়ায় ফেলে রেখে যায় তারা।

ভুক্তভোগী ছাত্রীর পরিবারের অভিযোগের প্রেক্ষিতে অভিযান চালিয়ে বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে তিন যুবককে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃতরা হলেন- নগরীর আমচত্বর এলাকার ওয়েল্ডিং মিস্ত্রী আতিকুর রহমান, সহযোগী শিমুল ও অটোরিকশা চালক ফয়সাল।

নগরীর শাহ মখদুম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এসএম মাসুদ পারভেজ বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে জানান, ছুটি শেষে বাড়ি ফেরার পথে প্রায়শ আমচত্বর এলাকার দোকানে কাজ করা ওয়েল্ডিং মিস্ত্রী আতিকুর ভুক্তভোগীকে বিরক্ত করতো। মাঝেমধ্যে প্রেমের প্রস্তাব দিতো।

বৃহস্পতিবারও সে প্রতিদিনের মতো দুপুর ২টার পর স্কুল শেষে বাড়ি ফেরার পথে আমচত্বর পৌঁছালে আতিকুর তার সহযোগি শিমুল ও অটোরিক্সা চালক ফয়সালের সহযোগীতায় জোরপূর্বক ভুক্তভোগীকে রাস্তা থেকে অটোতে তুলে নিয়ে চলে যায়।

ওসি আরও জানান, ওই ছাত্রী বাড়িতে না ফেরায় পরিবারের লোকজন বিষয়টি শাহমখদুম থানায় জানায়। মৌখিকভাবে জানানোর পর থেকেই পুলিশ তাকে উদ্ধারে তৎপরতা শুরু করে। তবে সন্ধ্যার দিকে অপহরণকারী বখাটেরা ওই ছাত্রীকে আমচত্বর ফেলে রেখে চলে যায়। ছাত্রীর কাছ থেকে পরিচয় জেনে পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাদের তিনজনকে আটক করে।

ওসি এসএম মাসুদ পারভেজ বলেন, ‘রাতে ওই ছাত্রীর মা সাহেব জানবিবি বাদী হয়ে তিন যুবকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে। মামলা গ্রেফতার দেখিয়ে আটককৃতদের আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হবে।’

যোগ্যতা নিয়েই রাজনৈতিক দলে অংশ নিতে চান খুলনার নারী নেত্রীরা

যোগ্যতা নিয়েই রাজনৈতিক দলে অংশ নিতে চান খুলনার নারী নেত্রীরা
খুলনায় নারী নেত্রীদের মতবিনিময় সভা, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

যোগ্যতা নিয়েই রাজনৈতিক দলের কার্যক্রমে অংশ নিতে চান খুলনার নারী নেত্রীরা। খুলনার নারী নেত্রীরা বলেছেন, স্বামী, সন্তান, সংসার, চাকরি সামলে নারীদের কাজ করতে হয়। তারপরও তারা এগিয়ে চলছে। তাই কোটা নয়, যোগ্যতার ভিত্তিতেই নারীরা এগিয়ে যাবে। রাজনৈতিক দলের কমিটিতে যোগ্যতার ভিত্তিতে ৩৩ শতাংশ নারীর অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে।

বৃহস্পতিবার (২২ আগস্ট) দুপুরে নগরীর উমেশচন্দ্র পাবলিক লাইব্রেরি মিলনায়তনে নারীর রাজনৈতিক ক্ষমতায়ন বিষয়ক মতবিনিময় সভায় এক মঞ্চে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির তৃনমূলের নারী নেত্রীরা এসব কথা বলেন। ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন।

খুলনা জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বিএমএ সালামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের বক্তব্য দেন, জেলা বিএনপির সভাপতি অ্যাড. এস এম শফিকুল আলম মনা, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাড. ফরিদ আহমেদ, নিমাই মন্ডল, জুবায়ের আহমেদ জবা, বিএনপি নেতা বিএম কামরুজ্জামান টুক, মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী অধ্যক্ষ দেলোয়ারা বেগম, হোসনে আরা চম্পা, মহিলা দলের জেলা সভাপতি অ্যাডভোকেট তসলিমা খাতুন ছন্দা, নারী নেত্রী শোভা রাণী হালদার প্রমুখ।

এতে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির নারী সংগঠনের অর্ধ শতাধিক প্রতিনিধি অংশ নেন।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র