৮ থেকে ১০ আগস্টের বাসের অগ্রিম টিকিট মিলছে না

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, ঢাকা
গাবতলী আন্তজেলা বাস টার্মিনাল। ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম।

গাবতলী আন্তজেলা বাস টার্মিনাল। ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম।

  • Font increase
  • Font Decrease

ঈদুল আজহা উপলক্ষে আগামী ৮, ৯, ১০ আগস্টের বাসের অগ্রিম টিকিট মিলছে না। শনিবার (২৭ জুলাই) ছিল বাসের অগ্রিম টিকিট বিক্রির দ্বিতীয় দিন।

সরেজমিনে গাবতলী আন্তজেলা বাস টার্মিনালে গিয়ে দেখা যায়, ৮, ৯, ১০ আগস্টের বাসের অগ্রিম টিকিট পেতে লাইনে দাঁড়িয়ে আছে যাত্রীরা। কিন্তু কোনো কাউন্টারে মিলছে না ওই সব দিনের টিকিট।

গাবতলী বাস টার্মিনাল ঘুরে আরও দেখা যায়, অগ্রিম টিকিটের জন্য আসা যাত্রীরা এ কাউন্টার থেকে ওই কাউন্টারে ঘুরছেন। কিন্তু কাউন্টারগুলোতে ওই সব তারিখের বাসের কোনো টিকিট নেই। কাউন্টারের পাশাপাশি যেসব নির্দিষ্ট বাসের অগ্রিম টিকিট অনলাইনে দেওয়া হয়েছে সেগুলোরও অগ্রিম বুকিং হয়ে গেছে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/27/1564205080226.jpg

রাশেদ হাসান নামের এক যাত্রী অভিযোগ করে বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে জানান, শুক্রবার অনেক ভিড় থাকায় আজ অগ্রিম টিকিট নিতে এসেছেন। তবে কোনো কাউন্টারে কাঙ্ক্ষিত দিনের টিকিট পাচ্ছেন না।

তিনি অভিযোগ করে জানান, অগ্রিম টিকিট বিক্রির শুরুর দিনই তার বেশিরভাগ চলে গেছে কালোবাজারিদের হাতে। তা না হলে আজ দ্বিতীয় দিনে ৮, ৯, ১০ তারিখের টিকিট শেষ হয়ে যাওয়া রহস্যজনক। দুইদিন পরে বাড়তি দামে এসব টিকিট বিক্রির পাঁয়তারা ছাড়া আর কিছুই নয়।

অগ্রিম টিকিট প্রত্যাশীদের আরেক যাত্রী রাশেদুল ইসলাম বলেন, ‘খুলনা যাওয়ার জন্য বাসের অগ্রিম টিকিট কাটতে শুক্রবার অনলাইনে চেষ্টা করেছিলাম। কিন্তু অনলাইনে ঢুকে দেখি সকল টিকিট বুকিং হয়ে গেছে। তারপর বাধ্য হয়ে আজ টিকিট কিনতে সরাসরি কাউন্টারে এসেছি। কিন্তু আমার কাঙ্ক্ষিত দিনের টিকিট কোনো কাউন্টার দিতে পারছে না।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/27/1564205098196.jpg

এসবি পরিবহনের বিক্রয় কর্মী তানিম আহমেদ বলেন, ‘ননএসি বাসের ৫, ৬, ৭, ১১ তারিখের কিছু টিকিট আছে। যার আসন হবে পেছনের দিকে। তবে এসি গাড়ির সব দিনের টিকিট শেষ হয়ে গেছে। আমাদের কোনো টিকিট কালোবাজারি হয় না।’

নাম প্রকাশ না করার শর্তে গাবতলীর এক কাউন্টার ম্যানেজার বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, ‘একটা বাসে ৩৬টি সিট থাকে। বিভিন্ন মহলের জন্য আমাদের কিছু টিকিট বরাদ্দ থাকে। কিছু টিকিট টেলিফোনে বুকিং হয়। এ কারণে সাধারণ যাত্রীদের জন্য খুব বেশি টিকিট অবশিষ্ট থাকে না। এ জন্যই সাধারণ যাত্রীরা পাচ্ছে না ৮, ৯, ১০ তারিখের কাঙ্ক্ষিত টিকিট।’

আপনার মতামত লিখুন :