গাবতলীতে বাস ভাড়ায় নৈরাজ্য, বাস আটক

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, ঢাকা
ভাড়া বেশি নেওয়ায় বাস চালক আটক, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

ভাড়া বেশি নেওয়ায় বাস চালক আটক, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

ঈদে ঘরমুখো মানুষকে জিম্মি করে খেয়াল খুশিমতো ভাড়া নিচ্ছে পরিবহনগুলো। বিশেষ করে লোকাল বাসগুলো। যাত্রীসেবা, অগ্রদূত, আলিফ, ভিলেজ লাইন, গোল্ডেন লাইনসহ অধিকাংশ গাড়িতেই চলছে ভাড়া নৈরাজ্য। জিম্মি করে বেশি ভাড়া আদায় করছে বলে অভিযোগ জানিয়েছেন যাত্রীরা।

গাবতলী থেকে দূরত্ব আনুমানিক ৭০ কিলোমিটার। অন্যান্য সময় ভাড়া নেওয়া হয়, মাত্র ৯০ টাকা। আর ঈদের আগে সেই ভাড়া হয়ে গেছে ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা। যে যার খুশিতে ভাড়া নিচ্ছে।

যাত্রীদের অভিযোগের ভিত্তিতে রংপুরগামী আলিফ পরিবহনকে আটক করে পুলিশ। রংপুরে অন্য সময় ভাড়া ৭০০ থেকে ৮০০ টাকা। সেটা এখন ১৩০০ টাকা হয়ে গেছে।

যাত্রীদের অভিযোগের ভিত্তিতে গাড়ি চালক রফিককে আটক করা হয়। পরিবহন মালিক সমিতির লোক পুলিশকে ম্যানেজ করার প্রস্তাব করায় ক্ষিপ্ত হন এসআই মাহবুব। তিনি বলেন, 'ম্যানেজ করব, চলেন থানায় চলেন'।

এই কথা বলে হেলপারের কলার ধরে টেনে নিয়ে যেতে থাকেন এসআই মাহবুব। এরপর শাহ আলী থানার ওসি মো. দুলাল হোসেন এসে গাড়ি থানায় যেতে অর্ডার দেন।

ওসি দুলাল হোসেন বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে বলেন, 'আমরা যাত্রীদের অভিযোগের ভিত্তিতে ব্যবস্থা নিচ্ছি। আলিফ পরিবহন ৬০০ টাকার ভাড়া ১৩০০ টাকা নেওয়ার অভিযোগে আটক করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।'

বাড়তি ভাড়া আদায়ের অভিযোগ করেন কুষ্টিয়াগামী হেমায়েতুল্লাহ হিমেল। তিনি বলেন, 'পাটুরিয়াঘাট যাব, ভাড়া নরমালি ৯০ টাকা, অগ্রদূত পরিবহন সেই ভাড়া ৪০০ টাকা চাচ্ছে। একইভাবে যাত্রী সেবাও ৩০০ টাকা ভাড়া নিচ্ছে। আমি নিরুপায় তাই বাড়তি ভাড়া দিয়ে যেতে হচ্ছে। আমার কথা হচ্ছে, বাড়তি ভাড়া নিলেও তারা তো লোকালভাবেই যাচ্ছে। গাড়িতে লোক দাঁড়ানোর জায়গা নেই।'

আপনার মতামত লিখুন :