loader
Foto

৪ মাস বেতন পান না মোচিকের শ্রমিক-কর্মচারীরা

ঝিনাইদহ: চিনির দাম কেজি প্রতি ৫ টাকা কমানোর পরও ঝিনাইদহের মোবারকগঞ্জ চিনি কলের (মোচিকে) মজুদ চিনি বিক্রি হয়নি। যে কারণে মিলের শ্রমিক কর্মচারীরা ৪ মাস ধরে বেতন ভাতা পান না। এতে করে তারা মানবেতর জীবনযাপন করছে।

মিল সূত্রে জানা যায়, মোবারকগঞ্জ চিনিকলে ৩৫ কোটি টাকা মূল্যের ৫ হাজার ৮শ ৬২ টন চিনি মজুদ রয়েছে। এ চিনি বিক্রি না হওয়ায় শ্রমিক কর্মচারীরা ৪ মাস ধরে বেতন ভাতা পান না।  চিনি কলের প্রতি কেজি চিনির দাম ছিল ৬০ টাকা। অর্থাৎ প্রতি টন ৬০ হাজার টাকা। কর্তৃপক্ষ চিনি বিক্রি বাড়ানোর জন্য প্রতি কেজির দাম ৫ টাকা কমিয়ে ৫৫ টাকা ধার্য করে। তাতেও সাড়া মিলে না। ৩ দিনে মাত্র ১৩২ টন বিক্রি হয়। বর্তমানে আবারো চিনির দাম বাড়িয়ে ৬০ টাকা কেজি দরে খোলা বাজারে বিক্রি করা হচ্ছে।

জেলার হাট বাজারে আমদানিকৃত ও দেশের রিফাইনারি গুলোর উৎপাদিত চিনি বর্তমানে খুচরা প্রতি কেজি ৫৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। মিলের চিনি লালচে রঙ হওয়ায় ক্রেতা সাধারনের কাছে চাহিদা কম। চিনির বড় ক্রেতা মিষ্টি তৈরির কারিগররা। তাদের একজন জানান, মিলের চিনির রঙ লালচে হওয়ায় মিষ্টি লালচে রঙয়ের হয়। ক্রেতারা পছন্দ করে না। সেজন্য তারা বে-সরকারি রিফাইনারির তৈরি সাদা চিনি ব্যবহার করে থাকেন।

এদিকে চিনি বিক্রি না হওয়ায় বেতন পাচ্ছে না মিলের শ্রমিক কর্মচারীরা। শ্রমিক আলিম উদ্দিন জানান, ৪ মাস বেতন না পাওয়ায় মানবেতর জীবনযাপন করছেন। ছেলে মেয়েদের পড়ার খরচ যোগাতে পারছেন না। দোকানদাররা আর বাকি দিতে চাচ্ছে না।

মিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইউসুফ আলি শিকদার জানান, প্রায় ৬ হাজার টন চিনি অবিক্রিত রয়েছে। মিলটি চরম অর্থ সংকটে পড়েছে। মজুদ চিনি বিক্রির চেষ্টা চলছে। শ্রমিক কর্মচারীরা ৪ মাস ধরে বেতন ভাতা পান না।

Author: কান্ট্রি ডেস্ক, বার্তা২৪.কম

barta24.com is a digital news outlet

© 2018, Copyrights Barta24.com

Editor in Chief: Alamgir Hossain

Email: [email protected]

[email protected], [email protected]

+880 1707 082 000

8/1 New Eskaton Road, Gausnagar, Dhaka-1000, Bangladesh