সিলেটে প্রতিশোধের আগুনে পুড়ছে জামায়াত

নূর আহমদ, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease
সিলেট: সিলেটে প্রতিশোধের আগুনে পুড়ছে জামায়াত। বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের অন্যতম প্রধান শরিক দল জামায়াত। তবে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এই দুই দলের অনৈক্য এখন দৃশ্যমান। অভিযোগ উঠেছে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নিজেদের প্রার্থীর পরাজয়ের প্রতিশোধ নিতে জামায়াত সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে প্রার্থী দিয়েছে।
 
সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে প্রার্থী মনোনয়নে শুরু থেকে ২০ দলীয় জোটের অন্যতম প্রধান শরিক দল জামায়াতে ইসলামী মেয়র পদে প্রার্থী দেয়ার দাবি তুলে। কিন্তু যেখানে বর্তমান মেয়র রয়েছে সেখানে অন্য দলের প্রার্থীকে সমর্থন দেয়ার বিষয়টি এড়িয়ে যাচ্ছিলেন বিএনপি নেতারা। বসে থাকেনি জামায়াত। নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর সিলেট মহানগর জামায়াতের আমির এহসানুল মাহবুব জুবায়েরকে নিজেদের প্রার্থী ঘোষণা করে মনোনয়নপত্র জমা দিয়ে পুরোদমে এখন মাঠে। 
 
বিগত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দক্ষিণ সুরমা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে জামায়াত নেতা মাওলানা লোকমান আহমদ ২য় মেয়াদে প্রার্থী হন। এর আগে তিনি এই পরিষদের নির্বাচিত চেয়ারম্যান ছিলেন। এই নির্বাচনে বিএনপির সিলেট জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদও প্রার্থী হন। নির্বাচনে দুজনই ফেল করেন। এরপর থেকে জামায়াত তাদের প্রার্থী ফেল করার জন্য বিএনপিকে দায়ী করে আসছে। জামায়াতের দাবি, বিএনপি তখন ছাড় দিলে তাদের প্রার্থীকে ফেল করতে হতো না। 
 
সেই প্রতিশোধ নিতে সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বেঁকে বসেছে জামায়াত। বিএনপির মেয়র থাকা সত্ত্বেও তারা প্রার্থিতা ঘোষণা করে। মেয়র আরিফকে মনোনয়ন দিয়ে যখন বিএনপি মাঠে তখন জামায়াত তাদের প্রার্থী নিয়েও মাঠে কাজ করছে। আরিফের নির্বাচনী প্রস্তুতি নিতে বিএনপি গত ২ জুলাই ২০ দলীয় জোটের ব্যানারে সভা আহ্বান করলেও জামায়াত সেই সভায় আসেনি। 
 
২০ দলীয় জোট সিলেটের সদস্য সচিব জামায়াত নেতা হাফিজ আব্দুল হাই হারুন জানান, সিলেট সিটি জামায়াতকে ছেড়ে দেয়ার জন্য বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে দাবি জানানো হয়েছে। জামায়াতের কেন্দ্রীয় নেতাদের নির্দেশে এহসানুল মাহবুব জুবায়ের প্রার্থী হয়েছেন এবং থাকবেন।
 
২০ দলীয় জোট সিলেটের আহ্বায়ক ও সিলেট মহানগর সভাপতি নাসিম হোসেইন বলেন, স্থানীয় ও কেন্দ্রীয়ভাবে সমন্বয় করার চেষ্টা চলছে। এখন পর্যন্ত কোনো ফলাফল আসেনি। তবে আশা করছি, শেষ মুহূর্তে হলেও একটা সমাধান আসবে। 
 

আপনার মতামত লিখুন :