ইসিতে বুলবুলের ৬ অভিযোগ, লিটনের ৫৩

ডিস্ট্রিক করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

রাজশাহী: রাজশাহী সিটি নির্বাচনে প্রচারণার শুরু থেকেই আওয়ামী লীগ ও বিএনপির দুই মেয়র প্রার্থীর পক্ষ থেকে নির্বাচন কমিশনে (ইসি) জমা পড়েছে ৫৯টি অভিযোগ। আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে করা হয়েছে ৫৩টি এবং বিএনপির প্রার্থীর পক্ষ থেকে করা হয়েছে ছয়টি অভিযোগ।

এসব অভিযোগের মধ্যে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থীর পক্ষ থেকে বিএনপির চেয়ে ৬ গুণ বেশি অভিযোগ করা হয়েছে। তবে এর পরেও আওয়ামী লীগ দাবি করছে, নির্বাচনী পরিবেশ সুষ্ঠু আছে। যদিও বিএনপির নেতাকর্মীরা এই পরিবেশ বিনষ্ট করার চেষ্টা করছে বলেও অভিযোগ করা হচ্ছে।

অন্যদিকে বিএনপি মাত্র ছয়টি অভিযোগ করলেও দলটির পক্ষ থেকে ‘নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ নাই’ বলে দাবি করা হয়েছে। দলটি বলছে, নির্বাচন কমিশন এবং পুলিশ কাজ করছে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থীর হয়ে। এর ফলে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরাও পুলিশের ভূমিকা পালন করছে।

এদিকে অভিযোগ-পাল্টা অভিযোগের মধ্যেও নীরব রয়েছে নির্বাচন কমিশন। এতো অভিযোগের পরও কোনো পদক্ষেপ নিতে দেখা যায়নি।

এসব বিষয়ে রাজশাহী সিটি নির্বাচনের দায়িত্বপ্রাপ্ত রিটার্নিং অফিসার সৈয়দ আমিরুল ইসলাম বলেন, ‘রাজশাহীতে এখনো নির্বাচনী পরিবেশ স্বাভাবিক রয়েছে। আমাদের এখতিয়ারের মধ্যে থাকা বিষয়গুলো খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে এখনো বড় কোনো আচরণ ভঙ্গের অভিযোগ পাওয়া যায়নি।’

বিএনপি মেয়র প্রার্থী বুলবুল বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন সরকারের আজ্ঞাবহ হয়ে কাজ করছে। তাদের কাছে বারবার লিখিত অভিযোগ করেও কোনো লাভ হচ্ছে না। তারা কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছে না। এ অবস্থা চলতে থাকলে নির্বাচন কোনো ভাবেই সুষ্ঠু ও অবাধ হবে না।‘

আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে যে ৫৩টি অভিযোগ করা হয়েছে তার মধ্যে রয়েছে বিএনপির কর্মী-সমর্থকরা আওয়ামী লীগের নারী কর্মীদের যৌন হয়রানি করা, সংখ্যালঘুদের ভয়ভীতি দেখানো, অপপ্রচার, পোস্টার ছিঁড়ে ফেলা এবং নির্বাচন অফিস ভাঙচুর ইত্যাদি।

সর্বশেষ বিএনপির মেয়র প্রার্থীর বিরুদ্ধে নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ নষ্ট করার অপচেষ্টাসহ নানা অভিযোগ তুলে মহানগর আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এস এম কামাল হোসেন বলেন, ‘বিএনপির কাজই হল মিথ্যা প্রচারণা করা। তারা সারা দিন মিথ্যা কথা বলে, মিথ্যা অপবাদ ছড়িয়ে রাতে ঘুমাতে যায়। কাজেই তাদের কথার কোনো মূল্য নাই।’

আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী লিটন বলেন, ‘ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা প্রতিনিয়ত আমার নেতাকর্মীদের নানাভাবে হুমকি দিচ্ছে। এমনকি ভোট না দিলে দেশছাড়া করবে বলেও হুমকি দিচ্ছে। এসব নিয়ে আমরা নির্বাচন অফিসে অভিযোগ করেও কোনো প্রতিকার পাইনি। তবে নির্বাচনী পরিবেশ সুষ্ঠু আছে।’

আপনার মতামত লিখুন :