ঈদে দক্ষিণাঞ্চলে যাত্রীসেবায় ৩৬ নৌযান

ডিস্ট্রিক করেসপন্ডেন্ট

  • Font increase
  • Font Decrease

বরিশাল: ঈদ উল আজহা উপলক্ষে আগামী ১৮ আগস্ট থেকে শুরু হচ্ছে লঞ্চের ঈদ স্পেশাল সার্ভিস। ঈদের দিনসহ দুইদিন বাদে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত চলবে এই স্পেশাল সার্ভিস।

বিআইডব্লিউটিএ বরিশাল অফিস সূত্রে জানা গেছে, এবারের ঈদে ঢাকা-বরিশাল নৌ রুটে ৩০টি বেসরকারি লঞ্চ যাত্রী সেবায় নিয়োজিত থাকছে। এর মধ্যে ২২টি ঢাকা-বরিশাল নৌ রুটের এবং অপর ৮টি ভায়া রুটে স্পেশাল সার্ভিসে থাকবে। অপরদিকে সরকারি জাহাজ ও স্টিমার সার্ভিসে ৬টি নৌযান প্রস্তুত রেখেছে বিআইডব্লিউটিসি কর্তৃপক্ষ।

এবারের ঈদে স্পেশাল সার্ভিসে যেসব লঞ্চ থাকবে সেগুলো হল- এমভি সুরভী ৭, ৮ ও ৯, এমভি সুন্দরবন ৮,১০ ও ১১, এমভি পারাবাত ৮, ৯, ১০, ১১ ও ১২, এমভি কামাল ১, এমভি কীর্তনখোলা ১০ ও ২, এমভি দীপরাজ, এমভি টিপু ৭, এমভি ফারহান ৮, এমভি কালাম খান ১, এমভি অ্যাডভেঞ্চার ১ ও ৯, গ্রিন লাইন ওয়াটার ওয়েজ ২ ও ৩।

এগুলো ঢাকা-বরিশাল রুটে সরাসরি স্পেশাল সার্ভিস দিলেও আরও ৮টি লঞ্চ ভায়া রুটে স্পেশাল সার্ভিস দেবে বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

বিআইডব্লিউটিসি সূত্রে জানা গেছে, জাহাজ এমভি বাঙালি ও মধুমতি ছাড়াও স্টিমার সার্ভিসে পিএস মাহসুদ, লেপচা, অস্ট্রিট, টার্ন নামে ৬টি নৌযান থাকছে। নৌযান গুলো ১৬ থেকে ২৮ আগস্ট পর্যন্ত ঈদ স্পেশাল সার্ভিসে যাত্রীসেবা দিবে।

বরিশাল বিআইডব্লিউটিএর নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিভাগের উপ পরিচালক আজমল হুদা মিঠু সরকার জানান, ঈদ উপলক্ষে যাত্রীদের নিরাপত্তায় প্রায় সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। এছাড়া যাত্রীদের নিরাপত্তায় মিয়ারচর রুট বাদ দিয়ে লঞ্চের মাস্টারদের কালীগঞ্জ রুট ব্যবহারের জন্য বলা হয়েছে। চালকদের পাশাপাশি মালিক ও যাত্রীদের উদ্দেশে ১৫টি সতর্কতা অবলম্বনের জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

পাশাপাশি ঈদের আগে এবং পরের ৭ দিন অর্থাৎ ১৪ দিন নদী বাল্কহেড চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। আশা করা যায় এবারেও নির্বিঘ্নে ঈদ পালন করতে বরিশালে আসতে পারবে সাধারণ যাত্রীরা।

 

আপনার মতামত লিখুন :