মন ভালো নেই আমন চাষিদের

ডিস্ট্রিক করেসপন্ডেন্ট
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

 

খুলনা: ‘মাছে-ভাতে বাঙালির প্রধান খাদ্য ভাতের মূল উৎস আমন ধান। বৃষ্টির অভাবে এবার আমন ধানের ক্ষেত শুকিয়ে যাচ্ছে। সেচ দিয়েও জমিতে পানি ধরে রাখা যাচ্ছে না। তাই মনটা ভালো নেই, খুব দুশ্চিন্তা হচ্ছে! এবার খরচের টাকা উঠবে তো?’

কেমন আছেন জানতে চাইলে বার্তা২৪.কমকে উপরোক্ত কথাগুলো বলছিলেন বর্গাচাষি মো. সিদ্দিক।

ধান ক্ষেতে বালতিতে করে পানি দেয়ার সময় একটু থেমে আকাশের দিকে তাকিয়ে দীর্ঘশ্বাস ছাড়লেন সিদ্দিক। এ দীর্ঘশ্বাস শুধু বর্গাচাষি সিদ্দিকের নয়, খুলনা জেলার প্রায় ৮০ হাজার আমন চাষির। প্রয়োজনের তুলনায় বৃষ্টিপাত আশঙ্কাজনক কম হওয়ায় অর্ধেকেরও বেশি চাষি এখনো আমন চাষ করতে পারেনি।

চাষিরা জানায়, আমন ধান তিন মাসের ফসল। যারা নিজস্ব সেচ ব্যবস্থায় আগেভাগে চাষাবাদ করেছে তাদের ধানের চারার বয়স দেড়মাস। আবার অর্ধেকেরও বেশি কৃষক এখনো চারা রোপন করেনি বলেও জানায় তারা।

হতাশার ভাজ নিয়ে আমন চাষি মোজাম শেখ ও সুবোধ মণ্ডল বলেন, ‘আমরা আকাশের দিকে তাকিয়ে জমিজমা চাষ করি। কখন বৃষ্টি হবে। এবার সময় মতো বৃষ্টি না হওয়ায় ধান নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছি। গতবারও আমনের ভালো দাম পেয়েছিলাম। এবার খরচের টাকা উঠবে কিনা সেই চিন্তায় আছি!’

খুলনা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. আব্দুল লতিফ বার্তা২৪.কমকে জানান, খুলনাতে এবার আমন চাষের লক্ষ্যমাত্রা ৯০ হাজার ১৯২ হেক্টর। কিন্তু এ পর্যন্ত ৪১ হাজার হেক্টর জমিতে চাষাবাদ হয়েছে। বৃষ্টিহীনতার কারণে চাষাবাদে বিলম্ব করছে চাষিরা। তবে সমস্যা হবে না।

খুলনা অঞ্চলের বেশিরভাগ চাষি চাষ করেন বিআর-২৩ জাতের ধান। এ জাতের ধান আশ্বিন মাসেও চাষ করা যায়। তবে জুলাই থেকে আগস্ট আমন ধান চাষের আদর্শ সময়। খুলনাতে প্রায় ৮০ হাজার আমন চাষি রয়েছে বলে জানান তিনি।

খুলনা আঞ্চলিক আবহাওয়া কার্যালয়ের ইনচার্জ মো. আমিরুল আজাদ জানান, খুলনায় এ বছরের জুনে ২৬৬ মি.মি, জুলাইয়ে ২৬৪ মি.মি ও চলতি মাসের (আগস্ট) এ পর্যন্ত মাত্র একশ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে। গত বছরের জুনে
৩৫৬ মি.মি, জুলাইয়ে ৬৮৯মি.মি ও আগস্টে ৩১১ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছিল। সে হিসেবে এ বছর বৃষ্টিপাত অর্ধেকেরও কম। তবে উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপের সৃষ্টি হয়েছে। এ জন্য সমুদ্র বন্দরকে তিন নাম্বার সতর্কতা সংকেত
দেখাতে বলা হয়েছে। আগামী দুই-একদিনের মধ্যে লঘুচাপ বাংলাদেশের দিকে অগ্রসর হলে খুলনা অঞ্চলে বৃষ্টিপাত হবে।

আপনার মতামত লিখুন :