সুখ-সাচ্ছন্দ্যের প্রলোভনে তরুণীদের সৌদি আরব নিত সোহাগ

ডিস্ট্রিক করেসপন্ডেন্ট,বার্তা২৪.কম
সুখ-সাচ্ছন্দ্যের তরুণীদের টার্গেট করে বিভিন্ন দেশে বিক্রি করে আল মামুন ওরফে কামরুজ্জামান ওরফে সোহাগ বাবু।

সুখ-সাচ্ছন্দ্যের তরুণীদের টার্গেট করে বিভিন্ন দেশে বিক্রি করে আল মামুন ওরফে কামরুজ্জামান ওরফে সোহাগ বাবু।

  • Font increase
  • Font Decrease

খুলনা: ভাল বেতনের চাকরিতে সুখ-সাচ্ছন্দ্যের জীবন-জীবিকার প্রলোভনে সুন্দরী তরুণীদের টার্গেট করে বিভিন্ন দেশে বিক্রি করে আল মামুন ওরফে কামরুজ্জামান ওরফে সোহাগ বাবু। সম্প্রতি এক তরুণীকে সৌদি আরবে মোটা অংকের টাকায় বিক্রি করেছে সে। প্রথম পার্টির হাত বদল হয়ে পুনরায় বিক্রি হয়েছে তরুণী। সেখানেই দিনের পর দিন তরুণীর উপর চলছে যৌন নির্যাতন।

বৃহস্পতিবার (৩০ আগস্ট) আদমপাচারকারী আল মামুনকে গ্রেফতারের পর এসব তথ্য জানতে পেরেছে র‌্যাব-৬। কোম্পানি কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ এনায়েত হোসেন মান্নান এসব তথ্য জানান।

তিনি বলেন, গোপন খবরের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে মহানগরীর সোনাডাঙ্গা বাস টার্মিনাল এলাকা থেকে মানবপাচারকারী আল মামুন ওরফে কামরুজ্জামান ওরফে সোহাগ বাবুকে গ্রেফতার করা হয়। সে খুলনার টুটপাড়ার জোড়াকল বাজারের বাসিন্দা আব্দুল খালেকের ছেলে। তার বিরুদ্ধে সাতক্ষীরা সদর থানায় গত ২৯ আগস্ট মানবপাচারের অভিযোগে মামলা হয়েছে (যার নং-৮০)।

র‌্যাব কর্মকর্তারা জানান, মানবপাচারকারী আল মামুন সাতক্ষীরা এলাকাসহ খুলনা বিভাগের বিভিন্ন স্থান থেকে সহজ সরল গরীব তরুণীদের বিদেশে ভাল চাকরি দেয়ার প্রলোভনে সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে দেহ ব্যবসার জন্য বিক্রি করেছে।

গ্রেফতারের পরে মানব পাচার মামলারবাদী ও আসামীর দেয়া তথ্যমতে, মামলার বাদীর মেয়েকে সৌদি আরবের দালালদের কাছে বিক্রি করলে সৌদি আরবের দালালরা আবার সেখানকার বিভিন্ন দালালদের নিকট বিক্রি করে। তারা হোটেলে ও বাসা বাড়িতে রেখে বাদীর মেয়েকে ব্যাপক যৌন নির্যাতন করে। তাকে নির্যাতনের কথা মামলার ভিকটিম তার অভিভাবককে ইমো’র মাধ্যমে জানায় ও ভয়েস রেকর্ডিং পাঠায়। ভিকটিম মেয়েটি একইদিনে ধর্ষণের নির্মম তথ্য জানায়।

এছাড়া ভিকটিম তরুণী বিপদের কথা বলে পাচারকারী আল মামুনের কাছে ফোন করলে সে ভুক্তভোগী মেয়েটির কাছে চাল লাখ টাকা দাবি করে। লোমহর্ষ এ মানবপাচার মামলাটি সাতক্ষীরা সদর থানায় তদন্ত করছে বলে জানিয়েছেন র‌্যাব-৬।

আপনার মতামত লিখুন :