গাইবান্ধায় শেষ মুহূর্তের প্রচারণায় প্রার্থীরা

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
গাইবান্ধায় শেষ মুহূর্তের প্রচারণায় ব্যস্ত প্রার্থীরা/ ছবি: বার্তা২৪.কম

গাইবান্ধায় শেষ মুহূর্তের প্রচারণায় ব্যস্ত প্রার্থীরা/ ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

নির্বাচন কমিশনের (ইসি) নির্দেশ অনুযায়ী ২৮ ডিসেম্বর শুক্রবার সকাল ১২টা পর্যন্ত চলবে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা। এর পর প্রচারের কোনো সুযোগ না থাকার ফলে গাইবান্ধা জেলার চারটি আসনের পৌনে ১৪ লাখ ভোটারের পিছু ছুটছেন ২৯ জন প্রার্থী। ভোটের মাঠে প্রার্থী ও সমর্থকদের পদচারণায় মুখর হয়ে উঠেছে।

তীব্র শীত উপেক্ষা করে ভোটারদের মাঝে নানা প্রতিশ্রুতির ভাণ্ডার নিয়ে হাজির হচ্ছেন প্রার্থীরা। বেটী-জামাই আদরে কুশল বিনিময়ে ভোটারদের আকৃষ্ট করতে বিভিন্ন ধরণের কৌশল অবলম্বন করছেন।

আগামী ৩০ ডিসেম্বর একাদশ সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। এ নির্বাচনে বিজয় ছিনিয়ে নিতে ইতোমধ্যে গাইবান্ধা জেলার প্রার্থীরা ভোট প্রার্থনায় আশ্বাসের ফুলঝুড়ি নিয়ে প্রচারণা চালাচ্ছেন। সবমিলে নির্বাচনী উৎসবে মেতে উঠেছে গাইবান্ধা।

হাটে-বাজার, গ্রাম গঞ্জের রাস্তায় দুলছে প্রার্থীদের পোস্টার। বিকট শব্দে চলছে মাইকিং। উন্নয়নের প্রচারে লিফলেট বিতরণসহ পথসভা, উঠান বৈঠক অব্যাহত রেখেছেন প্রার্থীরা। এ সময় ভোটারদের জীবনমান উন্নয়নে নানা আশ্বাস দিচ্ছেন প্রার্থীরা। ভোটারেরা এখন জামাই আদরে রয়েছেন। নির্বাচনের দিন যতই ঘনিয়ে আসছে, ভোটারদের কদর ততই বাড়ছে।

আজ শেষ দিনে  প্রচার-প্রচারণা সরব হয়ে উঠেছে। থেমে নেই প্রার্থীরা। কোমর বেধে বিরামহীন গতিতে চালিয়ে যাচ্ছেন গণসংযোগ। তাদের কর্মী-সমর্থক নিয়ে ভোরে সূর্য উঠার সাথে সাথেই বেড়িয়ে পড়ছেন ভোট প্রার্থনায়। অনেক প্রার্থী একাধিক ফেসবুক একাউন্ট খুলেও নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছেন।

এদিকে সাধারণ ভোটারদের অভিযোগ, নির্বাচন উপলক্ষে দলীয় নেতাকর্মীদের পকেট ভারী হলেও ভোটারদের কপালে এক কাপ চা পর্যন্ত জুটছে না। তাই ভোটারদের স্লোগান- ‘কেউ খাবে কেউ খাবে না, তা হবে না তা হবে না’।

আপনার মতামত লিখুন :