কাঁকড়ার পেটে গ্রামীন রাস্তা!

মাটি বহনকারী এই গাড়িগুলোতেই গ্রামীণ রাস্তায় বেশিরভাগ গর্ত তৈরি হয়, ছবি: বার্তা২৪

তোফায়েল হোসেন জাকির, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, গাইবান্ধা, বার্তা২৪.কম

গাইবান্ধা জেলায় দানব পরিবহন হিসেবে খ্যাত কাঁকড়া (ট্রাক্টর)। এই দানবরুপি কাঁকড়াগুলো হরহামেশাই চলতে গিয়ে রাস্তা-ঘাট ভেঙ্গে হাঁটু গর্তে পরিণত হচ্ছে। এছাড়া অদক্ষ চালকরা বেপরোয়া ভাবে গাড়ি চালানোর কারণে ছয় চাকার নিচে পড়ে অকালে নিভে যাচ্ছে অনেক প্রাণ।

সম্প্রতি শুকনো মৌসুমে জেলার গ্রাম-গঞ্জে মাটি বহনের কাজে এসব কাঁকড়া নির্বিকারে চলাচলে ধুলা-বালিতে এলাকার পরিবেশ দূষণ হচ্ছে। সেই সাথে গ্রামাঞ্চলের রাস্তা-ঘাটের যেমন ক্ষতি হচ্ছে, তেমনি অবাধে চলাচল করায় অঘটনের আশঙ্কা জাগছে জনসাধারণের মনে। ফলে মানুষকে সবসময় আতঙ্কের মধ্যে থাকতে হয়। কখন যেন কাঁকড়া আসে এমন ভীতি বিরাজ করে পথচারীদের মনে।

প্রশাসন কর্তৃক দিনের বেলায় কাঁকড়া চলাচল নিষিদ্ধ করা হলেও রহস্যজনক কারণে অবাধে চলাচল করতে দেখা গেছে গাইবান্ধা জেলা সদরের বোয়ালী ও সাদুল্লাপুর উপজেলাসহ বিভিন্ন উপজেলায়। দানব পরিবহন হিসেবে খ্যাত এই কাঁকড়াগুলো বেপরোয়া চলাচল করার ফলে বেড়ে গেছে দুর্ঘটনা।

ভুক্তভোগী শাহিন মিয়া ও খলিলুর রহমান জানান, এলাকার প্রভাবশালী মহলের ক্রয়কৃত এসব কাঁকড়া জমি থেকে মাটি কেটে বিভিন্ন ইটভাটায় বহন করা হচ্ছে। এতে করে যেমন নিচু হচ্ছে জমি, অপরদিকে ভেঙ্গে যাচ্ছে গ্রাম-শহর যোগাযোগের রাস্তাঘাট। নষ্ট হচ্ছে পরিবেশ। অকালে নিভে যাচ্ছে তাঁজা প্রাণ।

তাদের অভিযোগ, দানব পরিবহন কাঁকড়া গাড়ির মালিকরা স্থানীয় প্রশাসনকে ম্যানেজ করে রাস্তার রাজা হিসেবে নির্বিকারে গাড়ী চালিয়ে আসছে। ফলে এসব গাড়ি থেকে রাস্তা-ঘাট রক্ষা কিংবা প্রাণ রক্ষা করা সম্ভব নয়।

কাঁকড়া মালিক মোকছেদুল ইসলাম বলেন, 'মাটি বহনের কাজে গাড়ি চলতে গিয়ে যে সমস্ত রাস্তা খারাপ বা গর্তের সৃষ্টি হয় সেখানে আমরা পুনঃরায় মাটি ভরাট করে ঠিক করে দেই। যাতে করে মানুষের চলাচলে বিঘ্ন না ঘটে এবং রাস্তা খারাপ না থাকে। এ বিষয়ে খেয়াল রাখা হচ্ছে।'

গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রহিমা খাতুন বলেন, 'ওইসব কাঁকড়া রাস্তায় চলাচলে মালিকদের বিভিন্ন নির্দেশনা দেয়া আছে। কোনো রাস্তা নষ্ট না হয় এবং দুর্ঘটনা এড়াতে যানজটের সৃষ্টি না হয়, এ বিষয়ে কঠোর নজরদারি রাখা হয়েছে। নির্দেশনা অমান্য গাড়ির চালক বা মালিকদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

 

জেলা এর আরও খবর