Barta24

মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০১৯, ১ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

বিএনপির কার্যালয়ে রেস্টুরেন্টের সাইনবোর্ড!

বিএনপির কার্যালয়ে রেস্টুরেন্টের সাইনবোর্ড!
ঝালকাঠি জেলা বিএনপির কার্যালয়ে হোটেলের সাইনবোর্ড/ছবি: বার্তা২৪
অলক সাহা
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
ঝালকাঠি


  • Font increase
  • Font Decrease

ঝালকাঠি জেলা বিএনপির প্রধান কার্যালয়ে আরাফাত হোটেল অ্যান্ড রেস্টুরেন্টের সাইনবোর্ড লাগিয়ে দেয়া হয়েছে। ভাড়া বকেয়া থাকা ভবন কর্তৃপক্ষ এ সাইনবোর্ড লাগিয়েছে বলে জানা গেছে।

জেলা বিএনপির কার্যালয়ের আসবাবপত্র বের করে দিয়ে তালা ঝুলিয়েছে ভবন মালিকপক্ষ। ফলে দলীয় কার্যক্রম পরিচালনা করার মতো এখন আর কোনো অফিস ঘর নেই ঝালকাঠি জেলায়। এতে হতাশা প্রকাশ করেছেন দলের নেতাকর্মীরা।

গত শুক্রবার বিকালে শহরের ফায়ার সার্ভিস মোড়ে অবস্থিত জেলা বিএনপি কার্যালয়ের সাইনবোর্ড খুলে ফেলে ভবন মালিক মৃত রশিদ মিয়ার ছেলে সাইফুল ইসলাম। পরে আসবাবপত্র বের করে তালা ঝুলিয়ে দেন।

সোমবার দুপুরে দখল করা ওই অফিসের সামনে আরাফাত হোটেল অ্যান্ড রেস্টুরেন্ট নামের সাইনবোর্ড লাগালের বিষয়টি সংবাদকর্মীদের নজরে আসে। এ ঘটনায় বিএনপির পক্ষ থেকে সদর থানায় একটি অভিযোগ দেওয়ার  প্রস্তুতি চলছে।

বিএনপি অফিসের তত্ত্বাবধায়ক ফরিদ হোসেন জানান, শুক্রবার জেলা বিএনপির সহসভাপতি মিঞা আহম্মেদ কিবরিয়াকে ফোন করে অফিসের চাবি মালিক পক্ষের লোকজনের কাছে দিতে বলেন। সভাপতি ও সম্পাদকের অনুমতি ছাড়া চাবি দিতে অস্বীকৃতি জানালে মালিক পক্ষ অফিসের তালা ভাঙার চেষ্টা করে। পরে সাইফুল ইসলামকে চাবি দিলে তিনি মালামাল বাইরে বের করে অফিস তালা মেরে দেন। বিএনপির কার্যালয় ভবনটি কিবরিয়ার নামে চুক্তি করা ছিল।

নেতাকর্মীরা জানান, এই জেলার কার্যালয়টি মূলত ঝালকাঠি-২ আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী জেলা বিএনপির সহসভাপতি মিঞা আহমেদ কিবরিয়ার উদ্যোগেই কয়েক বছর আগে তার এক আত্মীয়র কাছ থেকে ভাড়া নেওয়া হয়েছিলো। এতদিন কিবরিয়া এই ভবনের ভাড়া পরিশোধ করেছেন। দলীয় নেতাকর্মীদের ধারণা এবার মনোনয়ন না পেয়ে কিবরিয়া ক্ষুব্ধ হয়ে অফিস ছেড়ে দিয়েছেন।

জেলা বিএনপি সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান খান বাপ্পি বলেন, ‘ এই অফিসটি জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি মিঞা আহম্মেদ কিবরিয়ার নামে চুক্তি ছিল। চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার কারণে হয়তো মালিক পক্ষ তালা লাগিছে। তবে এটা তারা ভালো করেনি। আমাদের জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মনিরুল ইসলাম নুপুর জেল হাজতে রয়েছেন। তিনি বের হলে মিটিং করে কার্যালয়ের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

মিঞা আহমেদ কিবরিয়া এ বিষয়ে বলেন, ‘আমার আত্মীয়ের কাছ থেকে এই অফিসটি আমি ভাড়া নিয়েছিলাম। এখন পারিবারিক সমস্যার কারণে অফিসটি ছেড়ে দিতে হয়েছে। অফিসের মালামাল আমার হেফাজতে রয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :

জামালপুরে বন্যার পরিস্থিতির আরো অবনতি

জামালপুরে বন্যার পরিস্থিতির আরো অবনতি
জামারপুরে বন্যা কবলিত এলাকা

উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও টানা ভারী বর্ষণে জামালপুরে বন্যা পরিস্থিতির আরো অবনতি হয়েছে। জেলার সাতটি উপজেলার ৪৭ ইউনিয়ন প্লাবিত হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় যমুনার পানি ১৬ সেন্টিমিটার বেড়ে মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) সকালে বাহাদুরাবাদ পয়েন্টে বিপদসীমার ১৩৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

যমুনার পানি বিপদসীমা অতিক্রম করায় জেলার ৪৭টি ইউনিয়ন প্লাবিত হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে এসব এলাকার পুকুরের মাছ, গরুর খাবার ও বিস্তীর্ণ ফসলের মাঠ। বন্ধ হয়ে গেছে সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা। পানি বৃদ্ধির কারণে বন্যা কবলিত এলাকার ৩০০ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে গেছে।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/16/1563247221662.jpg
জামালপুরে বন্যা কবলিত এলাকায় প্লাবিত হয়েছেন ৮০ হাজার পরিবারের ৫ লাখ মানুষ। বন্যার পানি বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শুকনো খাবারের প্রয়োজনের পাশাপাশি শিশু খাদ্য ও বিশুদ্ধ পানির সংকট দেখা দিয়েছে। কিছু এলাকায় দেখা দিয়েছে চর্মরোগ ও শিশুদের সর্দি জ্বর।

বন্যা আক্রান্ত মানুষেরা বলছেন তাদের কাছে এখনো ত্রাণসামগ্রী পৌঁছায়নি। অন্যদিকে ইউনিয়ন পরিষদের সদস্যরা বলছেন বন্যা কবলিত মানুষের সংখ্যার চেয়ে ত্রাণের পরিমাণ কম থাকায় সবাইকে দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না।

জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বন্যা কবলিত মানুষদের জন্য ৬শ’ ৫০ মে. টন চাল, নগদ ৯ লাখ ৫০ হাজার টাকা এবং ২০০০ প্যাকেট শুকনো খাবার বরাদ্দ করা হয়েছে। এছাড়াও প্রতি উপজেলায় ২টি করে মেডিকেল টিম দেওয়া আছে।

নারায়ণগঞ্জে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ১৪ মামলার আসামি নিহত

নারায়ণগঞ্জে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ১৪ মামলার আসামি নিহত
ছবি: প্রতীকী

নারায়ণগঞ্জে মাদকসহ ১৪ মামলার আসামি বিপ্লব হোসেন (৩১) জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হয়েছেন৷

সোমবার (১৫ জুলাই) রাত আড়াইটার দিকে ফতুল্লার চাঁদমারী এলাকায় ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডের মাইক্রোবাস স্ট্যান্ডের পাশে এ ঘটনা ঘটে৷ ঘটনাস্থল থেকে একটি ওয়ান শুটারগান উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে ডিবি৷

নিহত বিপ্লব নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার চাঁদমারী এলাকার সুলতান মিয়ার ছেলে।

জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) কামরুল জানান, তালিকাভুক্ত শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী বিপ্লবের বিরুদ্ধে শুধু ফতুল্লাতেই ১৪টি মাদকের মামলা রয়েছে। ডিবি তাকে গ্রেফতারের জন্য গেলে কয়েকজন সন্ত্রাসী গুলি ছোড়ে৷ ডিবি আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছুড়লে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়৷ পরে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডের মাইক্রোবাস স্ট্যান্ডের পাশে বিপ্লবের মরদেহ পড়ে থাকতে দেখা যায়।

এ ঘটনায় ডিবির উপ-পরিদর্শক (এসআই) ওসমান, সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) সোহেল এবং দুই কনস্টেবল আহত হয়েছেন বলেও দাবি করেন তিনি৷

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র