Barta24

শনিবার, ১৭ আগস্ট ২০১৯, ২ ভাদ্র ১৪২৬

English

চিকিৎসকের ওপর হামলা, অভিযুক্ত পুলিশ সদস্য ক্লোজড

চিকিৎসকের ওপর হামলা, অভিযুক্ত পুলিশ সদস্য ক্লোজড
ছবি: বার্তা২৪
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
রংপুর
বার্তা ২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

চিকিৎসকের ওপর হামলার ঘটনায় রাকিবুল ইসলাম নামে এক সহকারী উপ-পুলিশ পরিদর্শককে প্রত্যাহার করে নিয়েছে কুড়িগ্রাম জেলা পুলিশ। বুধবার (১৬ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় ওই পুলিশ সদস্যকে কুড়িগ্রাম পুলিশ লাইন্সে প্রত্যাহার (ক্লোজড) করা হয়েছে।

হামলার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে প্রত্যাহারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কুড়িগ্রামের পুলিশ সুপার মেহেদুল করিম। তিনি বলেন, 'রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় কর্তব্যরত চিকিৎসকের ওপর হামলার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত সহকারী উপ-পুলিশ পরিদর্শক রাকিবুল ইসলামকে প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়েছে। আগামী চব্বিশ ঘণ্টার মধ্যে কারণ দর্শাতে বলা হয়েছে। এরপর তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা করা হবে।'

জানা গেছে, কুড়িগ্রাম জেলার ফুলবাড়ি থানা পুলিশের সহকারী উপ-পুলিশ পরিদর্শক (এএসআই) রাকিবুল ইসলাম সোমবার (১৪ জানুয়ারি) রাতে তার বা পায়ে ফোঁড়ার চিকিৎসা নিতে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি ওয়ার্ডে ভর্তি হন।

এরপর মঙ্গলবার দুপুরে তার অস্ত্রোপচার করা হয়। অস্ত্রোপচারের পর তাকে পোস্টঅপারেটিভ ওয়ার্ডে রাখা হয়। এসময় তিনি ব্যথায় ছটফট করতে থাকেন। পরে বিকেল ৫টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক সঞ্জয় কুমার রায় ওই ওয়ার্ডে খোঁজ নিতে গেলে রাকিবুল ইসলাম চিকিৎসকের ওপর চড়াও হয়ে হামলা করেন। এতে চিকিৎসক আহত হন।

এ ঘটনার পর মঙ্গলবার রাতেই ওই পুলিশ সদস্যকে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়। এদিকে মুখ মণ্ডলে আঘাত পেয়ে বর্তমানে হাসপাতালের নিউরো সার্জারি ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন আছেন চিকিৎসক সঞ্জয় কুমার রায়।

এদিকে, চিকিৎসকের ওপর হামালার ঘটনায় দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে তিন দিনের আল্টিমেটাম দিয়েছে বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন রংপুর জেলা শাখা। বুধবার দুপুরে মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল চত্বরে প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে এ আল্টিমেটাম দেওয়া হয়।

বৃহস্পতিবার (১৭ জানুয়ারি) থেকে শনিবার পর্যন্ত কালোব্যাজ ধারণ এবং শনিবার প্রতিবাদ সমাবেশের কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়। অভিযুক্ত পুলিশ সদস্যর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা গ্রহণ করা না হলে কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন বিএমএর কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ও জেলা সভাপতি দেলোয়ার হোসেন।

আপনার মতামত লিখুন :

ঈদের রাতে হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় আসামির জবানবন্দি

ঈদের রাতে হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় আসামির জবানবন্দি
আটক হওয়া আসামি মানিক, ছবি: সংগৃহীত

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় ফিল্মি কায়দায় বন্ধুকে তাড়িয়ে আরেক বন্ধু রাকিবকে (২০) কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় মূলহোতা মানিক ওরফে গিয়ার মানিককে (২৩) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মানিক গ্রেফতারের কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে হত্যার দায় স্বীকার ১৬৪ ধারায় আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন।

শুক্রবার (১৬ আগস্ট) ফতুল্লার পাগলা তালতলা এলাকা হতে মানিককে গ্রেফতার করা হয়। ঐদিন সন্ধ্যায় নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কাউছার আহম্মেদের আদালতে সে হত্যার জবানবন্দি দেয়।

গ্রেফতারকৃত মানিক চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ থানার শাহাপুর রামদাসের বাগ এলাকার আবুল কালামের ছেলে। সে পাগলা কুসুমবাগ রেজাউল করিমের বাড়ির ভাড়াটিয়া হিসাবে বসবাস করে।

ফতুল্লা মডেল থানার এসআই মঈনুল হক জানান, নিহত রাকিবের সঙ্গে মানিকের পূর্বে বিরোধ ছিল। তাকে হত্যার জন্য পরিকল্পিতভাবে মানিকসহ আরও ৪ থেকে ৫ জন মিলে রাস্তায় অবস্থান করে। রাতে রাকিবসহ তার বন্ধু আব্দুল্লাহ পাগলা হতে রিকশা যোগে বাড়িতে ফেরার জন্য রওনা দেয়। মাঝে রাকিবদের রিকশা গতিরোধ করে ধারালো ছোড়া দিয়ে এলোপাতাড়িভাবে রাকিবকে কুপিয়ে হত্যা করে রাস্তায় ফেলে চলে যায়। রাকিবকে হত্যা করার পরিকল্পনা ছিল ৫ থেকে ৬ জন।

তিনি আরও জানান, রাকিব হত্যার ঘটনায় নিহতের বাবা নওশাদ বেপারী বাদী হয়ে গিয়ার মানিককে প্রধান আসামি করে অজ্ঞাতনামা আরও ৭ থেকে ৮ জনকে আসামি করে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা দায়ের করে। এ মামলার প্রধান আসামি গিয়ার মানিককে গ্রেফতার করা হয়। শুক্রবার সন্ধ্যায় মানিক হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে। আর হত্যাকাণ্ডে আরও যারা জড়িত রয়েছে খুব শিগগিরি তাদেরকে গ্রেফতার করা হবে।

প্রসঙ্গত, ঈদের আগের দিন রোববার গভীর রাতে ফতুল্লার পাগলা এলাকায় ফিল্মি স্টাইলে এক বন্ধুকে তাড়িয়ে আরেক বন্ধু রাকিবকে (২০) কুপিয়ে হত্যা করে মানিকসহ তার বন্ধুরা।

রায়পুরে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু

রায়পুরে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু
নুসরাতের লাশ। ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম।

লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে খালের পানিতে ডুবে নুসরাত জাহান (৬) নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, খেলতে গিয়ে পা পিছলে খালে পড়ে যায় সে।

শনিবার (১৭ আগস্ট) দুপুরে রায়পুর পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ডের মধুপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নুসরাত একই এলাকার মো. সোহেলের মেয়ে।

স্বজনরা জানায়, নুসরাতকে না পেয়ে বিভিন্ন জায়গায় খুঁজতে থাকেন তারা। একপর্যায়ে বাড়ির পাশে একটি খালে ভাসমান অবস্থায় নুসরাতের লাশ দেখতে পান। পরে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র