Barta24

রোববার, ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬

English

আলোর ফেরিওয়ালা এবার মেহেরপুরে

আলোর ফেরিওয়ালা এবার মেহেরপুরে
ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ দিতে যাচ্ছে আলোর ফেরিওয়ালা, ছবি: বার্তা২৪
মাজেদুল হক মানিক
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
মেহেরপুর
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার ধানখোলা গ্রাম। ভ্যানযোগে গেলেন কয়েকজন লোক। তাদের কাছে বৈদ্যুতিক নানান সরঞ্জাম। প্রবেশ করলেন বিধবা মোমেনা খাতুনের বাড়িতে। গৃহকর্তার কাছ থেকে আবেদন সংগ্রহ করেই ওয়ারিং পরিদর্শন সম্পন্ন করা হলো। সেখানে বসেই রসিদে গ্রহণ করা হয় মিটারের জামানত।

একদিকে কাগজপত্রের কাজ সম্পন্নের কাজ চলছে অন্যদিকে মিটার স্থাপনের কাজ করছিলেন কয়েকজন লাইনম্যান। মাত্র ৫ মিনিটের মধ্যে স্বপ্নের বৈদ্যুতিক আলোয় আলোকিত হলো মোমেনার বাড়িঘর। মিটার পেয়ে শুধু ওই বাড়ির লোকজনই নয় আশেপাশের লোকজনও আনন্দে ভাসছেন।

হ্যাঁ, এটিই হচ্ছে পল্লী বিদ্যুতের আলোর ফেরিওয়ালা। মেহেরপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির গাংনী জোনাল অফিসের একদল কর্মকর্তা-কর্মচারী ভ্যানে করে মিটার প্রত্যাশীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে এভাবেই দিচ্ছেন সংযোগ।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jan/17/1547695124714.gif

বুধবার (১৬ জানুয়ারি) আনুষ্ঠানিকভাবে এ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন গাংনী জোনাল অফিসের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার (ডিজিএম) নিরাপদ দাস। উপস্থিত ছিলেন সহকারী জেনারেল ম্যানেজার রাসেল আহমেদ, প্লান্ট হিসাব রক্ষক নুর ইসলাম সিদ্দিক, এনফোর্সমেন্ট কো-অর্ডিনেটর (ইসি) আবুল কাশেম, ওয়ারিং ইন্সপেক্টর আমিরুল ইসলাম, লাইনম্যান আব্দুল্লাহ ও সোহেল রানা।

বিদ্যুৎ পেয়ে গৃহবধূ মোমেনা খাতুন বলেন, 'আমার কোন লোকজন নেই তাই অফিসে গিয়ে আবেদন করা সম্ভব হচ্ছিল না। এভাবে বাড়ি বসে বৈদ্যুতিক মিটার পেয়ে যাবো তা স্বপ্নেও ভাবিনি।'

শুধু মোমেনা খাতুনের বাড়িতেই নয় প্রথম দিনেই গাংনী জোনাল অফিসের আওতাধীন প্রায় ২০টি বাড়িতে বৈদ্যুতিক সংযোগ দিয়েছে আলোর ফেরিওয়ালা টিম।

এ প্রসঙ্গে গাংনী জোনাল অফিসের ডিজিএম নিরাপদ দাস বলেন, 'মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগ ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ এ স্লোগানে ৫ মিনিটে আলোর ফেরিওয়ালার মাধ্যমে বৈদ্যুতিক সংযোগ দেয়া হচ্ছে। যাদের বাড়িতে এখনো বিদ্যুৎ পৌঁছায়নি তাদের যদি খুঁটি লাগে তাহলে আগামী সাত দিনের মধ্যে আবেদন করতে হবে। খুঁটি দিয়েই তাদের বাড়িতে বৈদ্যুতিক সংযোগ দেয়া হবে। গ্রাহক হয়রানি বন্ধ ও দুর্নীতিমুক্ত করতেই আলোর ফেরিওয়ালা কর্মসূচি চালু করা হয়েছে।'

আপনার মতামত লিখুন :

ভোলায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে দোকান কর্মচারীর মৃত্যু

ভোলায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে দোকান কর্মচারীর মৃত্যু
ছবি: প্রতীকী

ভোলায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মানিক (২৪) নামে এক দোকান কর্মচারীর মৃত্যু হয়েছে।

রোববার (২৫ আগস্ট) দুপুরে ভোলা সদর রোডে অবস্থিত সফিউদ্দিন মালিকানাধীন জাপান গ্লাস হাউজে এ ঘটনা ঘটে।

মানিক ভোলা সদর উপজেলার ধনিয়া ইউনিয়নের আলগী গ্রামের মো. রতনের ছেলে।

জানা গেছে, দুপুরের দিকে দোকানের দ্বিতীয় তলায় অবস্থিত গোডাউন থেকে এস এস পাইপ নামাচ্ছিলেন মানিক। তখন অসাবধানতা বশত একটি পাইপ পাশে বিদ্যুতের তারে গিয়ে লাগে। এতে মানিক বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন। তাকে দ্রুত উদ্ধার করে ভোলা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

ভোলা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ছগির মিয়া এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

মাদারীপুরের শিবচরে ট্রাকের চাপায় নিহত ১

মাদারীপুরের শিবচরে ট্রাকের চাপায় নিহত ১
সড়ক দুর্ঘটনার প্রতীকী ছবি

ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের মাদারীপুরের শিবচরে ট্রাকের চাপায় জাকির ফকির (৩৫) নামের একজন নিহত হয়েছেন। নিহত জাকির হোসেন শিবচর উপজেলার বাবলা তলা এলাকার ইমারত ফকিরের ছেলে। সে পেশায় ভ্যান চালক।

রোববার (২৫ আগস্ট) সন্ধ্যা ছয়টার দিকে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের হাজী শরিয়তউল্লাহ সেতুর পূর্বপাড়ে এই দুর্ঘটনাটি ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সন্ধ্যার দিকে কাঠালবাড়ি ঘাট থেকে ভাঙ্গাগামী একটি মালবাহী ট্রাক একটি ভ্যানকে চাপা দেয়। এ সময় ভ্যান চালক ঘটনাস্থলেই মারা যান।

শিবচর হাইওয়ে পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নবী হোসেন বলেন, 'একটি ট্রাক ভ্যানটিকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই ভ্যানের চালক মারা যায়। ট্রাকটি আটকের চেষ্টা চলছে।'

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র