Barta24

বুধবার, ২৬ জুন ২০১৯, ১২ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

ধানের দাম না বাড়লেও চালের দাম বেড়েছে

ধানের দাম না বাড়লেও চালের দাম বেড়েছে
বগুড়ার বাজারে ধানের দাম না বাড়লেও বেড়েছে চালের দাম/ ছবি: বার্তা২৪.কম
গনেশ দাস
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
বগুড়া
বার্তা ২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

বগুড়ায় ধানের দাম না বাড়লেও খুচরা বাজারে চালের দাম বেড়েছে কেজি প্রতি চার টাকা। মোটা ও সরু সব ধরনের চালের দাম বাড়ার পেছনে কারণ কী তা স্পষ্ট বলতে পারছেন না ক্রেতা-বিক্রেতারা।

তবে মিলারদের সিন্ডিকেটের কারণে চালের দাম বেড়েছে বলে মনে করেন অনেক ব্যবসায়ী। আর চাল কল মালিকরা বলছেন, সরকারি খাদ্য গুদামে চাল কেনা শুরু করায় বাজারে এর প্রভাব পড়েছে।

কিন্তু যে ধান থেকে চাল তৈরি করে সরকারি খাদ্য গুদামে সরবরাহ করছে সেই ধানের ধান দাম গত দুই সপ্তাহে কমেছে ৫০ থেকে ৭০ টাকা মণ প্রতি।

বগুড়া জেলার বিভিন্ন বাজারে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, যে চাল ১৫ দিন  আগেও বিক্রি হয়েছে ২৮ টাকা কেজি, সেই চাল এখন বিক্রি হচ্ছে ৩২ টাকা। মিনিকেট ৫২ টাকা কেজি, জিরা শাইল ৫৪ টাকা কেজি, বিআর-৪৯ প্রতি কেজি ৩৮ টাকা, বিআর-২৮ প্রতি কেজি ৪০ টাকা এবং লাল পাইজাম প্রতিকেজি ৫৮ টাকা দরে খুচরা বিক্রি হচ্ছে।

খুচরা বিক্রেতারা বলছেন, ‘চালের দাম আরো বাড়বে।’ কেন বাড়বে তার কোনো সদুত্তর নেই বিক্রেতাদের কাছে।

নন্দীগ্রামের কৃষক ফজলুর রহমান জানান, দুই সপ্তাহ আগেও ধান বিক্রি করেছেন ৮০০ টাকা মণ। সেই ধান এখন ৭২০ টাকা মণ।

গাবতলীর কাগইল গ্রামের কৃষক পলাশ চন্দ্র জানান, তাদের এলাকাতেও ধানের দাম ৭০০ থেকে ৭২০ টাকার মধ্যে। সরকারি খাদ্য গুদামে চাল কেনা শুরু হলেও ধানের উপর এর কোনো প্রভাব পড়েনি।

কারণ হিসেবে তারা বলছেন, মিল মালিকরা ধান কাটার আগেই ক্ষেত থেকে কম দামে ধান কিনে রেখেছেন। ফলে এখন বাজার থেকে খুব কম পরিমাণ ধান কিনতে হচ্ছে। অধিকাংশ মিলেই হাজার হাজার মণ ধান মজুদ রয়েছে।

এদিকে জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, এবার ১২টি উপজেলা থেকে ৩৯ হাজার ৯৭২ মেট্রিক টন চাল কেনা হবে সরকারি খাদ্য গুদামগুলোতে। গত ৯ ডিসেম্বর থেকে চাল কেনা শুরু হয়েছে এবং তা চলবে ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।

জেলার এক হাজার ৯২৫ জন মিল মালিক প্রতি কেজি চাল ৩৬ টাকা দরে সরকারি খাদ্য গুদামে সরবরাহ করার জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন। গত বৃহস্পতিবার (১৭ জানুয়ারি) পর্যন্ত ৩২ হাজার মেট্রিক টন চাল সরবরাহ করা হয়েছে।

বগুড়ার দুপচাঁচিয়া উপজেলার চালকল মালিক আবলু কালাম আজাদ বলেন, ‘খুচরা বিক্রেতা ও চাল সিন্ডেকেটরা মিলারদের দূষলেও আসলে চালের বাজার অস্থির করে তুলছেন আড়তদার, মজুদদার ও খুচরা ব্যবসায়ীরা।’

তিনি বলেন, ‘ঢাকা, চট্টগ্রামের হাতে গোনা কয়েকজন আড়তদারের হাতে দেশের অধিকাংশ চাল মজুদ হয়ে আছে। তারা বাজারে কৃত্রিম সংকট তৈরি করে ইচ্ছে মত দামে চাল বিক্রি করছেন। তারা তাদের অপরাধ ঢাকার জন্যই মিলারদের দোষ দিচ্ছেন।’

আপনার মতামত লিখুন :

খাগড়াছড়ি-দীঘিনালা সড়কে যান চলাচল বন্ধ

খাগড়াছড়ি-দীঘিনালা সড়কে যান চলাচল বন্ধ
ছবি: বার্তা২৪

খাগড়াছড়ি জেলা সদরের পাহাড়ি কৃষি গবেষণার সামনে বেইলি ব্রিজের পাটতন ভেঙে খাগড়াছড়ি-দীঘিনালা সড়কে সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। বুধবার (২৬ জুন) সকালে চাল বোঝাই একটি ট্রাক ব্রিজ অতিক্রম করার সময় পাটাতন ভেঙে পড়লে সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

গাড়ি চালক মো. সাহাব উদ্দিন জানান, সকাল সাড়ে ৮টার দিকে চাল নিয়ে যাওয়ার সময় ব্রিজের ওপর ওঠার পরই হঠাৎ করে পাটাতন ভেঙে গিয়ে আটকা পড়ে।

Khagrachari

সড়ক ও জনপদ (সওজ) বিভাগেরর উপসহকারী প্রকৌশলী রনেন চাকমা জানান, গাড়িটি যাওয়ার সময় আমি চালককে নিষেধ করেছি। কিন্তু তা না শুনে ট্রাকটি ব্রিজ দিয়ে যাওয়ার সময় পাটাতন ভেঙে যায়।

সওজের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী সবুজ চাকমা জানান, আশির দশকে তৈরি এই ব্রিজ অনেকটাই জরাজীর্ণ হয়ে পড়েছে। এই ব্রিজের উপর পাঁচ টনের বেশি মাল নিয়ে না ওঠার নির্দেশনা থাকলেও ট্রাকের ড্রাইভার ১৩ টন মাল নিয়ে ব্রিজের ওপর ওঠার ফলে এই দুর্ঘটনা ঘটে। আমাদের নতুন ব্রিজের কাজ শেষ হতে আরো এক মাসের বেশি সময় লাগবে। বাকি সময়টুকু প্রশাসনের সহযোগিতা চাই।

বেনাপোল সীমান্তে ইয়াবা-ফেনসিডিলসহ আটক ৩

বেনাপোল সীমান্তে ইয়াবা-ফেনসিডিলসহ আটক ৩
বিজিবি ব্যাটালিয়নের পুটখালী ক্যাম্প

বেনাপোল পুটখালী সীমান্ত থেকে ৫৫ পিস ইয়াবা ও ছয় বোতল ফেনসিডিলসহ তিন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছেন বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) সদস্যরা।

বুধবার (২৬ জুন) দুপুর ১২টায় ২১ বিজিবি ব্যাটালিয়নের পুটখালী ক্যাম্পের সদস্যরা তাদের আটক করেন।

আটকরা হলেন—বেনাপোল পোর্ট থানার রাজগঞ্জ গ্রামের হযরত আলীর ছেলে আজিজুল (৩৬), পুটখালী গ্রামের মোজাম্মেল হোসেনের ছেলে সফিকুল ইসলাম (৩৫) ও একই গ্রামের ফজলে করিমের ছেলে মন্টু (৪০)।

বিজিবি জানায়, মাদক পাচারকারীরা ভারত থেকে ফেনসিডিল ও ইয়াবা ট্যাবলেট এনে সীমান্তে অবস্থান করছে; এমন সংবাদের ভিত্তিতে বিজিবি সসদস্যরা সেখানে অভিযান চালিয়ে আজিজুলকে ৫৫ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট এবং সফিকুল ও মন্টুকে ৬ বোতল ফেনসিডিলসহ আটক করা হয়।

খুলনা ২১ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের উপ অধিনায়ক মেজর সৈয়দ সোহেল আহমেদ বার্তা২৪.কমকে জানান, আটকদের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে বেনাপোল পোর্ট থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র