Alexa

থাপ্পড়ের প্রতিশোধে প্রাণ গেল যুবলীগ নেতার

থাপ্পড়ের প্রতিশোধে প্রাণ গেল যুবলীগ নেতার

থাপ্পড়ের প্রতিশোধে প্রাণ গেল যুবলীগ নেতার। ছবি: বার্তা২৪.কম

বিলে মাছ চাষকে কেন্দ্র করে দীর্ঘদিনের বিরোধের জের আর থাপ্পড় মারার প্রতিশোধ নিতে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে স্থানীয় ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক হাফিজুর রহমানকে (৩০)।

শনিবার (২০ জানুয়ারি) রাতে পাবনার আতাইকুলা থানার শ্রীপুর বাজারে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। নিহত হাফিজুর রহমান আতাইকুলা থানার রঘুরামপুর গ্রামের আবু তাহেরের ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, আতাইকুলার শ্রীপুরের চতরা বিলে মাছ চাষ ও বিলের আধিপত্য বিস্তার নিয়ে শনিবার বিকেলে জনৈক সাব্বিরের সঙ্গে হাফিজুরের বাকবিতণ্ডা হয়। এর এক পর্যায়ে হাফিজুর সাব্বিরকে থাপ্পড় মারে। সন্ধ্যায় হাফিজুর শ্রীপুর বাজারে আসলে পূর্ব থেকে ওঁৎ পেতে থাকা সাব্বির ও তার লোকজন তার ওপর হামলা চালায়। এ সময় তারা হাফিজুরকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে গুরুতর আহত করে পালিয়ে যায়।

পরে স্থানীয়রা মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওই দিন রাত ৯টার দিকে মারা যান তিনি।

স্থানীয়রা জানান, হাফিজুর রহমান নিষিদ্ধ ঘোষিত চরমপন্থী সংগঠন পূর্ববাংলা কমিউনিস্টপার্টির আঞ্চলিক নেতা ছিলেন। সম্প্রতি তিনি চরমপন্থী সংগঠন ত্যাগ করে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে এসে মৎস্যজীবী হিসেবে কাজ করছিলেন। পাশাপাশি স্থানীয় ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক হিসেবে দায়িত্বেও ছিলেন।

আতাইকুলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামান জানান, নিহত হাফিজুর নিষিদ্ধ ঘোষিত চরমপন্থী দলের নেতা ছিলেন। পাশাপাশি তিনি স্থানীয় যুবলীগের রাজনীতির সঙ্গেও সম্পৃক্ত ছিলেন। এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় পরিবারের পক্ষ থেকে ১৫ জনের নাম উল্লেখ করে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। আসামিদের ধরতে পুলিশের অভিযান শুরু হয়েছে বলেও জানান ওসি মনিরুজ্জামান।

আপনার মতামত লিখুন :