Barta24

বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯, ৬ ভাদ্র ১৪২৬

English

পরকীয়া ফাঁস হওয়ায় নারী পুলিশ কর্মকর্তার আত্মহত্যা

পরকীয়া ফাঁস হওয়ায় নারী পুলিশ কর্মকর্তার আত্মহত্যা
আত্মহত্যা করা পুলিশ কর্মকর্তা
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
বগুড়া
বার্তা ২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

পরকীয়া ফাঁস হওয়ায় গ্যাস ট্যাবলেট সেবন করে এক নারী পুলিশ কর্মকর্তা আত্মহত্যা করেছেন। বগুড়ার ধুনট থানায় কর্মরত সহকারি উপ-পরিদর্শক(এএসআই) রোজিনা আকতার বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় মঙ্গলবার (০৫ ফেব্রুয়ারি) রাত ১০ টার দিকে তিনি মারা যান।

চাপাইনবাবগঞ্জ জেলায় কর্মরত পুলিশ কনস্টেবল রফিকের সাথে পরকীয়া সর্ম্পক ফাঁস হওয়ায় আত্মহত্যার পথ বেছে নেন পুলিশ কর্মকর্তা রোজিনা আকতার। মঙ্গলবার রাতে শজিমেক হাসপাতালে বার্তা২৪ কে এতথ্য জানান, রোজিনার বাবা নান্নু মিয়া।

মঙ্গলবার দুপুরে ধুনটে ভাড়া বাসায় রোজিনা আকতার গ্যাস ট্যাবলেট সেবন করে অসুস্থ হয়ে পড়েন। থানা পুলিশ তাকে দ্রুত উদ্ধার করে বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে ভর্তি করে দেন। মেয়ে অসুস্থ হওয়ার খবর পেয়ে হাসপাতালে আসেন নাটোর জেলার সিংড়া থানার বাহাদুরপুর গ্রামের নান্নু মিয়া। মেয়ের আত্মহত্যার জন্য তিনি নাটোরের গুরুদাসপুর থানার গোপিনাথপুর গ্রামের বাসিন্দা পুলিশ কনস্টেবল রফিককে দায়ী করে তার বিচার দাবি করেন।

নান্নু মিয়া জানান, একবছর আগে রোজিনা বগুড়ার ধুনট থানায় যোগদান করেন। এক ছেলে এবং এক মেয়ে নিয়ে তিনি বসবাস করতেন। স্বামী হাসান আলী স্কুল শিক্ষক বসবাস করেন নাটোরের সিংড়ায়। স্বামীর সাথে  সর্ম্পক ভাল না থাকায় রোজিনা তার মা ও দুই সন্তানকে নিয়ে আলাদা থাকতেন।

নান্নু মিয়া বলেন, কয়েকদিন আগে রোজিনা মোবাইল ফোনে কথা বলার পর বাসায় কান্নাকাটি করে। তার মা কৌশলে নাম্বারটি সংগ্রহ করে রোজিনার বাবাকে দেন। তিনি ওই নাম্বারে যোগাযোগ করে জানতে পারেন কনস্টেবল রফিকের সাথে কথা বলার পর থেকেই রোজিনা কান্না করেছেন।

রফিকের সাথে পরকীয়ার বিষয় নিয়ে মার সাথে রোজিনার ঝগড়াঝাটি হয়। গত দুই দিন ধরে রোজিনা ঠিকমত খাচ্ছিলেন না। মঙ্গলবার দুপুরে হঠাৎ করে বাসায় এসে গ্যাস ট্যাবলেট সেবন করে অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি।

শেরপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গাজিউর রহমান বার্তা২৪.কমকে বলেন আত্মহত্যার কারন অনুসন্ধান করে জানতে হবে। তবে রোজিনার উন্নত চিকিৎসার জন্য এয়ার এ্যাম্বুলেন্সে ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি নেয়া হয়েছিল পুলিশের পক্ষ থেকে। এর আগেই তিনি মারা যান।

আপনার মতামত লিখুন :

টাঙ্গাইলে ৩৩ রাউন্ড গুলি উদ্ধার

টাঙ্গাইলে ৩৩ রাউন্ড গুলি উদ্ধার
প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে ৩৩ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করে পুলিশ

টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে এক‌টি প্রাথ‌মিক বিদ্যালয়ের পরিত্যাক্ত ভবনের মাটি খুঁড়ে ৩৩ রাউন্ড গুলি পাওয়া গেছে।

বুধবার (২১ আগস্ট) দুপুরে উপজেলার দিগলকান্দি ইউনিয়নের ৩৩ নং নাগশালা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে গুলিগুলো উদ্ধার করা হয়।

টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, ওই বিদ্যালয়ের আধাপাকা ঘরটি পরিত্যাক্ত হওয়ায় টেন্ডারের মাধ্যমে বিক্রি করা হয়। ঘর অনেক আগেই ভেঙে নেওয়া হয়েছে। নতুন ভবন নির্মাণের টেন্ডার হওয়ায় নির্মাণ কাজের জন্য মাটি খোঁড়ার সময় শ্রমিকরা একটি কাচের বোতলে গুলি দেখে পুলিশকে খবর দেয়।

পরে ঘাটাইল থানা পু‌লিশ ঘটনাস্থ‌লে গি‌য়ে গুলিগুলো উদ্ধার করে। তবে গুলিগুলো অকার্যকর হয়ে গিয়েছে। একটি গু‌লির সঙ্গে আরেকটি গু‌লি লেগে রয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে যুদ্ধাকালীন সময়ে গুলিগুলো মাটির নিচে পুঁতে রাখা হয়েছিল।

শেরপুরে অটোরিকশা চাপায় শিশু নিহত

শেরপুরে অটোরিকশা চাপায় শিশু নিহত
ছবি: প্রতীকী

শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে সিএনজি চালিত অটোরিকশা চাপায় নুছাইবা (৮) নামে এক শিশু নিহত হয়েছে।

বুধবার (২১ আগস্ট) সকালে উপজেলার মাটিয়াপাড়া এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নুছাইবা স্থানীয় জামাল উদ্দিনের মেয়ে ও ব্র্যাক স্কুলের প্রথম শ্রেণির ছাত্রী ছিল। এ ঘটনায় এক পথচারীসহ আহত হয়েছেন ৪ জন।

জানা যায়, সকালে ঝিনাইগাতী উপজেলার মাটিয়াপাড়া এলাকায় স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে রাস্তা পারাপারের সময় একটি সিএনজি চালিত অটোরিকশা নুছাইবাকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে নুছাইবা মারা যায়। ওই সময় সিএনজিটি খাদে পড়ে এক পথচারীসহ ৪ জন যাত্রী আহত হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা খাদে পড়ে যাওয়া সিএনজিটি উদ্ধার ও চালক আতিকুর রহমানকে আটক করে।

এ ব্যাপারে ঝিনাইগাতী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু বকর ছিদ্দিক জানান, নুছাইবার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ওই ঘটনায় থানায় একটি মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র