Alexa

ছেলেকে হাসপাতালে দেখতে যাওয়ার পথে বাবা খুন

ছেলেকে হাসপাতালে দেখতে যাওয়ার পথে বাবা খুন

এই বালু উত্তোলনকে ঘিরেই বিরোধ, ছবি: বার্তা২৪

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বগুড়া, বার্তা ২৪.কম

বগুড়া সদর উপজেলার তেলিহারা গ্রামে করতোয়া নদী থেকে অবৈধ বালুচর উত্তোলনে বাধা দেয়ায় ইউপি সদস্য ও তার সহযোগীদের মারপিট করেছে দুর্বৃত্তরা। এতে আহত হয়েছেন ৭জন গ্রামবাসী।

আহতদের মধ্যে খোকন নামে এক যুবকের বাবা মোখলেছুর রহমানের (৬০)। আহত সন্তানকে হাসপাতালে দেখতে যাওয়ার পথে তার ওপর হামলা চালিয়েছে প্রতিপক্ষের লোকজন। হামলায় মোখলেসুর রহমান নিহত হয়েছেন। নিহত মোখলেছুর তেলিহারা পূর্বপাড়ার মৃত লাল মিয়ার ছেলে এবং পেশায় ভ্যান চালক।

বৃহস্পতিবার (৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

পুলিশ ও গ্রামবাসী জানায়, উপজেলার শেখেরকোলা ইউনিয়ন পরিষদের ৫নম্বর ওয়ার্ড সদস্য (মেম্বার) এমদাদুল হক সম্প্রতি একটি কালভার্ট নির্মাণ কাজের ঠিকাদারি পান। ওই কাজ করার নামে তিনি অবৈধভাবে পার্শ্ববর্তী করতোয়া নদী থেকে বালু উত্তোলন করে বিক্রি করছিলেন। এতে নদী তীরের ফসলি জমি ও বাড়িঘর হুমকির মুখে পড়ায় গ্রামবাসী গত সপ্তাহে বালু উত্তোলন বন্ধ করে দেয়।

বিষয়টি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে অবহিত করে। চেয়ারম্যান বিষয়টি সরেজমিন পরিদর্শনের কথা বললে গ্রামবাসী উত্তোলিত বালু যেন মেম্বার সরিয়ে নিতে না পারে এজন্য রাস্তার মাঝে খুঁটি পুঁতে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে। বৃহস্পতিবার সকালে মেম্বার এমদাদ ও তার সহযোগীরা সেখানে গিয়ে ওই খুঁটিগুলো উপড়ে ফেলে বালু সরিয়ে নিতে শুরু করলে গ্রামবাসী বাধা দেয়।

সে সময় মেম্বার ও তার লোকজন গ্রামবাসীর ওপর হামলা চালালে শাহাদাৎ, রহমান, শাবলু, পরান, আশরাফুল, খোকন ও নিখিল নামের ৭জন আহত হন। পরে তাদের টিএমএসএস মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

আহত খোকনের বাবা ভ্যান চালক মোখলেসুর রহমান ছেলে হাসপাতালে ভর্তির বিষয়টি জানতে পেরে ছেলেকে দেখতে হাসপাতালের উদ্দেশ্যে রওনা দেন। পথিমধ্যে মেম্বারের সহযোগীরা তাকে আটকিয়ে বেদম মারপিটের এক পর্যায়ে মাথায় আঘাত করে। এতে তিনিও গুরুতর আহত হলে এলাকার লোকজন তাকে উদ্ধার করে একই হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে ভর্তির পর দুপুরে মারা যান মোখলেসুর রহমান। খবর পেয়ে থানা পুলিশ গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

বগুড়া সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সনাতন চক্রবর্তী বার্তা২৪.কম-কে বলেন, 'বালু উত্তোলনের বিরোধ ছাড়াও নিহতের পরিবারের সঙ্গে হামলাকারীদের আগে থেকেই পারিবারিক বিরোধ ছিল বলে প্রাথমিক অনুসন্ধানে জানা গেছে। নিহতের পরিবার এ বিষয়ে থানায় মামলা দায়ের করবে।'

জেলা এর আরও খবর

বাতির নিচে অন্ধকার!

বাতির নিচে অন্ধকার!

সরকার যখন প্রতিটি বাড়িতে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে কাজ করছে ঠিক তখনো বিদ্যুৎবিহীন শহর ঘেঁষা একটি গ্রাম। সারি ...