Alexa

ইজতেমায় উসকানিমূলক বয়ান দেওয়া যাবে না

ইজতেমায় উসকানিমূলক বয়ান দেওয়া যাবে না

বিশ্ব ইজতেমার প্রস্তুতি কাজের ফলো-আপ অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন বলেছেন, কেউ ইজতেমার বয়ানে কিংবা মাঠের মধ্যে কোনো উসকানিমূলক বক্তব্য দেবেন না। তারপরও যদি কেউ উসকানিমূলক বক্তব্য দেয় তাহলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ময়দানে আমাদের সাদা পোশাকে যথেষ্ট পরিমাণ নিরাপত্তাবাহিনী সজাগ থাকবে। ইজতেমা ময়দানের অংশগ্রহণকারীদের সেবার জন্য সরকার প্রস্তুত আছে।

তিনি বলেন, আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী আগের চেয়ে অনেক সমৃদ্ধ, অনেক দক্ষ। আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী এখন যে কোন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে পারে। কোন অপ-প্রচারও যদি কেউ করে থাকেন তাকে আমরা এখন তাৎক্ষণিক সনাক্ত করতে পারছি। তাই সবাইকে অনুরোধ করব কেউ আপনারা উসকানিমূলক, বিভ্রান্তিমূলক মন্তব্য, বক্তব্য দিবেন না, সে-টা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম  হউক আর সম্মূখে হউক।  যদি এর ব্যত্যয় ঘটে এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থার জন্য আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী তৈরি রয়েছে। 

বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের টঙ্গী আঞ্চলিক কার্যালয় চত্বরে বিশ্ব ইজতেমার প্রস্তুতি কাজের ফলো-আপ অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী ওইসব কথা বলেন।

গাজীপুর জেলা প্রশাসক দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ুন কবীরের সভাপতিত্বে ওই অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে ধর্মপ্রতিমন্ত্রী শেখ মো. আব্দুল্লাহ, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম, পুলিশ মহাপরিদর্শক মো. জাবেদ পাটোয়ারী, র‌্যাবের মহাপরিচালক মো. বেনজীর আহমেদ, গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার ওয়াই এম বেলালুর রহমান প্রমুখ।  

ভিসা সহজীকরণের আশ্বাস দিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, দুই মারকাজের তালিকা অনুযায়ী যারা যারা ভিসার আবেদন করবেন তাদের সবাইকে ভিসা দিয়ে দেয়ার জন্য ভারতে আমাদের যে রাষ্ট্রদূত আছে তাকে বলে দেব। এছাড়া পৃথিবীর যে কোন দেশ থেকে যদি কোন মুসুল্লির ব্যাপারে অনুরোধ থাকে তা আমাদের  জানাবেন আমরা ভিসার ব্যবস্থা করব। উদাহরণ টেনে তিনি এক আমেরিকান ও আফ্রিকান একটি দেশের মুসল্লিকে ভিসা দেয়ার কথা বলে দিয়েছি। এ ধরণের রিকুয়েস্ট থাকলে আপনারা লিখিতভাবে রিকুয়েস্ট আমাদের কাছে দেবেন, আমরা তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেব।

তিনি মুরুব্বীদের উদ্দেশ্যে আরও বলেন, দুই পক্ষের সমঝোতা স্মারক অনুয়ায়ী আপনারা চলবেন। ইজতেমায় কে আসবেন কে আসবেন না তা আগেই কথা হয়েছে, এসব নিয়ে নতুন করে আর কিছু বলার নেই। মন্ত্রণালয়ে সেই দিনের (দুই পক্ষের) ডিসিশন অনুযায়ী আপনারা লিস্ট পাঠান আমরা ভিসার ব্যবস্থা করে দিচ্ছি। সে দিনের কথা অনুযায়ী যারা ইজতেমায় আসতে চান নাই তারা আসবেন না। তারপর আপনারা যদি মনে করেন আরো কাউকে আসতে হবে, আমাদের কাছে লিস্ট পাঠান আমরা তার ব্যবস্থা করব।

আপনার মতামত লিখুন :