Barta24

বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০১৯, ১৩ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

ধর্মীয় অনুষ্ঠানে আসতে গিয়ে প্রাণ গেল দুই ভক্তের

ধর্মীয় অনুষ্ঠানে আসতে গিয়ে প্রাণ গেল দুই ভক্তের
ছবি: প্রতীকী
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
রাজবাড়ী
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

ধর্মীয় অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এসে রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার শিয়ালডাঙ্গী এলাকায় একটি যাত্রীবাহী বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে দুই ভক্ত নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন প্রায় ১১ জন। আহতদের উদ্ধার করে পাংশা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বুধবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) রাত সাড়ে ৩টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- বগুড়া জেলার নন্দিগ্রাম থানার পূর্ব বাঁশবাড়িয়া গ্রামের বাদশা মিয়ার ছেলে মিলন হোসেন (২২) ও একই গ্রামের কাতেব আলীর ছেলে জামাল হোসেন (২৫)।

রাজবাড়ীর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (পাংশা সার্কেল) ফজলুল করিম বার্তা২৪.কমকে জানান, নিহতরা বালিয়াকান্দির নবাবপুর ইউনিয়নের রসুলপুর গ্রামে অন্ধ হুজুরের তিনদিন ব্যাপী বার্ষিক ওরস শরীফে যোগ দিতে আসছিলেন। পথে তাদের বহনকৃত বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে গেলে ওই দুইজন নিহত হন। এ ব্যাপারে পরবর্তী আইনি কার্যক্রম গ্রহণ করা হবে।

আপনার মতামত লিখুন :

নুসরাত হত্যা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু

নুসরাত হত্যা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু
নুসরাত জাহান রাফি / ছবি: সংগৃহীত

ফেনীর সোনাগাজীর মাদরাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) দুপুরে ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মামুনুর রশিদের আদালতে এ সাক্ষ্য গ্রহণ শুরু হয়। অভিযোগ গঠনের ছয়দিনের মাথায় ৯২ জন সাক্ষীর মধ্যে আজ ৩ জন সাক্ষী আদালতে তাদের সাক্ষ্য উপস্থাপন করবেন।

বাদীপক্ষের আইনজীবী শাহজাহান সাজু বলেন, নির্ধারিত তারিখ অনুযায়ী আজ মামলার বাদী নুসরাতের ভাই মাহমুদুল হাসান নোমান, নুসরাতের বান্ধবী নিশাত ও সহপাঠী নাসরিন সুলতানা ফুর্তি সাক্ষ্য দিচ্ছেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার (২০ জুন) আদালত সাক্ষ্যগ্রহণের আদেশ দেন। ওইদিন মামলার ১৬ আসামির পক্ষে জামিন আবেদন করেন তাদের আইনজীবীরা। শুনানি শেষে আদালত তাদের আবেদন নামঞ্জুর করে ২৭ জুন সাক্ষ্যগ্রহণ শুরুর দিন ঠিক করে বিচার শুরুর আদেশ দেন আদালত।

২৪ ঘণ্টা পরও গ্রেফতার হয়নি ঘাতক নয়ন

২৪ ঘণ্টা পরও গ্রেফতার হয়নি ঘাতক নয়ন
রিফাতকে কোপানোর চেষ্টা করছে দুর্বৃত্তরা, ঠেকানোর চেষ্টা করছেন স্ত্রী, ছবি: সিসিটিভি

বরগুনায় স্ত্রীর সামনে স্বামী শাহ নেওয়াজ রিফাত শরীফকে (২৫) কুপিয়ে হত্যার ঘটনার ভিডিও ফুটেজের মাধ্যমে ইতোমধ্যেই খুনিরা চিহ্নিত। জেলা পুলিশের কাছে ঘটনার মূলহোতা নয়নসহ তার সহযোগীদের নাম, ঠিকানা এবং ফোন নম্বর পর্যন্ত রয়েছে।

জেলা পুলিশ থেকে শুরু করে থানা পুলিশের কাছে এসব তথ্য থাকার পরও ঘটনার ২৪ ঘণ্টা পার হয়ে গেলেও গ্রেফতার হয়নি নয়ন। অবশ্য এ ঘটনায় চন্দন নামে একজনকে গ্রেফতার করা হলেও নয়ন ও তার বাকি সহযোগীদের কোনো হদিসই পাচ্ছে না পুলিশ।

এ বিষয়ে বরগুনা জেলা ও থানা পুলিশের দাবি, পুলিশ নয়নসহ বাকি ঘাতকদের গ্রেফতার করতে অভিযান অব্যাহত রেখেছে। দ্রুত তাদের গ্রেফতার করা হবে।

বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) বরগুনা জেলার পুলিশ সুপার মারুফ হোসেন ও বরগুনা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবির মোহাম্মদ হোসেন বার্তা২৪.কমকে এসব কথা বলেন।

পুলিশ সুপার মারুফ হোসেন বলেন, ইতোমধ্যেই এ ঘটনার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট এক সন্ত্রাসী চন্দনকে গ্রেফতার করেছি। বাকিদের গ্রেফতারের জন্য বরগুনার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালানো হচ্ছে। আমরা আশা করি, দ্রুত তাদের গ্রেফতার করা হবে।

২৪ ঘণ্টা পার হয়ে গেলেও নয়নকে গ্রেফতার না করতে পারার বিষয়ে তিনি বলেন, নয়নসহ তার আরও কয়েকজ সহযোগী আত্মগোপনে আছে। তাদের গ্রেফতার করতে সম্ভাব্য সব প্রক্রিয়ায়কে সামনে রেখেই আমরা এগোচ্ছি। তবে যেন দ্রুত সময়ের মধ্যে গ্রেফতার করা যায়, সে বিষয়ে কড়া নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে থানা পুলিশকে।

এদিকে এ বিষয়ে বরগুনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবির মোহাম্মদ হোসেন বার্তা২৪.কমকে জানান, আমরা এখনো বাইরে অভিযান চালাচ্ছি নয়ন ও তার সহযোগীদের গ্রেফতার করার জন্য। গ্রেফতার চন্দের কাছ থেকেও আমরা বিভিন্ন তথ্য পেয়েছি। সে হিসেবেই আমাদের অভিযান চলছে।

ইন্টারনেট হত্যাকাণ্ডের ভিডিও ভাইরাল হয়ে যাওয়ায় ঘাতকরা আরও বেশি আত্মগোপনে চলে গেছে। তবে প্রযুক্তির ব্যবহারসহ সব কিছুই ব্যবহার করা হচ্ছে নয়নকে গ্রেফতার করার জন্য।

উল্লেখ, বুধবার (২৬ জুন) সকালে রিফাত শরীফ তার স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিকে নিয়ে বরগুনা সরকারি কলেজে যান। কলেজ থেকে ফেরার পথে নয়ন, রিফাত ফরাজীসহ চার যুবক রিফাত শরীফের ওপর হামলা চালায়। এ সময় তারা ধারালো অস্ত্র দিয়ে রিফাত শরীফকে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে। এতে বাধা দেওয়ার আপ্রাণ চেষ্টা করেন রিফাত শরীফের স্ত্রী আয়েশা। কিন্তু হামলাকারীদের থামাতে পারেননি তিনি।

পরে গুরুতর আহত অবস্থায় রিফাত শরীফকে প্রথমে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে ভর্তির এক ঘণ্টা পর বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

আরও পড়ুন: বরগুনায় রিফাত হত্যা মামলায় গ্রেফতার ১

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র