Barta24

বুধবার, ২৬ জুন ২০১৯, ১১ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

দীর্ঘদিনের ভালোবাসা হেরে গেল এপাচি হোন্ডায়!

দীর্ঘদিনের ভালোবাসা হেরে গেল এপাচি হোন্ডায়!
এপাচি ব্র্যান্ডের পুরনো মোটরসাইকেল / ছবি: বার্তা২৪,
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
লক্ষ্মীপুর
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

প্রেম-ভালোবাসা একটি মধুর সম্পর্ক৷ এটি মানে না কোনো বাধা। খোঁজে না ধর্ম-বর্ণ, ধনী-গরীব। বাবা-মা, ভাই-বোন সবার মঝেই থাকে চিরদিনের ভালোবাসা। তবে প্রেমিক-প্রেমিকার ভালোবাসায় থাকে কিছু ভিন্নতা। কারও ভালোবাসা স্বার্থহীন আবার কারও ভালোবাসা হচ্ছে লোভনীয়।

প্রেমিক-প্রেমিকার ভালোবাসা সফলও হয় আবার মাঝপথে এসে হারিয়ে যায়। তবে সফলতার চেয়ে সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার ঘটনা ঘটে বেশি। তেমনি লক্ষ্মীপুরের এক যুবকের চার বছরের প্রেমের সম্পর্ক ভেঙে দিয়েছে এক তরুণী। এপাচি ব্র্যন্ডের একটি নতুন মোটরসাইকেলে (হোন্ডা) ঘোরার সখ পূরণ করতে না পারায় ঘটনাটি ঘটেছে।

বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) সকালে ভালোবাসা দিবসে ওই যুবক তার প্রেমিকার সঙ্গে মোটরসাইকেলযোগে ঘুরতে বের হয়। কিন্তু লক্ষ্মীপুর সরকারি কলেজের সামনে আসলে ওই যুবকের মোটরসাইকেলটি হঠাৎ বন্ধ হয়ে যায়। এতেই ক্ষুদ্ধ হয়ে ওঠেন তরুণী। নতুন এপাচি হোন্ডা না কেনায় যুবকের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিন্ন করে চলে যান তিনি। আর যাবার সময় বলে গেছে, আর কখনো যেন তার সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা না করা হয়।

এ ঘটনাটি ঘটেছে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার লাহারকান্দি এলাকার আবিরনগরের এক যুবকের সঙ্গে। তিনি গত বছর লক্ষ্মীপুর সরকারি কলেজ থেকে স্নাতক (ডিগ্রি) কোর্স শেষ করেছেন। এখনো বেকার তিনি। ওই তরুণী একই কলেজের অনার্সের (সম্মান) ছাত্রী ও লক্ষ্মীপুর পৌরসভার বাঞ্চানগর এলাকার বাসিন্দা।

জানা গেছে, ওই যুবকের বাবা প্রায় ৩ বছর আগে ফ্যাশন ব্রান্ডের একটি পুরাতন মোটরসাইকেল কিনে দেয় তাকে। ওই মোটরসাইকেলটি এখন আরও পুরাতন হয়ে যায়। যে কারণে মাঝে মাঝে চালু অবস্থায় বন্ধ হয়ে যায়। আবার চালু করতে অনেক্ষণ সময় লাগে।

জানতে চাইলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই যুবক বলেন, ‘আমি ঘরের বড় ছেলে। এখনো কোনো চাকরি পাইনি। এরমধ্যে আমার প্রেমিকা একটি নতুন এপাচি ব্র্যান্ডের মোটরসাইকেল কিনতে বলে। কিন্তু টাকা না থাকায় তা আমার পক্ষে সম্ভব নয় বলে জানিয়েছি। কিন্তু আজ তাকে নিয়ে ঘুরতে বের হলে পুরাতন মোটরসাইকেলটি হঠাৎ বন্ধ হয়ে যায়।’

তিনি আরও বলেন, ‘কিছু বুঝে ওঠার আগেই নতুন মোটরসাইকেল না কেনার অভিযোগ দিয়ে সে চলে যায়। এ সময় আর কখনো তার সঙ্গে যোগাযোগ না করতে বলে গেছে। এরপর থেকে তার ব্যাবহৃত মোবাইলফোনটি বন্ধ পাচ্ছি। বাসার সামনে গিয়েও তার কোনো সাড়া পায়নি। ’

আপনার মতামত লিখুন :

বগুড়ায় পৃথক ছিনতাইয়ের ঘটনায় চারজন আহত

বগুড়ায় পৃথক ছিনতাইয়ের ঘটনায় চারজন আহত
ছিনতাইয়ের ঘটনায় আহতরা, ছবি: বার্তা২৪.কম

কয়েক ঘন্টার ব্যবধানে বগুড়া শহরে দুইটি পৃথক ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। ছিনতাইকারীদের ছুরিকাঘাতে নারীসহ আহত হয়েছেন চার জন। ছিনতাইকারীরা লুট করেছে নগদ সাড়ে তিন লাখ টাকা ও একটি সোনার চেইন।

মঙ্গলবার (২৫ জুন) দুপুরে বগুড়া সরকারি শাহসুলতান কলেজের সামনে এবং রাতে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অদূরে তেলিপুকুর নামক স্থানে পৃথক দুইটি ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে।

ছিনতাইকারীর কবলে পড়া গ্লোব ফার্মাসিউটিক্যালসের ম্যানেজার ফরহাদ আলী (৩৭) বার্তা২৪.কমকে জানান, তিনি টাঙ্গাইলের ঘাটাইল থেকে মোটরসাইকেল যোগে স্ত্রী মর্জিনা ও সন্তান নাঈমকে (৪) নিয়ে কর্মস্থল জয়পুরহাট জেলায় যাচ্ছিলেন।

রাত সাড়ে ৮টার দিকে তারা বগুড়ার  প্রথম বাইপাস মহাসড়কের তেলীপুকুর এলাকায় পৌঁছানোর পর দুই জন ছিনতাইকারী মোটর সাইকেল নিয়ে তাদের গতিরোধ করে। কিছু বুঝে ওঠার আগেই ছিনতাইকারীরা ফরহাদ আলির ঘাড়ে এবং উরুতে ছুরিকাঘাত করে।

এসময় স্ত্রী মর্জিনার গলা থেকে সোনার চেইন ছিনিয়ে নেয়ার সময় তিনি বাধা দিতে গেলে ছিনতাইকারীরা তার গালে ছুরিকাঘাত করে সোনার চেইন নিয়ে পালিয়ে যায়।

অপরদিকে অলিম্পিক সিমেন্ট কোম্পানীর মার্কেটিং ম্যানেজার সুদেব সরকার (৩৮) বার্তা২৪.কমকে বলেন তার কোম্পানীর ডিলার অভি সরকারকে (২৬) সাথে নিয়ে মোটরসাইকেল যোগে ব্যাংকে যাচ্ছিলেন।

তারা শাজাহানপুর উপজেলার নয়মাইল বাজার থেকে নগদ সাড়ে তিন লাখ টাকা নিয়ে ফিরছিলেন। পথিমধ্যে মঙ্গলবার (২৫ জুন) বেলা তিনটার দিকে শাহসুলতান কলেজের সামনে পৌঁছানোর পর মোটরসাইকেল যোগে দুইজন ছিনতাইকারী তাদের গতিরোধ করে এবং দুইজনকেই উপুর্যপরী ছুরিকাঘাত করে টাকার ব্যাগ নিয়ে পালিয়ে যায়।

ছিনতাইয়ের শিকার হওয়া ভুক্তভোগীদের বর্ণনা অনুযায়ী কালো রং এর পালসার মোটরসাইকেলে দুইজন স্মার্ট যুবক দুপুরে এবং রাতের এই ভিন্ন দুইটি ছিনতাইয়ের ঘটনার সাথে জড়িত।

বগুড়া সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সনাতন চক্রবর্তী বার্তা২৪.কমকে বলেন, ‘ছিনতাই এর সাথে জড়িতদের ধরতে পুলিশের একাধিক টিম মাঠে নেমেছে।’

উল্লেখ্য,গত রমজান মাসের শুরু থেকে বগুড়া শহরে চুরি, ছিনতাই, ডাকাতি ঘটনা একেবারে নেই বললেই চলে। মঙ্গলবার দুপুরের পর কয়েক ঘন্টার ব্যবধানে দুইটি ছিনতাই এর ঘটনা ঘটায় পুলিশও বেশ উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে।

মানিকগঞ্জে সবজির বাম্পার ফলনে কৃষকের মুখে হাসি

মানিকগঞ্জে সবজির বাম্পার ফলনে কৃষকের মুখে হাসি
সাটুরিয়ায় এবার বাম্পার ফলন হয়েছে স্থানীয়ভাবে সিরিআনাজ নামে পরিচিত কহি/ ছবি: বার্তা২৪.কম

অনুকূল আবহাওয়া আর যথাযথ পরিচর্যায় মানিকগঞ্জে সবিজর বাম্পার ফলন হয়েছে। স্থানীয় ও পাইকারি বাজারে চাহিদা থাকায় ও দাম পাওয়ায় সবজি চাষে লাভবান হচ্ছেন কৃষকরা।

জেলা কৃষি অধিদফতরের তথ্যমতে, চলতি খরিপ মৌসুমে জেলার চার হাজার ১৭৯ হেক্টর জমিতে সবজি চাষ করা হয়েছে। জেলার বিভিন্ন এলাকায় ঢেঁড়স, ঝিঙ্গা, বরবটি, করলা, কাকরোল, বেগুন, কহি, জালি (চাল কুমড়া), ডাটাসহ বিভিন্ন ধরণের সবজি চাষ করেছেন কয়েক হাজার কৃষক।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/25/1561479070901.jpg

বিশেষ করে- মানিকগঞ্জ সদর, সিংগাইর ও সাটুরিয়া উপজেলায় সবজির আবাদ হয় সবচেয়ে বেশি। রাজধানীর সাথে এসব এলাকার উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা থাকায় স্থানীয় বাজারের পাশাপাশি পাইকারি বাজারেও এখানের সবজির বেশ চাহিদা রয়েছে।

জেলার সাটুরিয়া উপজেলার সবজি চাষি আনোয়ার হোসেন বার্তা২৪.কম-কে বলেন, ‘জমি তৈরি থেকে ফলন আসা পর্যন্ত এক বিঘা জমিতে কহি (স্থানীয়ভাবে সিরিআনাজ হিসেবে পরিচিত) চাষে খরচ হয় ৩০ হাজার টাকা। বাজারে কহির চাহিদা এবং ফলন ভালো হওয়ায় বাজারদরও বেশ ভালো। ফলে এক বিঘা জমি থেকে প্রায় লাখ টাকার কহি বিক্রি করা সম্ভব।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/25/1561479104155.jpg

একই এলাকার সবজি চাষি বাচ্চু মিয়া বার্তা২৪.কম-কে বলেন, ‘৪০ হাজার টাকা খরচ করে দুই বিঘা জমিতে ঢেঁড়স আবাদ করেছি। এ পর্যন্ত বিক্রি হয়েছে ৬০ হাজার টাকা। বাজারদর ভালো থাকলে আরও প্রায় ৬০ হাজার টাকার ঢেঁড়স বিক্রি করা যাবে।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/25/1561479130964.jpg

জেলা কৃষি অধিদফতরের উপ-পরিচালক হাবিবুর রহমান চৌধুরী বার্তা২৪.কম-কে বলেন, ‘রবি মৌসুমে জেলার ৯ হাজার ৬০০ হেক্টর জমিতে সবজির আবাদ হয়েছিল। আর চলতি খরিপ (১) মৌসুমে চার হাজার ১৭৯ হেক্টর জমিতে বিভিন্ন রকমের সবিজ আবাদ হয়েছে। উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা আর বাজারদর ভালো থাকায় চলতি মৌসুমে মানিকগঞ্জের সবজি চাষিরা লাভবান হচ্ছেন।’

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র