Barta24

বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯, ২ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

‘ভাইয়াদের ভালোবাসায় আমরা খুশি’

‘ভাইয়াদের ভালোবাসায় আমরা খুশি’
ছবি: বার্তা২৪
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

‘আজ নাকি ভালোবাসা দিবস। ভাইয়ারা আমাদের অনেক ভালোবাসে, আমাদের জন্য ভালো ভালো খাবার আনছে, কম্বল আনছে। তারা অনেক ভালো। ভালোবাসি ভাইয়াদের, আই লাভ ইউ ভাইয়া।’

বৃহস্পতিবার দুপুরে ঠিক এভাবেই প্রতিক্রিয়া প্রকাশ করেন ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার আকচা ইউনিয়নে আরএসডিও প্রতিবন্ধী স্কুল ও পূনর্বাসন কেন্দ্রের প্রতিবন্ধী ছাত্র-ছাত্রী নাজমুল ইসলাম, সুমি ও ইমরান।

‘ভালোবাসা হোক মানবতার, ভালোবাসা হোক সবার জন্য’-এই স্লোগানকে সামনে রেখে বিশ্ব ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে ওই স্কুলের প্রায় ৩০ জন প্রতিবন্ধী শিশুদের মাঝে বস্ত্র ও খাবার বিতরণ করে নবীন আলো নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Feb/14/1550157515160.jpg

এসময় উপস্থিত ছিলেন- ঠাকুরগাঁও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ সাদেক কুরাইশী, আরএসডিও প্রতিবন্ধী স্কুল ও পূনর্বাসন কেন্দ্রের পরিচালক ইকলিমা খাতুন মিনা, সভাপতি সৈয়দ শিহাব, সাধারণ সম্পাদক রাকিব আল রিয়াদসহ শিক্ষক-শিক্ষিকা।

এ সময় জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাদেক কুরাইশী বলেন, ‘স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীদের উদ্যোগ দেখে আমি অবাক। প্রতিবন্ধী শিশুরা আমাদের সমাজের বোঝা নয়, তারা আমাদের সমাজের শক্তি। তাদের মেধার তুলনা হয়না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রতিবন্ধীদের জন্য অনেক কিছুই করেন।’

নবীন আলো সংগঠনের সভাপতি সৈয়দ শিহাব বার্তা২৪.কম’কে বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরেই আমার বন্ধুরা ও ছোট ভাইদের নিয়ে এই সংগঠনটি গড়ে তুলেছি। এরপর থেকে সমাজের অসহায় দরিদ্র, প্রতিবন্ধীদের সহায়তায় আমরা কাজ করে যাচ্ছি।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Feb/14/1550157539783.jpg

সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক রাকিব আল রিয়াদ বার্তা২৪.কম’কে বলেন, ‘আমরা মনে করি এই প্রতিবন্ধী শিশুরা আমাদের সমাজের বোঝা নয়। সমাজের অনেকেই প্রতিবন্ধীদের ভিন্ন চোখে দেখেন। আসলে এমনটি করা ঠিক না। তারাও তো মানুষ, তাদের তো মেধা আছে। এই সরকার তো এই প্রতিবন্ধীদের জন্য অনেক কিছুই করে। তাহলে আমরা তাদের পাশে দাঁড়ালে কী সমস্যা? এজন্য আমার আজ ভালোবাসা দিবসে এই প্রতিবন্ধী শিশুদের সাথে সময় কাটানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

আপনার মতামত লিখুন :

পদ্মায় তীব্র স্রোতে ফেরি চলাচলে ধীর গতি

পদ্মায় তীব্র স্রোতে ফেরি চলাচলে ধীর গতি
পদ্মার পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ায় তীব্র স্রোতে ফেরি চলাচলে ধীর গতি/ ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া পয়েন্টে পদ্মা নদীর পানি বিপদসীমার শূন্য দশমিক  ১০ সেন্টিমিটার ওপরে প্রবাহিত হওয়ায় স্রোতের তীব্রতার কারণে মারাত্মক বিপর্যয় ঘটছে দক্ষিণাঞ্চলের ২১ জেলার মানুষের অন্যতম প্রবেশদ্বার দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটের ফেরি চলাচলে।

নদী পারের অপেক্ষায় রয়েছে এখন দেড় সহস্রাধিকেরও বেশি যাত্রীবাহী বাস ও পণ্যবাহী ট্রাক। ঘাট এলাকায় এসে ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হচ্ছে যানবাহনগুলোকে। এতে যাত্রীরা পড়েছেন চরম ভোগান্তিতে। নষ্ট হচ্ছে পণ্যবাহী ট্রাকের মালামাল।

নদীর স্রোতের বেগ না কমলে বেশ কিছুদিন যানজট থাকতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন সংশ্লিষ্ট ঘাট কর্তৃপক্ষ। তারা বলছেন, স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে ফেরিগুলোর নদী পার হতে দ্বিগুণ সময় লাগার কারণে ঘাটে এই যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/17/1563352784998.gif

বুধবার (১৭ জুলাই) দুপুরে দেখা যায়, দৌলতদিয়া জিরো পয়েন্ট থেকে গোয়ালন্দ বাসস্ট্যান্ড পর্যন্ত পাঁচ কিলোমিটার ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে নদী পারের জন্য তিন সারিতে অপেক্ষা করছে দেড় সহস্রাধিক যানবাহন। এছাড়াও দৌলতদিয়া টার্মিনালেও ফেরির জন্য অপেক্ষারত আছে প্রায় শতাধিক ট্রাক। দুই থেকে তিনদিন পর্যন্ত টার্মিনালে ও মহাসড়কে অপেক্ষা করতে হচ্ছে এ যানবাহনগুলোকে।

বাগেরহাট থেকে আসা ট্রাক চালক মনোরঞ্জন কর্মকার বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে বলেন, ‘মঙ্গলবার বিকালে এখানে এসেছি। সারা রাত সড়কেই কেটেছে। আমার আগে আরও হাজারের উপরে ট্রাক অপেক্ষা করছে নদী পারের জন্য। আমি ঘাট থেকে এখনো চার কিলোমিটার দূরে রয়েছি। আজতো পার হতে পারবই না, কবে নাগাদ পার হতে পারব তাও বুঝতে পারছি না।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/17/1563352800836.gif

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহনের (বিআইডব্লিউটিসি) দৌলতদিয়া ঘাট ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) আবু আব্দুল্লাহ রনি বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে বলেন, ‘পদ্মার পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। যার কারণে নদীতে স্রোতের বেগ অনেক বেশি। আর তীব্র স্রোতের কারণে ফেরি চলতে পারছে না। স্বাভাবিক সময়ে ফেরিগুলোর নদী পার হতে যে সময় লাগত, এখন তার দ্বিগুণ লাগছে। ফলে ফেরিগুলোর ট্রিপ কমে গেছে। আর ফেরির টিপ কমে যাওয়ায় ঘাটে যানবাহনের চাপ বেড়ে গেছে।’

দৌলতদিয়া ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণের ট্রাফিক ইন্সেপেক্টর আবুল হোসেন বার্তাটোয়েন্টি.কম-কে বলেন, ‘স্রোতের কারণে ফেরিগুলোর নদী পার হতে বেশি সময় লাগায় ঘাটে যানবাহনের চাপ বাড়ছে। তবে যাত্রীদের যাতে কোনো ভোগান্তিতে পড়তে না হয়, সে বিষয়টি বিবেচনা করে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে যাত্রীবাহী বাসগুলোকে আগে নদী পার করতে চেষ্টা করছি। আর ঘাটে যে ট্রাকগুলো অপেক্ষা করছে সেগুলো সিরিয়াল অনুযায়ী পার করছি।’

মধুমতি নদী থেকে বৃদ্ধের লাশ উদ্ধার

মধুমতি নদী থেকে বৃদ্ধের লাশ উদ্ধার
ছবি: প্রতীকী

নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার মধুমতি নদী থেকে অজ্ঞাত এক বৃদ্ধের (৭০) লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বুধবার (১৭ জুলাই) উপজেলার জয়পুর ইউনিয়নের চরআড়িয়ালা থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

লোহাগড়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবু বক্কর জানান, নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার জয়পুর ইউনিয়নের চরআড়িয়ালা এলাকার মধুমতি নদীতে অজ্ঞাত বৃদ্ধের লাশ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা। পরে পুলিশে সংবাদ দেয় তারা। এরপর পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতালে পাঠায়।

নিহতের পরনে লুঙ্গি ও গায়ে চেক জামা ছিল। এ ঘটনায় তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র