Barta24

শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০১৯, ৪ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

বগুড়ার ১২ উপজেলায় ১৫৬ জনের মনোনয়নপত্র জমা

বগুড়ার ১২ উপজেলায় ১৫৬ জনের মনোনয়নপত্র জমা
মনোনয়নপত্রর দাখিলের সময় / ছবি:বার্তা২৪
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বগুড়া
বার্তা ২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বগুড়ার ১২টি উপজেলায় ১৫৬ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ৫৫জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৫৫ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪৬জন প্রার্থী রয়েছেন।

সোমবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) জেলা রিটার্নিং অফিসার এবং উপজেলা সহকারী রিটার্নিং অফিসারের নিকট আওয়ামী লীগ, বিএনপি এবং স্বতন্ত্র প্রার্থীরা তাদের মনোনয়নপত্র দাখিল করেন।

জেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

আদমদীঘি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম খান রাজু একক প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এই উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে অন্য কোনো প্রার্থী না থাকায় তিনি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত  হতে যাচ্ছেন।
        
বগুড়া সদর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে তিনজন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে চারজন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে জন প্রার্থী দুইজন মনোনয়নপত্র জমা দেন।

শিবগঞ্জ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে তিনজন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে চারজন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে সাতজন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

শাজাহানপুর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে সাতজন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে সাতজন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে তিনজন মনোনয়নপত্র জমা দেন।

গাবতলী উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে পাঁচজন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে পাঁচজন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে তিনজন মনোনয়ন জমা দেন।

সোনাতলা উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে দুইজন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে দুইজন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে তিনজন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

সারিয়াকান্দি উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে আটজন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে তিনজন ও মহিলা চেয়ারম্যান পদে চারজন মনোনয়নপত্র দাখিল করেন।

শেরপুর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে তিনজন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে তিনজন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে তিনজন মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন।

ধুনট উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ছয়জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে পাঁচজন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে পাঁচজন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

কাহালু উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে পাঁচজন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে সাতজন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে চারজন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

নন্দীগ্রাম উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে সাতজন ভাইস চেয়ারম্যান পাঁচজন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পাঁচজন মনোনয়নপত্র দাখিল করেন।

দুপচাঁচিয়া উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ছয়জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে পাঁচজন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান চারজন মনোয়নপত্র দাখিল করেন।

আদমদীঘি উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে একজন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে পাঁচজন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে তিনজন মনোনয়নপত্র জমা দেন।

আদমদীঘি উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে আর কেউ মনোনয়ন পত্র দাখিল না করায় আওয়ামী লীগের সিরাজুল ইসলাম খান রাজু বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন।

এ বিষয়ে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(সার্বিক) রায়হানা ইসলাম বার্তা ২৪.কমকে জানান, মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ের আগে কাউকে নির্বাচিত বলা যাবে না। তবে তিনি সেখানে একমাত্র প্রার্থী রয়েছেন, অন্য কেউ চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেনি।

আপনার মতামত লিখুন :

ছেলে ধরা গুজব ছড়িয়ে পরিবার আটক

ছেলে ধরা গুজব ছড়িয়ে পরিবার আটক
গুজব ছড়িয়ে এক পরিবারের চার সদস্যকে আটক করে স্থানীয়রা/ ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

বগুড়ায় ছেলে ধরা গুজব ছড়িয়ে প্রাইভেট কারসহ একটি পরিবারকে আটক করে স্থানীয় পৌরসভার ওয়ার্ড কাউন্সিলরের নেতৃত্বে এলাকাবাসী। এ সময় অল্পের জন্য গণপিটুনী থেকে রক্ষা পেয়েছেন পরিবারের সদস্যরা।

শুক্রবার (১৯ জুলাই) সন্ধ্যায় বগুড়া শহরতলীর সাবগ্রাম এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, বগুড়া মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সদস্য সরোয়ার হোসেন প্রাইভেট কার যোগে স্ত্রী সন্তান নিয়ে সারিয়াকান্দিতে যমুনা নদীতে বন্যার পানি দেখতে যান। সেখান থেকে ফেরার পথে গাবতলী পৌর সভার ৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সোহেল রানার মোটরসাইকেলের সাথে প্রাইভেট কারের ধাক্কা লাগে।

এ সময় প্রাইভেট কার থামাতে বললে চালক সরোয়ার হোসেন না থামিয়ে বগুড়া শহরের দিকে যেতে থাকেন। সোহেল রানা মোটরসাইকেল নিয়ে প্রাইভেট কারের পিছু ধাওয়া করেন।

সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে প্রাইভেট কারটি সাবগ্রাম দ্বিত্বীয় বাইপাস মহাসড়কে যানজটে আটকা পড়লে সোহেল রানা ছেলে ধরা গুজব ছড়ান। এ সময় স্থানীয় জনগণ প্রাইভেট কারে দুই শিশু দেখে তাদেরকে আটক করে। মুহূর্তের মধ্যে ছেলে ধরা গুজব ছড়িয়ে পড়লে শত-শত জনগণ তাদেরকে ঘেরাও করে।

সরোয়ার হোসেন এ সময় স্ত্রী সন্তান নিয়ে দৌড়ে একটি দোকান ঘরে গিয়ে আশ্রয় নেন। খবর পেয়ে পুলিশ তাদেরকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে গেলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

বগুড়া সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) রেজাউল করিম বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে বলেন, ‘থানায় আসার পর ভুল বোঝাবুঝির অবসান হলে সরোয়ার হোসেন স্ত্রী সন্তান নিয়ে বাড়ি ফিরে যান।’

ঝিনাইদহে দেখা মিলেছে ৩৫ মণ ওজনের গরু

ঝিনাইদহে দেখা মিলেছে ৩৫ মণ ওজনের গরু
ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

ঝিনাইদহের একটি খামারে দেখা মিলেছে ৩৫ মণ ওজনের এক গরুর। যার নাম দেওয়া হয়েছে যুবরাজ। প্রতিদিন গরুটি দেখতে খামারে ভিড় করছে উৎসুক জনতা। 

শুক্রবার (১৯ জুলাই) সদর উপজেলার দুর্গাপুর গ্রামে সরেজমিনে দেখা মেলে ৩৫ মণ ওজনের এই গরুটির। গরুটির মালিক শাহ আলম নিজ খামারে যুবরাজের দেখাশোনা করেন বলেও জানা যায়।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/19/1563550391931.jpg
শাহ আলম নিজেই গরুটির দেখাশোনা করেন  

 

শাহ আলম বলেন, 'বর্তমানে খামারে ৮ টি বড় গরু রয়েছে। এর মধ্যে প্রায় ৩৫ মণ ওজনের একটি গরু আছে যার নাম দিয়েছি যুবরাজ। ইতিমধ্যে গরুটির দাম হয়েছে ২২ লাখ টাকা।'

এদিকে, যুবরাজকে দেখতে প্রতিদিন তার খামারে ভিড় করছেন শত শত মানুষ।

তার খামারে গরু দেখতে আসা শৈলকুপা উপজেলার পলাশ হোসেন বলেন, 'বড় গরুর কথা শুনে আজ দেখতে এসেছি। এত বড় গরু আমি জীবনে দেখিনি।'

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/19/1563550688905.jpg
দূর থেকেও সবাই গরুটি দেখতে ভিড় করছে

 

হরিণাকুন্ডু উপজেলার মিলু হোসেন বলেন, 'শাহ আলমের খামারে গরু দেখে আমারও গরু পালনের ইচ্ছা হয়েছে। তার খামারে গরু দেখতেও ভালো লাগে।' 

গ্রামের নাসির উদ্দিন নামের এক কৃষক বলেন, 'গরুটি দেখতে অনেক মানুষ ভিড় করছে। তাই আমিও দেখতে এসেছি।' 

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র