Alexa

দায় দেনায় জর্জরিত পটুয়াখালী পৌরসভা!

দায় দেনায় জর্জরিত পটুয়াখালী পৌরসভা!

পটুয়াখালী পৌরসভা, ছবি: বার্তা২৪

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, পটুয়াখালী, বার্তা২৪

পটুয়াখালী পৌরসভা শতাব্দীর প্রাচীনতম একটি প্রতিষ্ঠান। ১৮৯২ সালে ১লা এপ্রিল ২৬ বর্গকিলোমিটার এলাকা নিয়ে পটুয়াখালী পৌরসভা গঠিত হয়। দীর্ঘ দিনেও পৌর এলাকায় তেমন উল্লেখযোগ্য উন্নয়ন হয়নি। শহরের কিছু কিছু সড়ক উন্নয়ন হলেও অনেক এলাকায় এখনও আছে মাটির রাস্তা। তবে এত কিছুর মাঝেও দিন দিন এই পৌরসভাটি দেনায় জর্জরিত হচ্ছে।

এর মধ্যে পটুয়াখালী পৌরসভার কাছে বিদ্যুৎ বিভাগের পাওনা সাড়ে পাচঁকোটি টাকার বেশি। এ ছাড়া পৌর কর্মকর্তা কর্মচারীদের নয় মাসের বেতন ভাতা বকেয়া রয়েছে। বকেয়া রয়েছে বিভিন্ন প্রচার প্রচারণা ও বিজ্ঞাপন বিলও। তবে সব মিলিয়ে পটুয়াখালী পৌরসভা বর্তমানে কত কোটি টাকার দেনায় রয়েছে সে বিষয়ে সুস্পষ্ট কিছু জানা যায়নি।

অনুসন্ধানে জানা যায়, পটুয়াখালী ওয়েস্টজোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড (ওজোপডিকো) পটুয়াখালী পৌরসভার কাছে ১৭ টি সংযোগের বিপরীতে ডিসেম্বর ২০১৮ পর্যন্ত পাওনার পরিমাণ ৫ কোটি ৬১ লাখ ৩৪ হাজার ৯১৬ টাকা। এই বকেয়া টাকা উত্তোলনের জন্য বিভিন্ন সময় নোটিশ প্রদানসহ একাধিকবার সংযোগ বিচ্ছিন্ন করলেও বকেয়া টাকা উদ্ধারে তেমন একটি সফলতার মুখ দেখেনি ওজোপাডিকো কর্তৃপক্ষ।

সংস্থাটির নির্বাহী প্রকৌশলী মু.আ.সালেক খান বলেন, ‘পটুয়াখালী পৌরসভার প্রতিমাসে ৮ থেকে ১০ লাখ টাকা বিদ্যুৎ বিল হয়ে থাকে। প্রতি মাসের বিল পরিশোধ করলে কিংবা অল্প অল্প করে পরিশোধ করলেও এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হতো না।
তবে আমরা এসব বিল আদায়ের চেষ্টা করছি।’

এদিকে পৌর কর্মকর্তা কর্মচারীরা সারা বছর পৌরবাসীকে সেবা প্রদান করলেও গত নয় মাস যাবত তাদের বেতন ভাতা বকেয়া রয়েছে। পৌরসভার সূত্র জানায়, এই বকেয়া বেতন ভাতা পরিশোধ করতে প্রায় আড়াই কোটি টাকা প্রয়োজন। প্রতিমাসে কর্মকর্তা কর্মচারীদের বেতন ভাতা পরিশোধ করতে ২৭ লাখ ৫০ হাজার ৩৪৫ টাকা প্রয়োজন হয়ে থাকে। পৌরসভার মোট স্থায়ী জনবলের সংখ্যা ১৩২ জন, চুক্তি ভিত্তিক রয়েছে ১১ জন এবং পরিচ্ছন্ন কর্মী আছেন ২১০ জন ।

অপরদিকে বিভিন্ন সময় পটুয়াখালী পৌরসভা বিভিন্ন টেন্ডার, বিজ্ঞপ্তি ও প্রচার, প্রচারণার জন্য বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশ করলেও যেসবের অধিকাংশরই বিল বকেয়া রয়েছে। এ নিয়ে বিভিন্ন সময় সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলো তাগাদা দিলেও পৌরসভা বিল পরিশোধ করেনি।

বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের কাছে পৌরসভা এই বিপুল অংকের টাকা দেনা থাকলেও গত তিন বছর যাবত পৌর নির্বাচন আটকে আছে। গত ২২ জানুয়ারি নির্বাচন কমিশন পটুয়াখালী পৌরসভা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করলে নির্বাচনী কার্যক্রম শুরু হয়। তবে এরই মধ্যে নির্বাচনকে বন্ধ করতে আদালতে বেশ কয়েকটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

সর্বশেষ তফসিল অনুযায়ী আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি পটুয়াখালী পৌরসভা নির্বাচনের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবার কথা রয়েছে। সর্বশেষ ২০১১ সালের ১৩ জানুয়ারি পটুয়াখালী পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। তবে ২০১৬ সালে মেয়াদ পূর্তি হলেও সীমানা বর্ধিতকরণ ও মামলা জটিলতায় আটকে যায় নির্বাচন।

জেলা এর আরও খবর